সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ৩৬ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ফুটবলপ্রেমী দর্শক আপনি কোথায়…!

14555550_1288195271204193_22094613_nহাসান মো. শামীম::
খুব বেশি দিন আগের কথা নয়, নেপাল বাংলাদেশ ম্যাচে জেলা স্টেডিয়ামে বসেছিল দর্শকের মেলা! গ্যালারিতে ঠাই না পেয়ে দর্শক নেমে এসেছিলেন মাঠে ! সাইড লাইনের ঢিল ছোড়া দুরত্বে দর্শক রেখে নেপাল দল খেলতে রাজি হওয়ায় রচিত হয়েছিল এক নতুন ইতিহাসের! খেলা দেখতে আসা বাফুফে কর্মকর্তারা বিস্ময়ে হতবাক হয়ে দেখেছিলেন সিলেটের দর্শকের ফুটবল প্রেম। তারই ধারাবাহিকতায় শুধু মাত্র দর্শকের কারনে আর বড় টুর্নামেন্ট আয়োজনের দায়িত্ব পায় সিলেট। বঙ্গবন্ধু কাপ কিংবা সাফ অনুর্ধ ১৬ ফুটবলে দর্শক প্রভুত পরিমানে উপস্থিত থেকে সমর্থনও দিয়েছিলেন সেই সিদ্ধান্তকে। তবে বিপিএল ফূটবলে এসে পাল্টে গেল সব হিসেব নিকেশ। সিলেট পর্বের শেষ দিনে এসে স্টেডিয়াম পাড়ায় হাহাকারের আরেক নাম দর্শক স্বল্পতা ! কোথায় গেলো ফুটবলপ্রেমী সেই দর্শক!

বাংলাদেশের সর্বোচ্চ পর্যায়ের ফুটবল খেলা বিপিএল দেখতে দর্শকের অনীহার অন্যতম কারন সমর্থন হীনতা ! মাঠের ফুটবলে দর্শক দের মন ভরলেও নিজ জেলার কোন সমর্থন পুষ্ট ক্লাব না থাকায় মাঠে আসার আগ্রহ পাননি অনেক দর্শক! কেননা বিপিএলে নেই সিলেটের কোন ক্লাব। এছাড়া বিপিএল খেলা ১২ টি ফুটবল ক্লাবের মধ্যেও নেই সিলেটী দর্শক দের সাথে কোন সংযোগ! যে কারনে গড়ে উঠেনি দর্শক দের সাথে স্বমন্বয় যা মাঠে টেনে আনতে পারে তাদের!

খেলা দেখতে আসা এক দর্শক বলেন “ভাই এক সময় সিলেট বিয়ানীবাজার ক্লাব জাতীয় লিগে খেললেও ক্লাব ফুটবলে সিলেটের কোন প্রতিনিধিত্ব নেই..নিজেদের দল না থাকলে দর্শকেরই বা কি দায় পড়েছে খেলা দেখতে আসার”! তিনি আরো বলেন “বর্তমানে ক্লাব ফুটবলে তারকা লেভেলের ও কোন খেলোয়াড় নেই যার খেলা দেখার জন্যও দর্শক মাঠে আসতে পারে!

football-daily-sylhetপ্রতিদিন দু’টো ম্যাচের আয়োজন কেও দোষছেন কেউ কেউ! গ্যালারিতে বসা এক দর্শক বলেন ” শুধু ফুটবল খেলা দেখার জন্য স্টেডিয়ামে এসে ৪ ঘন্টা ব্লক হয়ে যাওয়া অসম্ভব! কিন্তু এবারের বিপিএলে সেটা করতে দর্শক দের বাধ্য করা হয়েছে! এক টিকিটে দুটি খেলা হওয়ার কারনে দর্শক দের দু’টি ম্যাচ শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত স্টেডিয়াম থেকে বের হওয়ার কোন সুযোগ থাকেনা! অথচ দুটি খেলার মাঝখানে থাকে অন্তত দুই ঘন্টার বিরতি। বিরতির সময়টা গ্যালারি তে অলস ভাবে কাটাতে না পেরে বেশির ভাগ দর্শকই তখন মাঠ থেকে বেরিয়ে যান!

এ ব্যাপারে দায়িত্বশীল একজন ডিএফএ কর্মকর্তা বলেন “একেবারে টিকেটের দাম পঞ্চাশ টাকা না রেখে কম করা উচিত ছিল কিংবা দুটি ম্যাচের জন্য আলাদা ভাবে তা বিক্রি করা যেত ! তাতে দশর্ক মাঠে প্যাক হওয়ার আশংকা থাকত না, টিকেট মুল্য কম হলে স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে দর্শকও গ্যালারিতে থাকতে পারতো!”

খাঁ খাঁ করা গ্যালারি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে ডিএফএ সাধারন সম্পাদক ও বাফুফে ফুটবল কমিটির সদস্য মাহি উদ্দিন আহমেদ সেলিম জানান, দর্শক মাঠে না আসার দায়ভার অনেকটাই স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের উপরেই বর্তায় বেশি, এ ব্যাপারে ডিএফএ এর কোন দায় নেই! তিনি জানান, জেবি উদ্বোধনী কনসার্ট এর জন্য যতটুকু প্রচার করেছে তার সিকিভাগও করেনি ফুটবলের প্রচারের জন্য! তবে খেলার আগে মাত্র দু’দিন সময় পেয়ে শহরে ব্যাপক প্রচার চালিয়েছেন বলে দাবি করেন তিনি !

সিলেটে হওয়া সবগুলো বিপিএলেরর ম্যাচ দেখা আম্বরখানার বাসিন্দা বশির হাসান বলেন, এত উন্নত মানের ফুটবল ম্যাচ সিলেটের দর্শক আগে দেখেন নি… এখানে যেমন এক ম্যাচে ৯ গোল হয়েছে তেমনি ১-১ গোলে ড্র হওয়া ম্যাচেও হয়েছে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতা! তিনি বলেন, স্কুলের কোমল মতি শিক্ষার্থী ও একাডেমিতে খেলা ফুটবলার দের সৌজন্য টিকেট দিলে গ্যালারিও ভরা লাগতো সাথে সাথে উচ্চ মানের খেলা দেখে তারা অনেক জিনিস শিখতেও পারতো। সব মিলিয়ে দর্শক না হওয়ায় পরবর্তিতে আরো বড় কোন আয়োজনের ক্ষেত্রে সিলেট পিছিয়ে পড়তে পারে বলেও আশংকা প্রকাশ করেন তিনি!

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: