সর্বশেষ আপডেট : ৭ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

২৪ ঘণ্টায় একজনেরও বেশি শিশু হত্যার শিকার হচ্ছে

th7ab8mnlkffনিউজ ডেস্ক : ২৪ ঘণ্টায় একজনেরও বেশি শিশু হত্যার শিকার হচ্ছে বাংলাদেশে। মানবাধিকার সংগঠন আইন ও সালিশ কেন্দ্রের (আসক) এই হিসাব অনুযায়ী চলতি বছরের নয় মাসে (জানুায়ারি-সেপ্টেম্বর) সারাদেশে ৩৬৬জন শিশু হত্যার শিকার হয়েছে।

আসকের প্রতিবেদন অনুসারে- সবচেয়ে বেশি হত্যার শিকার যারা হয়েছে, তাদের বয়স ১৩ থেকে ১৮, এ সংখ্যা ১৩৩। এরপর যথাক্রমে ০-৬ বছর ১১০ জন, ৭-১২ বছর ১০২ জন। বয়স উল্লেখ নেই ২১ শিশুর। এসব ঘটনায় মামলা হয়েছে ১৪৭টি।
বিভিন্ন গণমাধ্যম ও আসক-এর সংগৃহীত তথ্য দিয়ে এই পরিসংখ্যান তৈরি করা হয়েছে। এতে দেখা গেছে, ১৩-১৮ বছরের মধ্যে যারা হত্যার শিকার হয়েছে, তাদের মধ্যে বেশিরভাগকে হত্যা করা হয়েছে শারীরিক নির্যাতনের পর, এই সংখ্যা ২৫। ৭-১২ বছর বয়সীদের বেশিরভাগ হত্যার শিকার হয়েছে পারিবারিক নির্যাতনের পর, সংখ্যা ১৯। ০-৬ বছর বয়সীদের মধ্যে হত্যার শিকারও বেশিরভাগকেই হত্যা করা হয়েছে- পারিবারিক নির্যাতনের পর।

শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে ৭৫৪টি। এর মধ্যে শিক্ষকের হাতে শিক্ষার্থী নির্যাতনের ঘটনাই সবচেয়ে বেশি, ২৮৩ জন। নির্যাতিতদের মধ্যে ১৩-১৮ বছর বয়সীর সংখ্যা বেশি, ২৯৩ জন। ৭-১২ বছরের ২৫৫, ০-৬ বছর বয়সের ৫৩ এবং বয়স উল্লেখ নেই এমন নির্যাতিতদের সংখ্যা ১৫৪ জন। এসব ঘটনায় মামলা হয়েছে ১৮৪টি।

অন্যদিকে, এই নয় মাসেই আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে নিহত হয়েছেন ১৫০ জন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি নিহত হয়েছে পুলিশের হাতে, ৮৩জন। কারা হেফাজতে মৃত্যু হয়েছে ৫৭ জনের। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি হাজতি, ৩৪জন। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের হাজতি ও কয়েদি- উভয়ের মৃত্যুর সংখ্যাই বেশি, যথাক্রমে ২১ ও ১৫।
রাজনৈতিক সংঘাত ঘটেছে ৮৫৫টি। এসব ঘটনায় আহত ১০ হাজার ৮৬৩ জন ও নিহত ১৬৮জন। নিহতদের মধ্যে আওয়ামী লীগেরই ৭৪ জন এবং সাধারণ মানুষ ৮৪জন।
হিন্দু সম্প্রদায়ের বাসস্থান ভাঙচুর ও অগ্নিকা-ের ঘটনা ৫৮, প্রতিমা-পূজাম-প-মন্দির ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগের ঘটনা ৭৯, জমি বসতবাড়ি দখলের ঘটনা ৫টি। নির্যাতনে আহতের সংখ্যা ২৭ ও নিহত ৭। সাংবাদিক নির্যাতনের সংখ্যা ৯৫। সীমান্তে সংঘাতের শিকার হয়েছেন ৯৩জন। এরমধ্যে মারা গেছে ২৮জন।

সারাদেশে গণপিটুনিতে মারা গেছে ৩৪ জন। এসিড নিক্ষেপের ঘটনা ২৮টি, মামলা হয়েছে নয়টি, মৃত্যু হয়েছে একজনের। সালিশ ও ফতোয়ার মাধ্যমে নারী নির্যাতনের ঘটনা আটটি। গৃহপরিচারিকা নির্যাতনের ঘটনা ৪৯টি। এর মধ্যে ১৩-১৮ বছর বয়সীরাই বেশি, ২২জন। যৌতুককে কেন্দ্র করে নির্যাতনের ঘটনা ১৯৩টি। পারিবারিক নির্যাতনের ঘটনা ৩০৫টি। যৌন হয়রানি ও সহিংসতার ঘটনা ১৯৩টি। ধর্ষণের ঘটনা ৫১২টি। এর মধ্যে দুটি ঘটনা পুলিশ কর্তৃক ধর্ষণ।-আমাদের সময়.কম

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: