সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৪৩ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নেতাকর্মীদের চোখে হান্নান শাহ

154542_1নিউজ ডেস্ক:: সবাইকে কাদিয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব) আ স ম হান্নান শাহ। তার মৃত্যুর মাধ্যমে বিএনপি যেন একটা বড় অভিভাবককে হারালো। ত্যাগী এই নেতার মৃত্যুতে বিএনপিতে বইছে এখন শোকের ছায়া। বিশিষ্ট এ নেতার বিয়োগ জাতির কাছে চরম ক্ষতি বলেও মনে করছেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গরা।

বিএনপির দুঃসময়ে কাণ্ডারি এই নেতার সাহসিক ভূমিকার কথায় যেন বারবার সামনে চলে আসছে। বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে বিএনপি নেতাদের আত্মগোপন কৌশল নিয়ে রাজনীতির মাঠে যখন তুমুল সমালোচনায় তখনো ডার্কসাইড থেকে দলের নেতৃত্বের হাল ধরেছেন তিনি।

বিশেষ করে ১/১১ তে তার নেতৃত্বে যেভাবে জিয়া পরিবারকে রক্ষা করা হয়েছিল তা বিএনপি কখনো ভুলবে না।
স্বশস্ত্র বাহিনী থেকে বিএনপির রাজনীতিতে আসা এ নেতা রাজনীতিতে সবসময় ছিলেন উর্বর। কারো রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে কখনো আন্দোলন সংগ্রম থেকে নিজেকে গুটিয়ে রাখেননি। অকুতোভয় এ নেতার মৃত্যুতে যে ক্ষতি হয়েছে তা কখনোই পূরণ হওয়ার নয় বলেও জানান দলের নেতাকর্মীরা।

বিএনপি প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সঙ্গে সেনাবাহিনীতে কাজ করার অভিজ্ঞতাসম্পন্ন এ নেতার মৃত্যু যেন বিএনপিতে ভয়াবহ শূন্যতার সৃষ্টি করবে বলেও মনে করেন অনেকে।

হান্নান শাহের মৃত্যুতে দলের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে উল্লেখ করে দলের আরেক স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক সেনা প্রধান লে. জে. (অব) মাহবুবুর রহমান বলেছেন, হান্নান শাহ দীর্ঘদিন আমার সহযোদ্ধা ছিলেন। তিনি নির্ভিক সৈনিক ছিলেন। তার মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। তিনি তার কর্মের মাধ্যমে আমাদের কাছে অমর হয়ে থাকবে। আমরা সবাই মিলে তার জন্য দোয়া করবো।

শোকাহত পরিবারকে সমবেদনা জানিয়ে দলের ভাইস চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন চৌধুরী বলেন, হান্নান শাহের মৃত্যুতে আমরা মাধ্যমে বড় মাপের একজন অভিভাবক হারালাম। তিনি সেনাবাহিনীতে এবং বিএনপিতে শত্রুকে কখনো ভয় পেয়ে পিছপা হননি। তিনি অত্যন্ত সাহসী এবং ন্যায় পরায়ন একজন নেতা ছিলেন।

বিএনপির ঢাকা বিভাগীর সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল বলেন, হান্নান শাহের মতো সাহসী বীর সবসময় জন্ম নেয় না। তার রক্তেই ছিল জাতীয়তাবাদ আর বিদ্রোহের মানসিকতা। দলের জন্য নিবেদিত এ নেতার মৃত্যুতে অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে।

বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাসের মোহাম্মদ রহমতুল্লাহ বলেন, তৃণমূলের গণতান্ত্রিক এক জাতীয়তাবাদ লালনকারী অসংখ্য নেতা তাদের একজন বিশ্বস্ত অভিভাবককে হারিয়েছে। হান্নান শাহ’র মতো একজন সাহসী অভিভাবক যুগে যুগে জন্মায় না শতকে একবার জন্মগ্রহন করে। বিশেষ করে এখন যে গণতন্ত্র হীন বাংলাদেশ চলছে এই সময়ে তার মতো একজন গণতান্ত্রীক যোদ্ধার খুবই প্রয়োজন ছিল। তার মৃত্যুতে আমরা হারিয়েছি আমাদের একজন নেতা কে আর দেশ হারিয়েছে একজন গণতন্ত্রকামী দেশ প্রেমিক নেতাকে।

জাতীয়তাবাদী দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন জানান, আমি শুধু একজন বিএনপি কর্মী হিসাবে নয়, আমার ব্যক্তিগত অভিমত থেকে বলছি হান্নান শাহ’র কাছে আমরা চির ঋণী হয়ে থাকবো। বিশেষ করে তিনি ১/১১ এর সময় যেভাবে জিয়া পরিবারকে রক্ষায় বলিষ্ঠ নেতৃত্ব দিয়েছিলেন তা শুধুমাত্র বিএনপির কাছে নয় পুরো জাতির কাছে তিনি তার কর্মের জন্য স্বরনীয় হয়ে থাকবেন। তিনি যদি তখন (১/১১) নেতৃত্ব না দিতেন তাহলে জিয়া পরিবারকে রক্ষা করা বড় একটা চেলেঞ্জ হয়ে যেত। হান্নান শাহকে হারানোর মাধ্যমে আমরা আমাদের একজন বড় অভিভাবককে হারিয়েছি। এ ক্ষতি কখনো পূরণ হওয়ার নয়।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার ভোরে সিঙ্গাপুরের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হান্নান শাহ মৃত্যুবরণ করেন। প্রাক্তন এই সেনা কর্মকর্তা চাকরি জীবন শেষে বিএনপির রাজনীতিতে প্রবেশ করেন। ২০০১ সালে বিএনপির শাসনামলে পাট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পান তিনি। বর্তমানে তিনি বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির এই সদস্য চারদলীয় জোট সরকারের মন্ত্রী ও সংসদ সদস্য ছিলেন।

মৃত্যুকালে হান্নান শাহের স্ত্রী নাহিদ হান্নান, দুই ছেলে শাহ রেজাউল হান্নান, শাহ রিয়াজুল হান্নান ও এক মেয়ে শারমিন হান্নান সুমিকে রেখে গেছেন। সূত্র: আরটিএনএন

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: