সর্বশেষ আপডেট : ২২ মিনিট ৩৭ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কাশ্মীর যেন এক মৃত্যুপুরী

154119_1আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারত শাসিত কাশ্মীরে যা ঘটছে তা মূলত ভারতের ব্যর্থ গণতন্ত্রের ফসল। কাশ্মীরের জনগণ তাদের রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক ও সামাজিক মৌলিক অধিকার আদায়ের জন্য দীর্ঘ ৭০ বছর ধরে আন্দোলন করলেও ভারতের তথাকথিত গণতান্ত্রিক সরকারগুলো তাদের সেই ন্যায্য দাবী মানতে পারেনি।

কাশ্মীরি জনগণকে ভারতের সংবিধান অনুযায়ী যথাযথ অধিকার দেয়ার বদলে নয়াদিল্লি কাশ্মীরকে অস্ত্রের জোরে নিজেদের উপনিবেশে পরিণত করেছে। নিজ ভূখণ্ড বলে দাবীকৃত কাশ্মীরে ৭ লক্ষাধিক অস্ত্রধারী সেনা মোতায়েন করে ভারত এটাই প্রমাণ করেছে।

ভারতীয় সাংবাদিক সন্দিপ বামজাই সম্প্রতি ভারত শাসিত কাশ্মীরের বর্তমান চিত্র তার একটি কলামে তুলে ধরেছেন। কলামে বলা হয়,রাজধানী শ্রীনগরের প্রাণকেন্দ্রে কনসেনট্রেশন ক্যাম্পের মতো বিশাল সেনা ঘাঁটি নির্মাণ করা হয়েছে। শহরের ভেতরে এবং সীমান্ত সংলগ্ন এলাকায় কমপক্ষে ৩ লক্ষ সশস্ত্র সেনা টহলরত।
শহরের ভেতরে প্রতিটি সড়কে-রাস্তায় ভারতীয় সেনাবাহিনীর টহল চলছে। পুরো কাশ্মীর উপত্যকা জুড়ে কমপক্ষে ৭ লক্ষ সেনা অবস্থান করছে। এলাকা থমথমে এবং রাস্তাঘাট জনশূণ্য।

কিন্তু কাশ্মীরের বর্তমান চিত্র আরো ভয়াবহ। কাশ্মীরে গত ৫৮ দিন ধরে চলা সংঘর্ষ এক দশকের মধ্যে সবচেয়ে প্রাণঘাতী। ভারতীয় বাহিনীর সাথে স্থানীয় কাশ্মীরিদের ওই সংঘর্ষে এ পর্যন্ত ৮৭ জন নিহত হয়েছে যাদের অধিকাংশই তরুণ এবং আহত হয়েছে প্রায় ৮,০০০ বেসামরিক লোক।

এখনো সেখানে কার্ফ্যু জারি রয়েছে এবং মানুষের স্বাভাবিক জীবনযাত্রা মারাত্মকভাবে ব্যাহত হওয়ায় মানবিক বিপর্যয় সৃষ্টি হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

ভারতীয় বাহিনীর অত্যাচার এখানেই শেষ নয়। তারা শহরের আবাসিক এলাকার বাড়িগুলোতেও হামলা চালায়। বাসিন্দাদের মারধর করে এবং ভাংচুর-লুটপাট চালায়।

ওই এলাকার প্রত্যেকটি বাড়ির জানালার কাচ ভাঙ্গা। ভারতীয় বাহিনীর গুলিতে এসব বাড়ির গ্লাস ভেঙ্গেছে। ভারতীয় সেনাদের আগ্রাসন থেকে রক্ষা পেতে বাসিন্দারা এখন জানালায় কম্বল দিয়ে রেখেছেন।

কাশ্মীরে বয়ে চলেছে রক্তবন্যা। পৃথিবীর ভূ-স্বর্গ খ্যাত কাশ্মীরে এখন মৃত্যুর গন্ধ। স্বজনহারাদের শোকের মাতমে ভারী হয়ে উঠেছে কাশ্মীরের বাতাস। এই রক্তস্রোত আর কত যুগ ধরে কাশ্মীরিদের দেখতে হবে তার উত্তর যেন কারো জানা নেই। ভারতীয়দের আগ্রাসন কি বন্ধ হবে কোনো দিন?

সূত্র: পাকিস্তান ভিত্তিক এক্সপ্রেস ট্রিবিউন

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: