সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আসুন অন্যরকম লড়াই করি, দেখি কে জেতে: মোদি

full_920820992_1474726889আন্তর্জাতিক ডেস্ক: উরির সেনা ছাউনিতে জঙ্গি হামলার পর প্রথম জনসভা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কোঝিকোড়েতে বিজেপির জাতীয় পরিষদ বৈঠকে মোদি ছাড়াও ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং, অমিত শাহ প্রমুখরা। নিজের ভাষণের আগে মালয়ালম ভাষায় মোদি উপস্থিত জনতাকে স্বাগত জানান। এরপরে কেরেলাকে ‘‌ভগবানের নিজের দেশ’‌ উল্লেখ করেন।

নাম না করেই বিজেপির জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকে আগাগোড়া পাকিস্তানকে আক্রমণ করে গেলেন নরেন্দ্র মোদী।

মোদী বলেন, ‘আমাদের প্রতিবেশী সন্ত্রাস রফতানি করছে। আমাদের ১৮ জওয়ানকে মেরেছে’। এরাই এশিয়ার একমাত্র দেশ যারা বাংলাদেশ থেকে অাফগানিস্তান সবত্র সন্ত্রাস ছড়াচ্ছে। এর পরই পাক জঙ্গিদের উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘উরি হামলায় যারা জড়িত তারা জেনে রাখুন এই ক্ষত ভারত কোনও দিন ভুলবে না’।

‘বিশ্বের কোথাও সন্ত্রাস বাদের খবর হলে দেখবেন, সেখানে হামলাকরীরা হয় পাকিস্তানি, নয়ত দেখবেন ওসামা বিন লাদেনের মতোই তারা পাকিস্তানে রয়েছে।’ ভারত যুদ্ধের জন্য তৈরি উল্লেখ করে বলেন, পাকিস্তানকে আন্তর্জাতিক দুনিয়ায় একঘরে করার চেষ্টা ভারত চালিয়ে যাবে।

‘পাকিস্তানকে লড়াইয়ের চ্যালেঞ্জ দিয়ে মোদি বলেন, আসুন দেখি দেশে গরীবী হটানোর লড়াইয়ে কে জেতে। ভারত না পাকিস্তান‌’!‌‌

‘হিন্দুস্তানেও প্রসূতি মারা যায়। সদ্যোজাত শিশুও মারা যায়।পাকিস্তানেও মারা যায়। সেই মৃত্যু রোখার লড়াই করি। দেখি, কে জেতে? গরিবি সরানোর লড়াইয়ে আমি নিশ্চিত, আমরাই আগে জিতব।এক সময় পশ্চিম বঙ্গ, পূর্ব বঙ্গ সবই আপনাদের অঙ্গ ছিল। আপনারা কিছুই সামলাতে পারেননি। আর এখন কাশ্মীরের কথা বলছেন! যা আপনাদের সঙ্গে আছে, সেটাই আগে সামলে দেখান।ভারত আর পাকিস্তান, দু’টি দেশ একই সঙ্গে স্বাধীন হয়েছে। আজ হিন্দুস্তান সফ্‌টওয়্যার এক্সপোর্ট করে আর পাকিস্তান টেররিস্ট এক্সপোর্ট করে।’

মোদী বললেন, প্রতিবেশী দেশের রাজনৈতিক নেতাদের জোর গলায় কথা বলার শক্তি হারিয়ে গিয়েছে। তাঁরা জঙ্গিদের কথায় ওঠা-বসা করেন। আমি ওঁদের বলতে চাই, ১৯৪৭ সালের আগে আপনাদের পূর্ব পুরুষও এই হিন্দুস্তানের মাটিকেই প্রণাম করতেন।

মোদী বললেন, উরিতে আমাদের প্রতিবেশী দেশ আমাদের ১৮ জন জওয়ানকে খতম করেছে। কয়েক মাসের মধ্যে মোট ১৭ বার এই দেশ আমাদের ওপর হামলা চালিয়েছে। সীমান্ত পেরিয়ে তারা আমাদের দেশে বেশ কয়েক বার ঢুকেও পড়েছে। কিন্তু আমাদের সাহসী সেনারা তাদের সকলকেই উপযুক্ত জবাব দিয়েছে। শাস্তি দিয়েছে। ১১০ জন জঙ্গিকে খতম করে দিয়েছে। ওই ১৭ বার হামলার হাত থেকে আমাদের বাঁচিয়েছে আমাদের বীর সেনারা। দেশের মানুষকে বাঁচাতে গিয়ে তারা লড়েছে। আমাদের গর্ব এই সেনারা। জওয়ানদের শক্তিই দেশের মনোবল। এটাই আমাদের তাকত। আমাদের শক্তি। ওই ১৭টি হামলার ঘটনায় যদি সেনারা পাশে না থাকত, আমরা নিজেদের রক্ষা করতে পারতাম না।

‘সন্ত্রাসবাদ মানবতার দুশমন। গোটা বিশ্বের মানবতাবাদীদের সন্ত্রাসবাদীদের বিরুদ্ধে জোট বেঁধে দাঁড়াতে হবে।’

‘সন্ত্রাসবাদের চেহারাটা কেরলের মানুষ জানেন। সন্ত্রাসবাদীরা কেরলের মহিলাদের উঠিয়ে নিয়ে গিয়েছিল। আমরা কূটনৈতিক ভাবে তাদের ফেরাতে পেরেছিলাম।’ এই এশিয়ায় এমন একটি দেশ রয়েছে, যাদের জন্য গোটা এশিয়া রক্তরাজ্য হয়ে উঠছে! সন্ত্রাসবাদ নিরীহ লোককে খুন করছে। এশিয়ার বিভিন্ন দেশে আতঙ্কের পরিস্থিতি তৈরি করেছে।’

মোদী বললেন, আমি কেরলের বিজেপি নেতাদের বলতে চাই, আপনারা যে তপস্যা করেছেন, যে বলিদান দিয়েছেন নিজেদের, তা ব্যর্থ হবে না। কেরলেও বিজেপি ক্ষমতায় আসবে। এটা আমি স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি। মোদীর কথায় উঠে আসে মহাত্মা গাঁধী আর দীনদয়াল উপাধ্যায়ের কথাও।

উরি হামলা নিয়ে শুক্রবারই বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব বলেছিলেন, “দাঁতের বদলে গোটা চোয়ালটাই খুলে নেওয়া হবে।” উরি নিয়ে ধেয়ে আসা প্রশ্নবাণের মুখে প্রবল অস্বস্তির মধ্যেও রাম মাধবকে দলের দুর্গ সামলাতে হয়েছে। তিনি বলেন, কূটনৈতিক স্তরে অনেক পদক্ষেপ হয়েছে এব‌ং আরও হবে। তবে পাকিস্তানকে জবাব দিতে কূটনীতি ছাড়া আর কোনও পদক্ষেপের হদিস দিতে পারেননি তিনি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: