সর্বশেষ আপডেট : ৪১ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নবীগঞ্জে কলেজ ছাত্রী তন্মী রায় হত্যা মামলায় তন্মীর বান্ধবীসহ ৩ জনকে জিজ্ঞাসাবাদ

unnamedনবীগঞ্জ প্রতিনিধি:: নবীগঞ্জের বরাক নদী থেকে হাত-পা বাধা বস্তাবন্ধি অবস্থায় কলেজ ছাত্রী তন্মী রায় (১৮) হত্যা মামলায় নিহত তন্মীর বান্ধবী কান্তা রায়, আইসিটি সেন্টারের প্রিন্সিপাল ফয়সল ও প্রশিক্ষিকা নাজনীন আক্তার’কে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে তাদের থানায় খবর দিয়ে এনে তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে, প্রয়োজনে পুণরায় জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ডাকা হবে বিদায় করা হয়। পুলিশ ওই ৩ জনেরও মোবাইল কল লিষ্ট সংগ্রহ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে। এদের জিজ্ঞাসাবাদকালে উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আ.স.ম সামছুর রহমান ভুইয়া, থানার অফিসার ইনর্চাজ মোঃ আব্দুল বাতেন খান, ওসি (তদন্ত) কামরুল হাসান ও তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মোবারক হোসেন।

ওই দিন দুপুরে পুলিশ লাশের সাথে বস্তায় ব্যবহৃত ছামিন কোং ইট জয়নগর এলাকায় সৈয়দ জাহির মিয়ার বাড়ির নির্মাণ কাজের ব্যবহার কালে জব্দ করে পুলিশ। এদিকে নির্মম এ হত্যাকান্ডের সংবাদ গুলো দৈনিক হবিগঞ্জ সময় ও হবিগঞ্জ এক্সপ্রেসসহ স্থানীয় পত্রিকায় ফলাও করে প্রকাশিত হলে দুপুরের আগেই পত্রিকা শেষ হয়ে যায় বলে জানিয়েছেন হকার সমিতি।

এছাড়া গতকাল বৃহস্পতিবারের প্রকাশিত সংবাদের সাথে রানু রায়’র ছবির পরিবর্তে ভুল বশত রানু দাশ নামের অন্য একটি যুবকের ছবি ছাপা হয়েছে। যা তন্মীর রায়ের প্রেমিক রানু রায়ের ছবির সাথে কোন মিল বা সম্পর্ক নেই। আজ প্রকৃত রানু রায়ের ছবি পাঠকের স্বার্থে দেয়া হলো। অন্যদিকে পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে থানায় নিয়ে আসা তন্মীর বান্ধবীসহ ৩ জনের কাছ থেকে কোন তথ্য পাওয়া গেছে কি না মামলার তদন্তের স্বার্থে তা জানাতে অপারকতা জানিয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তা মোবারক হোসেন।

তিনি বলেন, অপরাধীদের গ্রেফতারে পুলিশ সর্বাত্মক চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। নিহত কলেজ ছাত্রী তন্মীর লাশ উদ্ধার এবং মামলা দায়েরের পর থেকেই পুলিশ ঘটনাস্থল এবং রানু রায়ের বাড়ীর বাড়িসহ আশপাশের সম্ভাব্য ঘরবাড়িতে তল্লাশী অব্যাহত রয়েছে। ঘটনার তদন্তে হবিগঞ্জ থেকে ডিবি পুলিশও মাঠে কাজ করছে বলে জানাগেছে। এ ঘটনার সাথে আইসিটি কম্পিউটার সেন্টারের প্রিন্সিপালের সাথে তন্মীর কোন সম্পর্ক ছিল না, তন্মী নিখোজের দিন প্রেমিক রানু রায় ফয়সলের মোবাইলে ফোন দেয়ার ঘটনাটি যাচাই করার জন্য পদক্ষেপ গ্রহন করা হচ্ছে বলে জানাগেছে।

একটি সুত্রে দাবী করেছে, তন্মী রায় নিখোজ হওয়ার দিন বিকালে প্রেমিক রানু রায় তন্মীর বান্ধবী কান্তা রায়ের সাথে যোগাযোগ করে তন্মীর খোজ খবর নেয়। এ সময় রানু রায় কম্পিউটার সেন্টারের প্রিন্সিপাল ফয়সলের মোবাইল নম্বারটিও সংগ্রহ করে। তবে ফয়সল আহমদ দাবী করেছেন, রানু রায়ের সাথে তার কোন প্রকার যোগাযোগ বা ফোনে কথা হয়নি।

স্থানীয় ও পুলিশ সুত্রে জানাযায়, গত শনিবার বেলা দেড় টার দিকে তন্মী রায় ইউ.কে আই,সিটি কম্পিউটার ট্রেনিং সেন্টারে যাওয়ার জন্য বাসা থেকে বেড় হয়ে আর ফিরেনি।
এ ব্যপারে নবীগঞ্জ থানায় সাধারণ ডায়েরী করার ৩ দিনের মাথায় উক্ত কলেজ ছাত্রী তন্মী রায়ের বস্তাবন্দি লাশ নদী থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। হত্যাকান্ড ঘটনার ৩ দিন অতিবাহিত হলেও কাউকে গ্রেফতারের কোন খবর পাওয়া যায় নি। তবে পুলিশের দাবী জড়িতদের গ্রেফতারের জোর তৎপরতা চলছে। এতে প্রযুক্তিও ব্যবহার করা হচ্ছে বলে জানাগেছে।

 

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: