সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ছোট থেকেই নেশা করতো বাবাকে পুড়িয়ে মারা মুগ্ধ

full_653567620_1474453136নিউজ ডেস্ক: বাবার কাছে একটি নতুন মডেলের মোটরসাইকেল চেয়েছিলো। কিনে না দেওয়ায় ছেলে ফারদিন হুদা মুগ্ধ(১৭) বাবার গায়ে আগুন দেয়।এতে বাবা রফিকুল হুদা(৪৮) মারা গেছেন।

ফরিদপুরে পিতা রফিকুল হুদাকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যাকারী ফারদিন হুদা মুগ্ধ মাদকাসক্ত ছিলো দাবি করেছে পারিবারিক সূত্র।

রফিকুল হুদার পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ফরিদপুরের ধর্ণাঢ্য পরিবারগুলোর মধ্যে একটি ছিলো হুদা পরিবার। রফিকুল হুদা নিজেও একজন ঠিকাদার ও সেনেটারি সামগ্রীর ব্যবসায়ী। আর্থিক দিক থেকে রফিকুল হুদার অবস্থা যথেষ্ট ভালো ছিলো। ছেলে কিছু চাওয়ার আগেই পরম মমতায় বাবা তা সামনে হাজির করতেন। কিন্তু কখন যে ছেলে বখে গেছে তা বুঝতে পারেননি তিনি। কিন্তু যখন বুঝতে পেরেছেন ততক্ষণে সময় পেরিয়ে গেছে অনেক।

জানা গেছে, স্কুল জীবন থেকেই নানা ধরনের বাজে নেশায় আসক্ত হয়ে পড়ে মুগ্ধ। সর্বশেষ ১৫ সেপ্টেম্বর বাবার কাছে নতুন মডেলের মোটরসাইকেল চাইলে রফিকুল হুদা তা মানা করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বাবা-মার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেন মুগ্ধ।

রফিকুল হুদার বন্ধু পুলিশ কর্মকর্তা গোলাম আম্বিয়া বলেন, আমি আর পিন্টু (রফিকুল হুদা) একসাথে পড়ালেখা করেছি। খুবই ভালো মানুষ ছিলো সে। শুনেছিলাম তার ছেলেটা নাকি বখে গিয়েছিলো। যেদিন ঘটনা ঘটে সেদিন আমি ফরিদপুরেই ছিলাম। অন্য এক বন্ধুর ফোন পাই যে পিন্টুর ছেলে পিন্টুর গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়েছে। ছুটে আসি হাসপাতালে। সৎ সঙ্গে স্বর্গবাস আর অসৎ সঙ্গে সর্বনাশ। সুস্থ অবস্থায় কোনো মানুষ তার জন্মদাতা পিতার গায়ে আগুন ধরিয়ে দিতে পারে না।

রফিকুল হুদা ফরিদপুর জেলা শহরের কমলাপুর ডিআইবি বটতলা এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। রফিকুল হুদা সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) এটিএম শামসুল হুদার ছোট ভাই।

রফিকুল হুদার ভগ্নিপতি আকরাম উদ্দিন আহমেদ জানান, এ বছর ফরিদপুর জেলা স্কুল থেকে এসএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ মুগ্ধ তার বাবার কাছে নতুন মডেলের একটি মোটরসাইকেল দাবি করে। কিন্তু মোটরসাইকেল কিনে দিতে অস্বীকৃতি জানালে সে বাবার ওপর ক্ষুব্ধ হয়। এক পর্যায়ে মুগ্ধ ঘরের মধ্যে পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয় মা-বাবার গায়ে। এতে রফিকুল হুদার শরীরের বিভিন্ন অংশ এবং মা সিলভিয়া হুদার পা কিছুটা পুড়ে যায়। পুড়ে যায় মুগ্ধর নিজের পায়ের কিছু অংশও।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: