সর্বশেষ আপডেট : ১ মিনিট ৫৯ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

চীনে গাড়িতে ধাক্কা খেলে আহতকে মেরে ফেলাই রীতি!

full_614334502_1474269710অনলাইন ডেস্ক: চীনের হালের রীতি হল, কোনো গাড়ির ধাক্কায় কেউ আহত হলে আহত ব্যক্তির মৃত্যু নিশ্চিত করা। কি ভয়ঙ্কর কথা তাইনা! বাস্তবেও তেমনটাই ঘটছে সেখানে।

ফলে চীনের রাস্তায় চলা পথচারীদের এখন শুধু গাড়ির ধাক্কা থেকে নিজেকে বাঁচানোর ব্যাপারে নজর রাখলেই চলবে না। এটাও খেয়াল রাখতে হবে যে, তিনি যেন কোনোভাবেই ড্রাইভারের গাড়ির সামনে এসে না পড়েন‌।

সাম্প্রতিককালে চীনে এমন দু’টি পৃথক ঘটনা সামনে এসেছে যেখানে সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, গাড়ির ধাক্কায় কেউ আহত হওয়ার পর গাড়িচালক বারবার গাড়ির আঘাতে সচেতনভাবে হত্যা করছেন আহত পথচারীকে। একটি ঘটনায় ঝাও জিয়াও চেন নামের এক ব্যক্তি ৬৪ বছরের এক বৃদ্ধাকে পরপর পাঁচ বার গাড়ির চাকায় পিষ্ট করেছেন শুধু তার মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার জন্য।

কিন্তু কেন এই অদ্ভুত অমানবিক রীতি? আসলে চীনের আইন অনুযায়ী, দুর্ঘটনায় যদি কেউ আহত হন এবং কোর্টে গাড়িচালক দোষী সাব্যস্ত হন, তাহলে আহত ব্যক্তিকে আমৃত্যু ক্ষতিপূরণ দিয়ে যেতে হয় দায়ী ব্যক্তিকে। সেই জায়গায় গাড়ির আঘাতে যদি কেউ মারা যান তাহলে ক্ষতিপূরণ দিতে হয় এককালীন। আর গাড়ির ধাক্কা যদি ইচ্ছাকৃত বলে কোর্টে প্রমাণিত না হয়, তাহলে অন্য কোনো শাস্তিরও আশঙ্কা থাকছে না।

কাজেই দুর্ঘটনায় আহত ব্যক্তিকে মেরে ফেলাই গাড়িচালকের পক্ষে আর্থিক দিক থেকে লাভজনক।

কিন্তু তাহলে মানবিকতা বলে কি কিছুই নেই? কিছু অর্থ সাশ্রয়ের লোভে মানুষ অন্য মানুষকে জেনে-শুনে খুন করবে? এ প্রেক্ষিত্রে চীন প্রশাসনের বক্তব্য, সাধারণ মানুষ যাতে গাড়ি চালানোর সময়ে আরও সতর্ক হন, তা নিশ্চিত করতেই এই নিয়ম। কিন্তু চীনাদের এমন বর্বর নিয়ম কি সভ্য জগতে মেনে নেয়ার মত?

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: