সর্বশেষ আপডেট : ৩৬ মিনিট ৪২ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

রাগীব আলীসহ পলাতকদের বিরুদ্ধে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের নির্দেশ

ragibali20sep16স্টাফ রিপোর্টার ::
তারাপুর চা-বাগানের হাজার কোটি টাকার দেবোত্তর সম্পত্তি জালিয়াতির মাধ্যমে আত্মসাতের আলোচিত দুটি মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পর ভারতে পালিয়ে যাওয়া শিল্পপতি রাগীব আলী ও তাঁর ছেলে-মেয়েসহ পলাতকদের বিরুদ্ধে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার দুপুরে সিলেটের মুখ্য মহানগর হাকিম সাইফুজ্জামান হিরু এ আদেশ দেন।
এদিকে, ভূমিমন্ত্রণালয়ের স্মারকপত্র জালিয়াতি করে তারাপুর চা-বাগান দখলের মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি ও তারাপুর চা-বাগানের সেবায়েত পংকজ কুমার গুপ্তকে স্থায়ী জামিন দিয়েছেন একই আদালতের বিচারক।
আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে মামলা শুনানি করেন মহানগর মুখ্য হাকিম আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) মাহফুজুর রহমান। তিনি দৈনিক সিলেটের ডাকের সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি শিল্পপতি রাগীব আলী ও তাঁর ছেলে-মেয়েসহ পলাতকদের বিরুদ্ধে পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি প্রকাশে আদালতের নির্দেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
উল্লেখ্য, গত ১০ আগস্ট রাগীব আলী, তাঁর পুত্র-কন্যা, জামাতাসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পরদিন থেকে আত্মগোপনে চলে যায় রাগীব আলী পরিবার। এরপর কোনো এক সময়ে সিলেটের জকিগঞ্জ সীমান্ত দিয়ে তারা ভারত পালিয়ে যান। রাগীব আলীর ভারতে পালিয়ে যাওয়ার তথ্যটি আগেই প্রশাসনের দায়িত্বশীলরা নিশ্চিত করেছেন।
৪২২ দশমিক ৯৬ একর জায়গায় গড়ে ওঠা তারাপুর চা-বাগান পুরোটাই দেবোত্তর সম্পত্তি। ১৯৯০ সালে ভুয়া সেবায়েত সাজিয়ে বাগানটির দখল নেন রাগীব আলী। নিজের নামে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালসহ ৩৩৭ টি প্লট তৈরি করে বিক্রি করে দেন রাগীব আলী। এসব প্লটে গড়ে উঠেছে বহুতল আবাসন ও বিপণিবিতান।
গত ৩১ আগস্ট তারাপুর চা বাগানের দেবোত্তর সম্পত্তিতে অবৈধভাবে গড়ে উঠা ৭১৫ টি স্থাপনা সেবায়েত পঙ্কজ কুমার গুপ্তকে বুঝিয়ে দিয়েছে প্রশাসন। উচ্চ আদালতের দেওয়া রায়ের প্রেক্ষিতে সিলেট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মীর মো. মাহবুবুর রহমান সেবায়েতকে স্থাপনাগুলো বুঝিয়ে দেন।
এরও আগে গত ১৯ জানুয়ারি প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে হাইকোর্টের আপিল বিভাগের এক বেঞ্চ তারাপুর চা-বাগান দখল করে গড়ে ওঠা সব স্থাপনা ছয় মাসের মধ্যে সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দেন। রায় বাস্তবায়ন করতে সিলেটের জেলা প্রশাসনকে নির্দেশ দেওয়া হয়।
গত ১৫ মে চা বাগানের বিভিন্ন স্থাপনা ছাড়া ৩২৩ একর ভূমি সেবায়েত পঙ্কজ কুমার গুপ্তকে বুঝিয়ে দেয় জেলা প্রশাসন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: