সর্বশেষ আপডেট : ৩ মিনিট ২৪ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ২৫ জুলাই, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১০ শ্রাবণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

স্কুলছাত্র ইমন হত্যাকাণ্ড : আসামিদের দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে হাজির

leednews_imonবিশেষ প্রতিবেদক ::
সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার শিশু ইমনের চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলা সোমবার সিলেটের দ্রুতবিচার ট্রাইবুনালে উঠেছে। আজ ৭ আসামির মধ্যে গ্রেফতারকৃত ৬ জনকে প্রথমবারের মতো ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়। ট্রাইব্যুনাল মামলার পরবর্তী তারিখ ধার্য্য করেছেন আগামী ৩ অক্টোবর। ওইদিন চার্জ গঠন হতে পারে। এদিকে সোমবার আদালতের বিচারক মকবুল হোসেন কারাগারে থাকা ৪ আসামীর মধ্যে বাচ্চু নামের এক আসামির জামিন মঞ্জুর করেছেন।

এছাড়া জামিনে থাকা অপর দুই আসামী কাহার ও নুরুল আমিনের জামিন বহাল রেখেছেন। পলাতক আসামি সালেহ আহমদ ছাড়া ৬ আসামী জামায়াত নেতা সুয়েবুর রহমান সুজন, বাচ্চু, জায়েদ, রফিক, কাহার ও নুরুল আমিন আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

প্রথমদিন মামলার শুনানীকালে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী কিশোর কুমার কর শিশু ইমন হত্যার লোমহর্ষক বর্ননা দিয়ে দ্রুত বিচার সম্পন্নের আবেদন করেন। তিনি সাক্ষিদের নিরাপত্তার বিষয়টিও আদালতকে অবগত করেন। বাদি পক্ষের আইনজীবী শমিউল আলম জানান, প্রথমদিন আদালতে আসামিদের উপস্থিত করা হয়েছে। জামিনে থাকা দুইজন আসামির জামিন বাতিলের আবেদন করা হয়েছিল। আদালত জামিন বহাল রেখেছেন। আগামী ধার্য্য তারিখে মামলার চার্জ গঠনের সম্ভাবনা রয়েছে বলে তিনি জানান।

5000dddছাতক উপজেলার নোয়ারাই ইউনিয়নের বাতিরকান্দি গ্রামের সৌদি প্রবাসী জহুর আলীর ছেলে ও লাফার্জ সুরমা সিমেন্ট কারখানার কমিউনিটি বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেনীর ছাত্র ছিল ইমন। ২০১৫ সালের ২৭ মার্চ তাকে অপহরন করা হয়। পরে মুক্তিপনের দু’লক্ষ টাকা না পেয়ে অপহরনকারীরা শিশু ইমনকে হত্যা করে। ৮ এপ্রিল মোবাইল ট্যাকিংয়ের মাধ্যমে কদমতলী বাসষ্ট্যান্ড থেকে শিশু ইমনের হত্যাকারী ঘাতক ইমাম সুয়েবুর রহমান সুজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী পুলিশ হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরি, বিষের বোতল ও রক্তমাখা কাপড় উদ্ধার করে। এমনকি বাতিরকান্দি হাওর থেকে ইমনের মাথার খুলি ও হাতের হাড় উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহত ইমনের বাবা জহুর আলী বাদী হয়ে ৭ জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ছাতক থানায় মামলা (নং-৩২) করেন।

চলতি বছরের ২১ জুলাই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয় চাঞ্চল্যকর এ মামলাটি দ্রুতবিচার ট্রাইবুনালে প্রেরনের জন্য গেজেট প্রকাশ করে। ফলে বিচার দ্রুত নিস্পত্তি ও সুবিচার পাওয়ার প্রত্যাশায় রয়েছেন নিহত শিশু মোস্তাফিজুর রহমান ইমনের পিতা ও মামলার বাদী জহুর আলী।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: