সর্বশেষ আপডেট : ৯ মিনিট ১০ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

গুলিস্তানে হচ্ছে দেশের প্রথম উড়াল ফুটপাত!

1474115910নিউজ ডেস্ক: দেশের প্রথম এলিভেটেড ওয়াকওয়ে বা উড়াল ফুটপাথ হচ্ছে রাজধানীর গুলিস্তানে। এটি নির্মাণ করবে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন। একশ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত এই উড়াল পথের দৈর্ঘ্য হবে এক কিলোমিটারের বেশি। পথচারীদের সুবিধার জন্য এতে একই সঙ্গে চলন্ত সিঁড়ি এবং সাধারণ সিঁড়ি থাকবে।

জানা গেছে, ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে প্রকল্পটির কাজ শুরু হবে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। ব্যয়বহুল হলেও এই ফুটপাথে চলাচলের ক্ষেত্রে চলমান ভোগান্তি কমাবে। হংকং শহরের একটি উড়াল ফুটপাতের মডেলে এটি তৈরি হবে।

প্রকল্প সূত্রে জানা গেছে, সরকারি অর্থায়নে নগরীর প্রতিটি ব্যস্ত সড়কে এলিভেটেড ওয়াকওয়ে নির্মাণের পরিকল্পনা থাকলেও প্রথমটি নির্মাণ হবে ঢাকার গুলিস্তানে। এরই মধ্যে দেব কনসালট্যান্ট নামের এক পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এ প্রকল্পের নকশা প্রণয়ন করছে। এটির যাচাই-বাছাইয়ের কাজ চলছে। এই উড়াল ফুটপাথ আকর্ষণীয় হবে বলে জানা গেছে। এটির দৈর্ঘ্য হবে ১ হাজার ১২০ মিটার। দীর্ঘ এই এলিভেটেড ওয়াকওয়েতে থাকবে ১০টি স্কেলেটর ও ১৬টি সিঁড়ি।

সূত্র জানায়, প্রাথমিকভাবে এটি নির্মাণে ১০০ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হলেও পরে তা আরও বাড়বে বলে ধারণা করছে দক্ষিণ সিটি কর্তৃপক্ষ।
রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ স্থান হিসেবে সচিবালয়ের সামনে থেকে জিরো পয়েন্ট হয়ে বায়তুল মোকাররম-গুলিস্তান-আহাদ পুলিশ বক্স থেকে বঙ্গবন্ধু এভিনিউ-গোলাপ শাহ মাজার পর্যন্ত এই এলিভেটেড ওয়াকওয়েটি নির্মাণ করা হবে। এই পাইলট প্রকল্পটি সফলভাবে বাস্তবায়ন করা গেলে পরে নিউমার্কেট, সদরঘাট ও মতিঝিলেও এই ধরনের এলিভেটেড ওয়াকওয়ে নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে দক্ষিণ সিটির।

জানা গেছে, রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অনেক স্টিলের ফুটওভার ব্রিজ রয়েছে। তবে এসব ফুটওভার ব্রিজের মধ্যে কয়েকটি ছাড়া বাকিগুলো ব্যবহার করছে না নগরবাসী। অনেক স্থানে বাধ্য হয়ে নাগরিকরা এসব ফুট ওভারব্রিজ ব্যবহার করেন। বেশিরভাগ লোকই এসব ব্রিজ ব্যবহারের পরিবর্তে রাস্তার ওপর দিয়ে চলাফেরা করেন। এর ফলে প্রতিনিয়ত নানা দুর্ঘটনার শিকার হন অনেকে। এসব সমস্যার স্থায়ী সমাধানের লক্ষে ঢাকা উত্তর সিটির বনানী ও হযরত শাহজালাল আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দরের সামনের ফুটওভার ব্রিজে বিদ্যুৎ চালিত চলন্ত সিঁড়ি সংযোগ করা হয়। তবে তা প্রয়োজনের তুলনায় অত্যন্ত কম। তবে দক্ষিণ সিটির কোন ফুটওভার ব্রিজে চলন্ত সিঁড়ি সংযোজন করা হয়নি।

রাজউকের ঢাকার স্ট্রাকচার প্লানে এলিভেটেড ওয়াকওয়ের মতো প্রকল্পটি না থাকায় নগর বিশেষজ্ঞগণ এ বিষয়ে কিছুটা আশঙ্কা করছেন। তাদের মতে, ব্যয়বহুল প্রকল্প সঠিক পরিকল্পনা অনুযায়ী বাস্তবায়ন না করা গেলে এটি নির্মাণের প্রকৃত উদ্দেশ্য পুরোপুরি ব্যর্থ হবে। তাই সবদিক বিবেচনা করে দক্ষিণ সিটিকে এই পাইলট প্রকল্প বাস্তবায়ন করতে হবে।

এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে নাগরিকদের চেয়ে দখলদাররা বেশি উপকৃত হবে উল্লেখ করে স্থপতি ইকবাল হাবিব বলেন, এতে করে নিচের ফুটপাতগুলোতে অবৈধ দখল আরও শক্তিশালী হবে। রাজধানীর ফুটপাত অবৈধ দখলমুক্ত করে জনসাধারণের চলাচল উপযোগী করার তাগিদ দেন এ স্থপতি।

রাজধানীর প্রায় ৪০ শতাংশ মানুষ যাতায়াত করে হেঁটে, ফুটপাত দিয়ে। রাজধানীর মোট ট্রিপের (যাতায়াত) প্রায় ১৮ শতাংশ হয় হেঁটে। নিরাপদ রাস্তা পারাপারের জন্য রাজধানীতে ছোট-বড় মোট ৯০টি ফুটওভার ব্রিজ রয়েছে। এগুলো নির্মাণে প্রায় ২০০ কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল বলেন, নাগরিকদের ফুটপাথে চলাচল নির্বিঘ্ন ও সাবলীল করতে দেশে প্রথমবারের মতো রাজধানীর গুলিস্তানে এলিভেটেড ওয়াকওয়ে বা উড়াল ফুটপাথ তৈরির পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। হংকং শহরেও এ ধরনের উড়াল ফুটপাথ রয়েছে। এটির দৈর্ঘ্য হবে এক কিলোমিটারের বেশি।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: