সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৫৬ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

আড়াই মাস ধরে পুলিশ প্রহরায় ‘হলি আর্টিজান’

holey-artisan-bakery-550x344নিউজ ডেস্ক : জঙ্গি হামলার পর থেকে আগাই মাস ধরে কড়া নিরাপত্তায় রয়েছে গুলশানের আলেচিত হলি আর্টিজান রেস্তোরাঁ। ওই রেস্তোরাঁটিতে কাউকে ঢুকতেও দেয়া হচ্ছেনা। পুলিশ জানিয়েছে, নিরাপত্তাজনিত কারনে রেস্তোরায় কাউকে প্রবেশের অনুমতি দেয়া হচ্ছেনা।

এদিকে আবাসিক এলাকায় অনুমতি না নিয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার অভিযোগে আর্টিজানের ভবনটি অবৈধ চিহ্নিত করে ভেঙ্গে ফেলতে চেয়েছিল রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। এখন সেই তোড়জোড় দেখা যাচ্ছেনা। তবে গুলশান হামলার ২৬ দিন পরে গুলশানে অবৈধ কিছু বাণিজ্যিক স্থাপনা ভেঙ্গে ফেলে রাজধানীর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)।

গত ১৭ জুলাই সচিবালয়ে আবাসিক প্লটে ও ভবনে বাণিজ্যিক কার্যক্রম বন্ধে ও উচ্ছেদ অভিযানের অগ্রগতি নিয়ে এক বৈঠকে গণপূর্তমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, এই জায়গায় নার্সিং হোম করার জন্য ১৯৭৯ সালে মালিককে বরাদ্দ দেয়া হয়। ১৯৮২ সালে এর নির্মাণকাজ শুরু হয়। রেস্তোরাঁ বা বেকারি করার কোনো অনুমোদন নেয়া হয়নি। গুলশান-২ এর ৭৯ নম্বর সড়কে ১০ কাঠা জমির উপর দোতলা ভবনে গড়ে ওঠা হলি আর্টিজান বেকারি ভিনদেশিদের কাছে বেশ জনপ্রিয় ছিল। লেকের ধারের এই ক্যাফেতে খোলা লনও ছিলো।

প্রসঙ্গত, গত ১ জুলাই রাতে একদল জঙ্গি ঢুকে বিদেশিসহ বেশ কয়েকজনকে জিম্মি করে। সকালে কমান্ডো অভিযান চালিয়ে ওই রেস্তোরাঁর নিয়ন্ত্রণ নেয় নিরাপত্তা বাহিনী। ঘটনার পরপরই সেখানে গিয়ে নিহত হন দুজন পুলিশ কর্মকর্তা। এরপর সকালে অভিযান শেষে ১৭ বিদেশিসহ ২০ জিম্মির লাশ উদ্ধার করা হয়। কমান্ডো অভিযানে নিহত ছয় জঙ্গির লাশ পাওয়ার কথাও জানায় নিরাপত্তা বাহিনী।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: