সর্বশেষ আপডেট : ১৭ মিনিট ৪৮ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ঈদের দিন প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৬

gono-dhorson_dhakareport_28900ডেইলি সিলেট ডেস্ক ::
বাগেরহাটের রামপালে ঈদের দিনে ঘুরতে যাওয়ার কথা বলে প্রেমিকাকে ডেকে নিয়ে গণধর্ষণ করেছে প্রেমিকসহ ছয় ব্যক্তি। গত মঙ্গলবার রাতভর রামপাল উপজেলার সদর ইউনিয়নের ওড়াবুনিয়া গ্রামের জনৈক আব্দুল হামিদের মাছের ঘেরের বাসায় এই ঘটনা ঘটে। পুলিশ এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে। বুধবার দুপুরে ধর্ষণের শিকার মেয়েটি রামপাল থানায় ছয়জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেছেন। মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে।

ধর্ষণের দায়ে অভিযুক্তরা হলেন, রামপাল উপজেলার সদর ইউনিয়নের ওড়াবুনিয়া গ্রামের জিল্লু সরদারের ছেলে প্রেমিক মুক্ত সরদার (২৩) একই গ্রামের জাহিদ শেখের ছেলে হাসান শেখ (২৫), ইসরাফিল শেখের ছেলে শেখ বেলায়েত হোসেন (২৬), রামপাল সদরের ইব্রাহিম শেখের ছেলে ইসমাইল শেখ (২৫), শাহজাহান শেখের ছেলে রাজু শেখ (২৫) ও মাছের ঘের মালিক আব্দুল হামিদ (৫৮)।

রামপাল উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য নজরুল ইসলাম ডাবলু বলেন, রামপাল উপজেলার পেড়িখালি গ্রামের পঁচিশ বছর বয়সের একটি মেয়ের সাথে পার্শ্ববর্তী ওড়াবুনিয়া গ্রামের জিল্লু সরদারের ছেলে মুক্ত সরদারের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সেই সম্পর্কের সূত্রধরে ঈদের দিন মঙ্গলবার বিকাল চারটার দিকে মেয়েটির প্রেমিক মুক্ত তাকে মোবাইলে ফোনে বেড়াতে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে। প্রেমিকের ফোন পেয়ে মেয়েটি পাঁচটার দিকে বাড়ি থেকে রওনা দিয়ে তার কাছে আসে। এখানে আসার পর মুক্ত তাকে নিয়ে ওড়াবুনিয়া গ্রামের ফাঁকা মাঠে আব্দুল হামিদের মাছের ঘেরে যায়। সেখানে আগে থেকে বসে থাকা অপর পাঁচজন মেয়েটিকে ধর্ষণ করে। এই ছয়জনের মধ্যে ইসমাইলের বাবা ইব্রাহিম আব্দুল হামিদের মাছের ঘেরের বাসায় একটি মেয়েকে ধর্ষণ করার খবর জানতে পেরে রাত দুইটার দিকে আমাকে খবর দেয়। আমি তার কাছ থেকে খরব পেয়ে আজ সকালে ওই ছয়জনকে আমার কাছে ডেকে পাঠাই। তারা আমার কাছে এসে ওই মেয়েটিকে গণধর্ষণের কথা স্বীকার করে। পরে আমি ওদের পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছি।

রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন বলেন, মেয়েটিকে তারা ধর্ষণ করেছে বলে পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে। তাদের থানায় রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এই ঘটনায় মেয়েটি বাদী হয়ে রামপাল থানায় ছয়জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করেছেন। মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হচ্ছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: