সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৪ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কমলগঞ্জে শেষ মুর্হুতে পশুর হাট গুলোতে ক্রেতাদের ভিড় ॥ দাম চড়া

unnamed-2কমলগঞ্জ সংবাদদাতাঃ আর মাত্র ১ দিন পর মুসলিম উম্মার সর্ব বৃহৎ উৎসব ঈদুল আযহা বা কোরবানীর ঈদ। আর এই ঈদ কে সামনে রেখে প্রতিবছর মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জে সপ্তাহ খানেক আগ থেকে পশুর হাট জমে উঠলেও এবার জমে উঠেছে ৩/৪ দিন আগ থেকে। অন্যান্য বছর পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত, নেপাল,মিয়ানমার থেকে কোরবানী ঈদ উপলক্ষে সরকারী উদ্যেগে বা চোরাই পথে গরু আসলেও এ বছর অন্যান্য বছরের তুলনায় তা অনেক আংশে কম। ফলে উপজেলা বাসীকে কোরবানীর জন্য দেশী গরুর উপর নির্ভও করতে হচ্ছে। বাহিরের গরু না আসায় দেশী গরুর দামও চড়া। বেশী লাভের আশায় গরু বিক্রেতা বা পাইকারেরা উচ্চ মূল্যে দিয়ে গরু কিনায়,গরুর দাম ছাড়ছেন না। তাই বাধ্য ক্রেতারা একেক বাজারে গিয়ে যাচাই বাছাই করে গরু কিনছেন, অন্যদিকে অনেক বিক্রেতা বেশী দাম পাবার আশায় তাদের পশু গুলোকে একেক দিন একেক বাজারে তুলছেন। ইতিমধ্যে অনেক ক্রেতা বাজারে পশুর মূল্য আরো বৃদ্ধি হতে পারে ভেবে আগে ভাগেই বিভিন্ন এলাকা হতে পশু ক্রয় করে ফেলেছেন। অন্যদিকে দাম সামর্থের বাহিরে হওয়ায় অনেকে এখনও কোরবানীর পশু কিনতে পারেন নি দাম কমের আশায় বসে আছেন। এবার ৭০/৮০ হাজার টাকার নীচে কোন ভালো গরু মিলছে না।

unnamed-3উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ৯টি ইউনিয়ের বিভিন্ন বাজারে শেষ পর্যায় এসে পশুর হাটে দৌড় ঝাপ শুরু ক্রেতা বিক্রেতারা। যিলহজ্ব মাসের চাঁদ উদিত হওয়ার শুরু থেকে উপজেলার যে কয়টি পশুর হাট রয়েছে,প্রত্যেকটি হাটে গরু ছাগল বেচা কেনা শুরু হলেও প্রথম দিকে হাট গুলো জমে উটেনি। প্রতিবারের ন্যায় এবারও উপজেলার, ভানুগাছ বাজার রেল স্টেশন মাঠ,মুন্সিবাজার, শমশেরনগর ও আদমপুর পশুর হাট ঈদুল আযহা উপলক্ষে চলছে কোরবানীর বিশাল পশুর হাট। এ সকল হাটে কমলগঞ্জ উপজেলা থেকে শুরু করে মৌলভীবাজারের বিভিন্ন উপজেলা সহ অন্যান্য জেলার ক্রেতা বিক্রেতারা উপস্থিত হন, পশু কিনতে বা বিক্রী করতে। এবারও পশুর হাট গুলোতে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেওয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা। জাল নোট পরিক্ষার জন্য সোনালী ব্যাংকের উদ্যেগে বসানো হয়েছে স্কেনার মেশিন যা সর্বাক্ষন পর্যবেক্ষন কমলগঞ্জ থানা পুলিশ। বাজার গুলো মনিটরিং করছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহমুদুল হক ও কমলগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ বদরুল হাসান সহ ভ্রাম্যমান আদালতের একটি টিম পশুর সটিক মালিক কিনা যাচাই বাচাই করতে দেখা হচ্ছে ইউনিয়ন কর্তৃক দেওয়া রশিদ পত্র।

পশুর হাটে আসা অনেক ক্রেতার সাথে আলাপ কালে তারা জানান, পশুর দাম ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে হওয়ায় নিজের চাহিদা অনুযায়ী পশু কিনতে হিমশিম ক্ষেতে হচ্ছে তাদের, অনেকে গরুর দাম বেশী হওয়ায় বাড়ীতে ফিরে গেছেন।
অনেকে আশা করছেন, শেষ দিকে হয়তো হাটগুলো পশুর দাম কিছুটা নামতে পারে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: