সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৪৫ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

জৈন্তাপুরে আধিবাসী মলয়ের প্রায় ৫শত পান গাছ কেটে ফেলেছে দুর্বৃত্তরা

pan-nasari-3

জৈন্তাপুর প্রতিনিধি :: সিলেটের জৈন্তাপুরে ভিরতগোল গ্রান্টের আধিবাসী মলয় লতুবের’র পান জুমের প্রায় ৫শতাধিক পান গাছ কেটে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ অবস্থায় সর্বস্ব হারিয়ে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছেন মলয় লতুবের। থানায় সাধারণ ডায়েরিও করতে ভয় পাচ্ছেন তিনি।

বিগত ২০ থেকে ২৫ বৎসর থেকে জৈন্তাপুর উপজেলার ভিতরগোল গ্রান্ট (গোয়াবাড়ী) গ্রামে সরকারী ভাবে ভূমি বন্দোবস্থ নিয়ে পান-সুপারী, জুম করে আসছেন মলয় লতুবের। শনিবার সকাল অনুমান ১১টায় তীব্র রোদের মধ্যে বাগানের এক পার্শে¦ শ্রমিকদের বাগান পরিচর্যায় কাজে লাগিয়ে অন্য অংশে ঘুরাফেরা করছিলেন। এসময় তিনি দেখতে পান তাপদহে বাগানের প্রায় ৫শতাধিক পান গাছ নুয়ে পড়ছে। বিষয়টি দেখতে পেয়ে দ্রুত গাছগুলোর কাছে গিয়ে দেখতে পান দুর্বৃত্তরা পান গাছগুলোর গোড়ায় কেটে ফেলেছে।

পান গাছ বুকে জড়িয়ে হাউ মাউ করে কেঁদে উঠেন সংখ্যালঘু আধিবাসী মলয় লতুবের। মলয়ের কান্নার শব্দ শুনে কর্মরত শ্রমিক দ্রুত ছুটে যান এবং তাৎনিকভাবে বিষয়টি নিজপাট ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আব্দুল হালিম এবং ব্যবসায়ী বদরুল ইসলামকে অবহিত করেন।

তারা দ্রুত ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করে বিষয়টি দেখেন এবং মলয়কে থানায় সাধারণ ডায়েরী করার জন্য পরামর্শ দেন। শ্রমিকরা জানান, মলয় জমিদারের হয়ে তারা এই বাগানে ২০ হতে ২৫ বছর যাবৎ নিবিড় পরিচর্যার মাধ্যমে বাগান সৃজন করে আসছেন। অনেক সময় পান-সুপরী চুরি হয়েছে এমনকি চোর ধরাও পড়েছে। কিন্তু এরকম ঘটনা তার কখনো হতে দেখেননি। তাদের ধারণা পান গাছ কর্তনে অনুমান ৫০লাখ টাকার তি সাধিত হয়েছে। এরকম পান গাছ তৈরী করতে অন্তত আরও ২০-২৫ বৎসর সময় লাগবে।

এবিষয়ে মলয় লতুবের জানান, আমি দীর্ঘ ২০-২৫ বৎসর যাবৎ এই বাগান করে আসছি। টিক ফলন পাওয়ার শুরুর মুহুত্বেই এরকম ঘটনা আমাকে আত্মংক গ্রস্থ করে তুলেছে। কিন্তু তিনি আরও বলেন আমি থানা পুলিশ করতে গেলে আমার বাগানের বাকী গাছ কেটে ফেলেবে এমনকি আমকে মেরে ফেলতে পারে। এ ঘটনায় আমি চরম নিরাপত্তা হীনতায় ভূগতেছি। থানায় সাধারণ ডায়েরীর জন্য এলাকাবাসী ও স্থানীয় ইউপি সদস্যের সহযোগিতার জন্য বলেছি।

এবিষয়ে নিজপাট ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আব্দুল হালিম বলেন, খরব পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে আসি এবং বাগান পরিদর্শন করি। বিষয়টি মারাত্বক তাই আইনের সহায়তার জন্য ময়লকে পরামর্শ দেই।

এবিষয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সফিউল কবির বলেন, এধরনের ঘটনার কোন সংবাদ আমার জানা নেই, এমনকি এবিষয়ে কোন সাধারন ডায়েরী করা হয়নি। আমার সহযোগিতা চাওয়া হলে আমি যে কোন সহযোগিতা করব।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: