সর্বশেষ আপডেট : ২৭ মিনিট ২ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ছাতকে দু’টি প্রতিষ্ঠানের প্রভাষক একজন!

01-daily-sylhet-chhatak-news2ছাতক প্রতিনিধি::
সুনামগঞ্জের ছাতকে একই ব্যক্তি দু’টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রভাষক পদে শিক্ষকতা করার অভিযোগ উঠেছে। দ্বৈত শিক্ষকতা করা ওই শিক্ষক নিয়ে উভয় প্রতিষ্ঠানের প্রধানই নিজেদের নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক বলে বাদী করছেন।

এক ব্যাক্তি দু’টি শিক্ষা প্রতিষ্টানে একই সাথে শিক্ষকতার বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চলছে ব্যাপক জল্পনা-কল্পনা। এ শিক্ষক সু-কৌশলে দীর্ঘদিন ধরে একই সাথে মাদ্রাসা ও কলেজের প্রভাষক পদে দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

জানা যায়, ২০১২ সালের ডিসেম্বর মাসে উপজেলার সিংচাপইড় আলিম মাদ্রাসায় ইংরেজি প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন জাউয়াবাজার ইউনিয়নের দেবেরগাঁও গ্রামের নাজমুল হক। প্রায় দেড় বছর ধরে মাদ্রাসায় চাকুরীরত অবস্থায় ২০১৪ সালে নাজমুল হক তার বাড়ির নিকটবর্তী জাউয়াবাজার ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক পদেও নিয়োগ প্রাপ্ত হন। প্রায় আড়াই বছরের অধিক সময় ধরে তিনি একই সঙ্গে দু’টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই উপস্থিতি, হাজিরা স্বাক্ষর ও পাঠদান এবং বেতন-ভাতা উত্তোলন করে আসছেন।

তিনি একাধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চাকরি করলেও প্রতিষ্ঠানের প্রধানগনকে দ্বৈত শিক্ষকতার বিষয়টি গোপন রেখেছেন। ফলে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। সিংচাপইড় মাদ্রাসার একাধিক শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের সাথে আলোচনা করে জানা যায়, নাজমুল হক যোগদানের পর থেকেই সপ্তাহে ২-৩দিন মাদ্রাসায় উপস্থিত থাকেন। মাদ্রাসায় কখনো একটি কিংবা দু’টি ক্লাস নিয়েই চলে যেতেন তিনি।

এ ব্যাপারে সিংচাপইড় মাদ্রাসার এমপিও ভূক্ত শিক্ষক দাবি করে নাজমুল হক জানান, তিনি জাউয়া কলেজে শিক্ষকতা করেন। তিনি এমপিও ভূক্ত হয়েছেন সিংচাপইড় মাদ্রাসার শিক্ষক হিসেবে। এর বেশী কিছু বলতে তিনি রাজি নন। সিংচাপইড় মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাও.আব্দুল হাদী জানান, নাজমুল হক হচ্ছেন তার মাদ্রাসার নিয়োগ প্রাপ্ত শিক্ষক।

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে মাদ্রাসায় তাকে এমপিও ভূক্ত শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তবে মাঝে মধ্যে ছুটি নিলেও এ শিক্ষক অন্য কোন প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকতা করেন বলে তার জানা নেই।

জাউয়াবাজার ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল গাফ্ফার জানান, নাজমুল হক এ কলেজেরই নিয়োগপ্রাপ্ত একজন প্রভাষক। ২০১৪ সালে সরকারী বিধি মোতাবেক তাকে এ কলেজে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। তবে নাজমুল হক অন্য কোথাও চাকুরী করেন কিনা, তা জানেননি তিনি।

এ ব্যাপারে ছাতক উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মৌলদুর রহমান জানান, নাজমুল হকের কাগজপত্র যাচাই-বাচাই করে দেখা হয়েছে। জাউয়া ডিগ্রী কলেজের নিয়োগ প্রাপ্ত প্রভাষক তিনি। ২০১৪ সালে তাকে প্রভাষক হিসেবে জাউয়া ডিগ্রী কলেজে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: