সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

হজ ব্যবস্থাপনা নিয়ে সৌদি আরবের প্রশংসা ইরানি সাংবাদিকের

iranian_journalists20160908141715আন্তর্জাতিক ডেস্ক::
হজ ব্যবস্থাপনা নিয়ে রিয়াদ ও তেহরানের বাকযুদ্ধ যখন চরমে পৌঁছেছে ঠিক সেই সময় ইরানের এক সাংবাদিক হজ নিয়ে প্রশংসার বন্যায় ভাসিয়ে দিলেন সৌদি আরবকে। চলতি বছর হজের জন্য ইরানের ওই সাংবাদিক বর্তমানে সৌদি আরবে রয়েছেন।

তিনি বলেছেন, হজ পালনকারীরা যাতে সহজে, নিরাপদে ও দুর্ভোগ ছাড়া হজের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করতে সে লক্ষ্যে সর্বোচ্চ সেবা দেয়ার পদক্ষেপ নিয়েছে সৌদি আরব। ইরানের ওই সাংবাদিক বলেন, ইসলামের প্রাথমিক দিনগুলো থেকে সৌদি আরব এ দায়িত্ব পালন করে আসছে। সৌদি আরব পুরোপুরি এই দায়িত্ব পালন করেছে এবং আল্লাহর অতিথিরা পবিত্র দুই মসজিদের তত্ত্বাবধায়ক বাদশাহ সালমান এবং সৌদি জনগণের এ প্রচেষ্টার সাক্ষী।

জামাল বো করিম নামের ইরানের ওই সাংবাদিক বর্তমানে ফ্রান্সে বসবাস করছেন। তবে প্রথমবারের মতো হজ পালন করতে এ বছর সৌদি আরবে এসেছেন তিনি। জামাল বো করিম বলেন, সৌদি আরব ও সৌদি নাগরিকদের সম্পর্কে ইরানি গণমাধ্যমে যে বিদ্বেষপূর্ণ তথ্য প্রকাশ ও প্রচার করা হয় তার সঙ্গে তিনি যা দেখছেন সেগুলোর কোনো মিল নেই।

তিনি বলেন, সৌদি আরবের উজ্জ্বল ভাবমূর্তি নষ্টের চেষ্টা করছে ইরান; সত্যি কথা হচ্ছে, সৌদি আরব হজ ব্যবস্থাপনার অায়োজন করতে পুরোপুরি সক্ষম।

ডেনমার্কের নাগরিক ইয়াকুব হুর আল-তাসিরি হজ পালন করতে সৌদি আরবে এসেছেন। হজ ব্যবস্থাপনা নিয়ে ইরান-সৌদির বাকযুদ্ধের জেরে তিনি বলেন, ইরানে ৪০ শতাংশ বেকার নাগরিক রয়েছে এবং তারা চাকরি খুঁজে পাচ্ছেন না। তিনি বলেন, এটা এমন একটি দেশ, যারা অভ্যন্তরীণ সমস্যা সমাধানে ব্যর্থ। তারা হজ ব্যবস্থাপনা নিয়ে রাজনীতি শুরু করেছে।

এর আগে, সোমবার সৌদি আরবের তীব্র সমালোচনা করেছেন ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি। সৌদি শাসককে বিধর্মী উল্লেখ করে খামেনি বলেছেন, মিনা দুর্ঘটনায় নিহতদের অনেককে হত্যা করেছেন সৌদি বাদশাহ। এ ঘটনা আবারো প্রমাণ করে, এই ‘অভিশপ্ত ও শয়তান পরিবার’ পবিত্র স্থানের সংরক্ষণের দায়িত্ব পেতে পারে না।

ইরানের সর্বোচ্চ নেতার এ ধরনের মন্তব্যের পর সৌদি গ্রান্ড মুফতি শেইখ আব্দুল আজিজ আর শেইখ বলেছেন, খামেনির মন্তব্যে তিনি বিস্মিত হননি। মক্কা ডেইলিকে তিনি বলেন, ‘আমাদেরকে বুঝতে হবে যে, তারা (ইরানের নেতা) মুসলিম নন। তারা প্রাচীন পারসিক পুরোহিতের সন্তান এবং মুসলিমদের সঙ্গে তাদের শত্রুতা পুরনো। প্রাচীন পারসিক বলতে অগ্নিপূজাকে বোঝায় এবং তারা অগ্নিপূজা করে।’

সূত্র : আরব নিউজ।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: