সর্বশেষ আপডেট : ১০ মিনিট ৮ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ১৭ অক্টোবর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ২ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

অবশেষে চালু হতে যাচ্ছে জালালাবাদ পার্ক : ১০টি রাইড বসাচ্ছে সিসিক

sipunews_jalalabadparkনুরুল হক শিপু ::
সিলেট মহানগরে শিশুদের বিনোদনের জন্য তেমন কোনো ব্যবস্থা নেই। নেই কোনো উদ্যানও। যা আছে তাও মানসম্মত নয়। মহানগরবাসী একটু স্বস্তির নিশ্বাস ফেলবেন, সে স্থান পাওয়া মুশকিল। এরপরও নগরবাসীর জন্য আছে একটি উদ্যান। যেখানে মানুষের বিচরণ নেই বললেই চলে। কারণ মাদকসেবীদের আড্ডার স্থলে পরিণত হয়েছে স্থানটি। এর নাম জালালাবাদ পার্ক। অবশেষে আগামী জানুয়ারিতে উদ্যানটি সত্যিকার পার্কে পরিণত হতে যাচ্ছে। এখানে স্থাপন করা হচ্ছে ১০টি রাইড।

সুরমা নদীর পাশে, সার্কিট হাউস আর কিন ব্রিজের প্রান্তে এ পার্কের অবস্থান। দীর্ঘদিন পরিত্যক্তই ছিল উদ্যানটি। তবে ২০১০ সালের জানুয়ারিতে সিটি কর্পোরেশনের তৎকালীন মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান উদ্যানটি সংস্কার করে মহানগরবাসীর হাঁটাচলার জন্য উন্মুক্ত করে দেন। উদ্যানটি নগরবাসীর কাছে আকর্ষণীয় করতে নানা প্রজাতির গাছের চারা রোপণসহ পার্কের ভেতরে ও বাইরে সৌন্দর্যবর্ধক একাধিক প্রকল্প বাস্তবায়ন করেন কামরান। তখন থেকে উদ্যানটি প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে নয়টা ও বিকেল চারটা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত দুই বেলা নগরবাসীর জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয়। বাকি সময় এটি তালাবদ্ধ থাকে। কিন্তু সন্ধ্যার পর গোটা পার্ক এলাকায় ঘুঁটঘুঁটে অন্ধকার নেমে এলেই পাল্টে যায় এখানকার দৃশ্যপট। এই সময় নিয়মিত চলে মাদকসেবীদের আড্ডা। গাঁজার গন্ধে পার্ক এলাকার পরিবেশ হয়ে যায় অন্যরকম। তবে এবার সেই পরিস্থিতি থেকে পার্কটিকে বাঁচাতে বিকল্প উদ্যোগ নিয়েছে সিলেট সিটি কর্পোরেশন।

jalalabadpark2সিলেট সিটি কর্পোরেশন সূত্র জানায়, চলতি বছরের শুরুর দিকে রাজধানীর শ্যামলী এলাকার শিশুপার্ক দেখে জালালাবাদ পার্ককে শ্যামলীর ওই পার্কের মতো করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেন সিসিকের প্রধান নির্বাহী এনামুল হাবীব। সিসিকের মাসিক সমন্বয় সভায় পার্কের বিষয়ে আলোচনা করেন তিনি। সর্বসম্মতিক্রমে সভায় ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে পার্কে রাইড বসানোর সিদ্ধান্ত হয়। গত আগস্ট মাসে রাইড স্থাপন করতে টেন্ডার আহ্বান করে সিসিক। লটারি শেষে দুটি প্রতিষ্ঠান টেন্ডার পায়। প্রতিষ্ঠান দুটি হচ্ছে, নগরের দর্শন দেউড়ি এলাকার লালা এন্টারপ্রাইজ এবং খোজারখলার মেসার্স গোলাম মোস্তফা এন্টারপ্রাইজ। খুব শীঘ্রই সিসিক পার্কটির রাইড বসাতে কার্যাদেশ দেবে। আগামী বছরের জানুয়ারি মাসেই রাইডগুলো চালু হবে। চার মাসের মধ্যে রাইড স্থাপনের কাজ শেষ করবে সিসিক। পার্কে রাইড স্থাপন করা হলে বখাটেদের আড্ডা বন্ধ হবে বলে মনে করছেন সিসিক কর্মকর্তারা।

যেসব রাইড স্থাপন করা হবে তার মধ্যে রয়েছে, পাঁচ বগি লাইন ডিম আকার ট্রেন। ট্রেনটি ৩৬ জনের ধারণক্ষমতাসম্পন্ন হবে। বসানো হবে এসএস মেটেরিয়াল দিয়ে তৈরি নৌকা রাইডিং। যার ধারণক্ষমতা থাকবে ৩০ জন। চেয়ার ফাইবার মেটেরিয়াল দিয়ে তৈরি করা হবে হানি সুইং। ২৪টি চেয়ারের এ রাইডে ২৪ জন চড়তে পারবেন। এসএস প্লেন সিট দিয়ে তৈরি ১২ ফুট লম্বা বিমান বডি টেটু বসানো হবে। এসএস মেটেরিয়াল দিয়ে তৈরি ২ সেট সিসো, এসএস মেটেরিয়ালের ২ সেট স্লিপার, মেকানিক্যাল মেটেরিয়াল দিয়ে নির্মিত ১৬টি ঘোড়া। এতে ১৬ জন চড়তে পারবেন। এসএস মেটেরিয়াল নির্মিত মোটর চালিত নাগরদোলা। এর ধারণক্ষমতা হবে ৩২ জন। এছাড়া থাকবে ৪০ জন ধারণক্ষমতার ৫টি বগির ট্রেন রাইডিং।

jalalabadpark1সিলেট সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবীব বলেন, ‘জালালাবাদ পার্কের ভেতরে খালি জায়গায় এ রাইডগুলো বসাতে গত মাসে টেন্ডার আহ্বান করা হয়। দুটি প্রতিষ্ঠান লটারির মাধ্যমে টেন্ডার পেয়েছে। খুব শীঘ্রই কার্যাদেশ দেওয়া হবে। তিনি বলেন, জালালাবাদ পার্কের উন্নয়নে এ উদ্যোগ নেওয়ার মূল কারণ হচ্ছে, শহরে শিশুদের বিনোদনকেন্দ্র নেই বললেই চলে। রাইডগুলো বসাতে চার মাস সময় লাগবে। আনুষঙ্গিক সকল কাজ সিসিক শেষ করেছে। জানুয়ারি মাসেই রাইড চালু হবে। তিনি বলেন, রাইড বসালে অল্প টাকার টিকিটের ব্যবস্থা থাকবে। তা প্রবেশ এবং রাইড চড়তে ১০ টাকা হতে পারে। তবে এ বিষয়টি এখন সিদ্ধান্ত হয়নি। টিকিটের দাম কম রাখা হলে সিসিকের আয় বাড়বে। পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট কর্মচারীদের বেতনও এ আয় থেকে আসবে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বর্তমানে অনেকেই এখানে প্রবেশ করে নেশা করে বাজে আড্ডা দেয়। রাইড বসালে পার্কে মানুষের আগমন বাড়বে। সিকিউরিটিও থাকবে। এতে বাজে আড্ডা একেবারেই বন্ধ হয়ে যাবে। পার্কে একটি সুন্দর পরিবেশ সৃষ্টি হবে। তিনি বলেন, পার্কের গেইটে দুটি কাউন্টার থাকবে। পার্কের সামনের ফুটপাত উচ্ছেদ করা হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: