সর্বশেষ আপডেট : ৫ মিনিট ৪২ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কমলগঞ্জে সবজি চাষে আসিফের ভাগ্য পরিবর্তন

unnamedকমলগঞ্জ প্রতিনিধি::মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ উপজেলার লংগুরপার গ্রামের সবজি চাষে স্বাবলম্বী আসিফ মিয়া (৩০) নামের এক দরিদ্র যুবক। শুন্য থেকে এখন লাখ টাকার মালিক হয়েছেন তিনি। এই সবজি চাষ করার সুবাদে নিজে যেমনি হয়েছেন স্বাবলম্বী তেমনি তার পরিবারেও এসেছে স্বচ্ছলতা। গাড়ীচালক থেকে এখন তিনি একজন সফল কৃষক। যিনি নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন এক অনুকরনীয় যুবক হিসেবে। এক সময়ের দরিদ্র গাড়ীচালক এই যুবক কঠোর পরিশ্রম, কৃষি বিষয়ক মেধা এবং বড় হওয়ার অধ্যববসার আগ্রহের ফলে তার জীবন পাল্টে গেছে। তার বাড়ি উপজেলার ৫ নং কমলগঞ্জ ইউনিয়নের লংগুরপাড় গ্রামে। বাবার নাম মোঃ মানিক মিয়া ।

সফল কৃষক আসিফ মিয়া জানান, স্বল্প পরিমান জমিতে ২০১৫ সালে মৌসুমী সবজি চাষ শুরু করেন। সেখান হতে আস্তে আস্তে এখন প্রায় ১২০ শতক পরিমান জমিতে গড়ে তুলেছেন কৃষি খামার। খামারে রয়েছে মাছের ফিসারী, টমেটো, সিম, লাউ, বেগুন, করলা সহ নানা ধরনে সবজির আবাদ। এছাড়াও বিভিন্ন প্রজাতির সবজির চারাও বিক্রি করেন তিনি। আসিফ মিয়া টমেটো চারা বিক্রি করেই এ বছর ৫০ হাজার টাকা আয় করেছেন। মৌসুম শেষে লাখ টাকা আয় হবে বলে তিনি জানান।

আসিফ মিয়া দারিদ্রতার কারণে লেখাপড়ায় বেশি দুর এগুতে না পারায় জীবন জীবিকার তাগিদে বেচে নেন গাড়ি চালনার পেশা। চালক পেশার নামার পর সংসার চালাতে খুবই কষ্ট হয়েছে। একদিন এলাকার এক কৃষকের সবজি চাষ দেখে অনুপ্রানিত হয়ে নিজেই সবজি চাষ করার পরিকল্পনা করেন। একজনের পরামশে স্থানীয় একর্টি এনজিও থেকে ঋণ নিয়ে নিজেদের বাড়ির কাছাকাছি পতিত ১২০ শতাংশ জমিতে গড়ে তোলেন সবজি খামার ও ফিসারী। কঠোর পরিশ্রম করে সবজি চাষ প্রধান পেশা হিসেবে বেছে নিয়ে এ বছর শুধুমাত্র শিম, বেগুন, লাউ, করলা, টমেটো চাষ শুরু করেন। এখন তার সাথে মাছ চাষও যুক্ত করেছেন। এই খামার থেকে উৎপাদিত সবজি স্থানীয় ভানুগাছ, মাধবপুর, আদমপুর, শমশেরনগর, শ্রীমঙ্গল, কুলাউড়া ছাড়াও দেশের অভ্যন্তরে নানান জায়গায় পাইকারী ও খুচরা বিক্রি হয়।

আসিফ মিয়া বলেন, তার খামারকে আরও বৃহৎ আকারে করে এলাকার বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সুযোগ করে দিতে চান। এক সময় তার কিছুই ছিল না কিন্তু বর্তমানে লাধিক টাকার মালিক।

সবজি চাষ করার সুবাদে নিজে যেমনি হয়েছেন স্বাবলম্বী তেমনি স্থানীয় বেকার যুবকদের মাঝে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন এক আদর্শ যুবক হিসেবে। তার কাজে সহযোগিতা করেন ভাই নবিজ মিয়া ও হাকিম মিয়া। তাদের সবার সহযোগিতা, নিরলস পরিশ্রমই তাদের সফলতার কারণ।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: