সর্বশেষ আপডেট : ৭ মিনিট ৬ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বড়লেখায় পুলিশ-ডাকাত গুলি বিনিময়: গৃহকর্তা জানেন না তার বাড়িতে ডাকাতির প্রস্তুতি!

unnamed (5)বড়লেখা প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের বড়লেখায় পুলিশ-ডাকাত গুলি বিনিময়ে বড়লেখা থানার ওসিসহ ১৭ জন আহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) রাত তিনটার দিকে উপজেলার দক্ষিণভাগ ইউপি’র পূর্বদক্ষিণভাগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল থেকে দেশীয় অস্ত্রসহ আন্ত:জেলা ডাকাতদলের ৭জনকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছে-হবিগঞ্জ জেলার বাহুবল উপজেলার যাদবপুরের জিতু মিয়া (৪২) ও হরিচন্দ্রপুরের আব্দুল খালিক (৩৭); মাধবপুর উপজেলার কালীনগরের আসিক আহমদ (৩৫); শিবপুরের খলিলুর রহমান (২৩); সাতপারিয়ার জাহাঙ্গীর (২৫), কামাল (৩৬) এবং এখতিয়ারপুরের নূর মিয়া (২৮)। এ সময় তাদের কাছ থেকে ৫টি মোবাইল ফোনসেট, ৪ রাউণ্ড কার্তুজ, ৩টি রামদা, ১টি দা, ২টি ছোরা, ১টি চিরাপাঞ্জা, ১টি সিঁদকাটি ও ১টি লাইট উদ্ধার করা হয়।

সূত্র জানায়, মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) রাত তিনটার দিকে উপজেলার দক্ষিণভাগ ইউপি’র পূর্বদক্ষিণভাগ এলাকার বাসিন্দা প্রবাস ফেরত ধনু মিয়ার বাড়িতে একদল ডাকাত ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে-এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বড়লেখা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: মনিরুজ্জামানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ নিয়ে একটি মাইক্রোবাসযোগে ধনু মিয়ার বাড়ির পাশে অবস্থান নেন। পুলিশের উপস্থিতে টের পেয়ে ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে। এতে মাইক্রোবাসের (সিলেট-ছ-১১০৬১৭) কাঁচ ভেঙে যায়। আত্মরক্ষার্থে পুলিশ পাল্টা গুলি ছুঁড়ে। এতে পুলিশসহ উভয়পক্ষের ১৭ জন আহত হয়।

unnamed (6)

আহত পুলিশ সদস্যরা হলেন-বড়লেখা থানার ওসি মো: মনিরুজ্জামান, ওসি (তদন্ত) আকবর হোসেন, এসআই আনোয়ার উল্লাহ, অমিতাভ দাস তালুকদার, ধ্রুবেশ চক্রবর্ত্তী, দেবাশীষ, কনস্টেবল আজগর, কামিল, শহীদুর ও আতাউর। তাঁদের শরীরের বিভিন্ন স্থানে গুলির ছররা লেগেছে। তাঁরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

অপরদিকে ডাকাত দলের আহতরা হচ্ছে-জিতু মিয়া, আব্দুল খালিক, আসিক আহমদ, খলিলুর রহমান, জাহাঙ্গীর, কামাল ও নূর মিয়া। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে স্থানীয় জনমনে ডাকাত আটক, গুলি ছুঁড়াছুড়ির ঘটনায় ধুম্রজালের সৃষ্টি হয়েছে। ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিলো ডাকাতদল অথচ গৃহকর্তা জানেন না তার বাড়িতে ডাকাতি হচ্ছে! এমনকি গৃহকর্তা গুলাগুলির শব্দও শুনেননি। ডাকাতরা গুলি ছুঁড়লেও তাদের কাছে থাকা অস্ত্র গেলো কোথায়? এমন প্রশ্নও ঘোরপাক খাচ্ছে এলাকার লোকজনের মধ্যে। এছাড়া ওই বাড়ির মালিককে মামলার বাদী করানোরও চেষ্টা চালায় পুলিশ-এমন অভিযোগও ওঠেছে।

বড়লেখা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: মনিরুজ্জামান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ডাকাতির খবর পেয়ে ধনু মিয়ার বাড়ির পাশে গেলে ডাকাতরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশ ২৫ রাউণ্ড গুলি ছুঁড়ে। এতে পুলিশসহ উভয়পক্ষের ১৭ জন আহত হয়। ঘটনাস্থল থেকে আন্ত:জেলা ডাকাত দলের ৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতাকৃতদের মধ্যে পেশাদার ও জেলখাটা ডাকাত রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইন, ডাকাতির প্রস্তুতি ও পুলিশের উপর আক্রমণের ৩টি পৃথক মামলা করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত বাকি ডাকাতদের ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: