সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুনামগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার দু’ব্যবসায়ির ইটভাটা নিয়ে বিরোধ, ছাতকে নিষ্পত্তি

01. daily sylhet Chhatak news2ছাতক প্রতিনিধিঃ
ছাতকে সালিস-বৈঠকের মাধ্যমে সুনামগঞ্জের ব্যবসায়ী আ.স.ম খালিদ পীরের মালিকানাধীন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নাছিরনগর উপজেলার একটি ইটভাটার দখল ও লুটপাট নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা প্রায় সোয়া তিন কোটি টাকা মুল্যের সম্পদ লুটপাটের বিরোধ আপোষে নিষ্পত্তি করা হয়েছে।

শনিবার রাতে ছাতক বহুমুখি মডেল হাইস্কুলে সুনামগঞ্জ জেলা ও ব্রাহ্মনবাড়িয়া জেলার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ ব্যবসায়ীদের উপস্থিতিতে শালিস বৈঠকে বিষয়টির স্থায়ি নিষ্পত্তি ঘটে। বৈঠকের সিদ্ধান্ত মতে সুনামগঞ্জের ব্যবসায়ী আ.স.ম খালিদ পীরের মালিকানাধীন নাছিরনগর উপজেলার বলাকোট ইউনিয়নের বালিখোলা গ্রামে অবস্থিত ইটভাটায় উৎপাদিত ইট লুট এবং উৎপাদনে বাধা প্রদান করেনস্থানীয় প্রভাবশালীরা।

এ কারণে প্রায় তিন কোটি ১৭ লাখ টাকার ক্ষয়-ক্ষতি হয় ব্যবসায়ি খালিদ পীরের। সালিশে অভিযুক্তরা ব্যবসায়ী খালিদ পীরকে আগামী দেড় মাসের মধ্যে ক্ষতিপূরণের এক কোটি ৮০ লাখ ৬০ হাজার টাকা পরিশোধ করবেন বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে। বৈঠকের এই সিদ্ধান্ত দু’পক্ষ কোন আপত্তি ছাড়াই মেনে নেয়ায় দীর্ঘদিনের এ বিরোধটির আপোষে নিষ্পত্তি ঘটে।

জানা যায়, ২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে নাছিরনগর উপজেলার বলাকোট ইউনিয়নের বালিখোলা গ্রামের মেসার্স মেঘনা ব্রিকস নামের জমিসহ একটি ইটভাটা ৭০ লাখ টাকা মুল্যে ক্রয় করেন সুনামগঞ্জের ব্যবসায়ী খালিদ পীর। ইট উৎপাদনের পর স্থানীয় প্রভাবশালী একটি চক্র জোরপূর্বক তাকে ইটভাটা থেকে বের করে দেয়। পাশাপাশি উৎপাদিত ইটের বড় একটি অংশ লুটপাট করে নেয় তারা।

এ নিয়ে স্থানীয়ভাবে বিচার-শালিসসহ মামলা মোকদ্দমা চলে আসছিল দু’ পক্ষের মধ্যে। নাসিরনগরের এক প্রভাবশালী জনপ্রতিনিধির হস্তক্ষেপের পরও ইটভাটায় অধিকার প্রতিষ্ঠায় ব্যর্থ হন ব্যবসায়ি খালিদ পীর। এ কারণে তার তিন কোটি ১৭ লাখ টাকার আর্থিক ক্ষতিসাধন হয়েছে। এ ব্যাপারে নাসিরনগরে সুবিচার না পেয়ে সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স এবং সুনামগঞ্জ সদর, ছাতক, জামালগঞ্জ ও তাহিরপুর উপজেলার বালু-পাথর এবং কয়লা ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা চান ব্যবসায়ী খালিদ পীর। অবশেষে ব্যবসায়ীদের হস্তক্ষেপে শনিবার রাতে ছাতক হাইস্কুলে সুনামগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ব্যবসায়ীরা শালিস বৈঠকে বসেন। বৈঠকে ব্যবসায়ী খালিদ পীরের ক্ষয়ক্ষতি এবং ইটভাটার মূল্য বাবদ এক কোটি ৮০ লাখ টাকা ধার্য করে দেড় মাসের মধ্যে উক্ত টাকা পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ডিড করেন নাসিরনগরের অভিযুক্ত ব্যবসায়ীরা।

ছাতক উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক আবরু মিয়া তালুকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত শালিস-বৈঠকে জামালগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শামসুল আলম ঝুনু, সুনামগঞ্জ বালু-পাথর সমিতির সভাপতি কামরুজ্জামান দারা, ছাতক বহুমুখী মডেল হাইস্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি আ.লীগ নেতা শামীম আহমদ চৌধুরী, দুর্লভপুর বালু পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি নুরুল হক আফিন্দি, ছাতক উপজেলা বালু পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি জয়নাল চৌধুরী, সুনামগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সহ-সভাপতি শামসুল হক, সাবেক সহ-সভাপতি মোজাম্মেল হক, আ.লীগ নেতা ওয়াহিদুর রহমান সুফিয়ান, জেলা জাপার যুগ্ম আহবায়ক মোহাম্মদ আলী খুশনূর, ফাজিলপুর বালু পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ছয়ফুল আলম, ইউপি চেয়ারম্যান আবুল বরকত, নূরুল হক ও আব্দুল ওদুদ, সাবেক কাউন্সিলর ইরাজ মিয়া, ব্যবসায়ী আব্দুল হাই আজাদ, ফজলু চৌধুরী, ছালিক চৌধুরীসহ সুনামগঞ্জ জেলা ব্রাহ্মনবাড়িয়া জেলার বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও রাজনৈকিত নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: