সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ৭ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ৬ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ধরপড়ি এখন মৃত এক নদীর গল্প

unnamed (7)আমিনুল ইসলাম, কানাইঘাট::
মরমী কবির ভাষায়, নদীর এ কূল ভাঙ্গে ওকূল গড়ে
এইতো নদীর খেলা,
সকাল বেলায় আমির যে ভাই
ফকির সন্ধ্যা বেলা।
নদী যেমন আমাদের প্রচুর দেয়, তেমনি আবার প্রচুর নেয়। এর মধ্যে অন্যতম সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার পৌরসভার বুক চিরে মানচিত্রের উপর দিয়ে ভয়ে আছে ধরপড়ি নদী। নদীটি কিছু কেড়ে না নিলেও যেন দিয়ে গেছে প্রচুর। এক সময় বর্তমান পৌরসভাস্থশিবনগর, দলইমাটি, ধনপুর, দুর্লভপুর, ধর্মপুর,ন য়াখলা ও নন্দিরাই গ্রামের মানুষের কানাইঘাট বাজারে যাতায়াতের একমাত্র পথ ছিল এ ধরপড়ি নদীটি। যার উৎপত্তির স্থল ছিল বাংলার দীর্ঘতম নদী সুরমা থেকে।

এক সময় এ নদীটি এ অঞ্চলের মানুষের জীবন-যাপনকে করেছিল অসাধারণ লাভণ্যবতী । নদীটি আকারে ছোট হলেও নদীর কাহীনি ছোট গল্প নয়। ধরপড়ি নদীটি নিয়ে লোক মুখে রয়েছে নানা কাহীনি। নদীর বাঁকা গভীরতাকে স্থানীয় ভাষায় বলে ডহর। তেমনি এ নদীতে অনেক ডহর থাকলেও নন্দীরাই গ্রামের মিষ্টার আব্দুল্লাহ হাজ্বীর বাড়ীর পাশে ছিল সবচেয়ে গভীরতম ভয়ংকর ডহর।

এ ডহরে নব বর বধু নৌকা ডুবে মারা যাওয়ার কাহীনিটি আজও লোক মুখে প্রচলিত, এমনকি প্রতি পূর্ণীমার গভীর রাতে এ ডহরের ঝলমল পানিতে জলপরীরা গোসল করতো বলে নানা কাহীনি থেকে জানা গেছে। এক সময় এ এলাকার ঐতিহ্য ধরে রেখেছিল এই ধরপড়ি নদী। কিন্তু কালের আর্বতনে আজ এ নদীর কোন অস্থিত্ব নেই। নেই কোন নদীর কোন রূপ-বৈচিত্র।

আজ ধরপড়ি এক মৃত নদীর গল্প হয়ে দাড়িয়ে আছে নতুন প্রজন্মের কাছে। কেবল মানচিত্রে নদীটি তার দখল নিয়ে থাকলেও বাস্তবে নদীটি চলে গেছে বে-দখলে। তার বুকের উপর গড়ে উঠেছে ঘর-বাড়ি আর ফসলের জমি। যেন পাহাড় সমান বোঝা মাথায় নিয়ে দাড়িয়ে আজ ধরপড়ি নিরবে কাদঁছে,আর প্রাকৃতির কাছে আকুতি করে বলছে কবে যে, তার দখল ফিরে পেয়ে পূর্ণ যৌবনে ফিরবে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: