সর্বশেষ আপডেট : ২ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

তাহিরপুরে ভূয়া অভিভাবক সেজে আসামির চিকিৎসাসনদ ছিনতাই!

2. daily sylhet thahirpur newsডেইলি সিলেট ডেস্ক:
রোগীর স্বজনদের চোখে ধুলা দিয়ে ভূয়া অভিভাবক সেজে হাসপাতাল থেকে চিকিৎসাসনদ ছিনিয়ে নিয়েছেন আসামিপক্ষ। শুধু তাই নয়, ওই সনদের কপি নিয়ে বিজ্ঞ আদালতে হাজির হয়ে জামিনও নিয়েছেন কবির মিয়া (২৫) নামের এক আসামি ও তার সহযোগিরা।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

শুক্রবার দুপুরে রোগীর অভিভাবক চিকিৎসাজনিত প্রয়োজনীয় কাগজ-পত্র উত্তোলন করতে গেলে ঘটনাটি ফাঁস হয়ে যায়। ফিল্মি স্টাইলের এ নাটকিয়তার ঘটনাটি জনমনে এমনকি চায়ের কাপের আড্ডায় তুমুল ঝড় তুলেছে।

এদিকে খবরের সতত্যা জানতে শুক্রবার দুপুরে অভিযুক্ত কবির মিয়ার মোঠোফোনে কল করা হলে সদোত্তর পাওয়া যায়নি। যেন ‘ঠাকুর ঘরে কে রে, আমি কলা খাই না’ অবস্থা। যদিও সনদ নেয়ার বিষয়টি কবির তার এক স্বজনের কাছে মোঠোফোনে স্বীকার করেছেন যার ভয়েস রেকর্ড এ প্রতিবেদকের কাছে সংগৃহীত রয়েছে।

কে সেই প্রতারক কবির মিয়া শুক্রবার দিনভর অনুসন্ধানকালে জানা যায়, স্থানীয় মাটিয়ান হাওরে চাঞ্চল্যকর ত্রিপল মার্ডার (দায়রা-১৫/০৪), অবৈধ অস্ত্র মামলাসহ (জি.আর-১৫০/১৫) আদালতে বিচারাধীন একাধিক মামলার আসামি তাহিরপুর উপজেলার কুড়েরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা শাহানুর মিয়ার ছেলে সে।

উপজেলার পাটলাই নদীতে বেপরোয়া চাঁদাবাজি, চুরি-চিনতাইয়ের ঘটনায় জড়িত কবির দীর্ঘ ৫ বছর ধরে শ্রীপুর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের পরিত্যক্ত ভবনও জোরপূর্বক দখল করে রেখেছেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগ আছে, সন্ধ্যা ঘনিয়ে এলেই এখানে চলে মাদক বিক্রি, সেবনসহ অনৈতিক কাজ-কারবার। কোটি টাকার সরকারি এই সম্পত্তি তার ছোবল থেকে উদ্ধার করতে উপজেলার মনতলা গ্রামের মহিবুল মিয়া ইতিপূর্বে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) নিকট একটি আবেদন করেন। অদৃশ্য কারণে জায়গাটি তার দখলেই রয়েছে।

মামলার বিবরণে প্রকাশ, গত ২ আগষ্ট মঙ্গলবার পূর্ব বিরোধের জেরে উপজেলার মনতলা গ্রামের দিনমজুর আব্দুল জহুর ও তার পরিবারের লোকজনকে হত্যার উদ্দেশ্যে অতর্কিত হামলা চালায় কবিরসহ একদল সন্ত্রাসী।

এ ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় জহুরের দুই ছেলেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। পরে ৭ আগষ্ট আব্দুল জহুর বাদি হয়ে কবির মিয়া সহ ১৯ জনকে আসামি করে দণ্ডবিধি আইনের ৩২৬/৩০৭ সহ গুরুতর বিভিন্ন ধারায় তাহিরপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং- ০৩, তারিখ- ০৭/০৮/১৬)।

মামলার বাদি আব্দুল জহুর জানান, ঘটনার পর থেকে কৌশলে রোগীকে হাসপাতাল ত্যাগ করানো, মামলা না হওয়াসহ বেরিকেডের সৃষ্টি করে আসামি কবির। ঘটনাটি জানতে পেরে অবশেষে থানার ওসি মো. শহীদুল্লাহ মামলাটি আমলে নেন। দিকবিদিক ছুটাছুটির পর উপায়ন্তর না পেয়ে একপর্যায়ে ভুয়া অভিভাবক সেজে হাসপাতালের জনৈক এক অসাধু কর্মকর্তার যোগসাজশে সাধারণ একটি ডাক্তারি সনদ হাতিয়ে নেয় আসামি কবির।

মামলার বাদি আব্দুল জহুর আরও জানান, প্রতারণার মাধ্যমে সনদ নিয়ে আদালত থেকে জামিনে বের হয়ে বর্তমানে মামলা তুলে নেয়ার জন্য অনবরত হুমকি দিয়ে যাচ্ছে প্রতারক কবির। দাবি না মানলে উল্টো মামলা দিয়ে ফাঁসিয়ে দিবে এমনকি খুন করবে বলেও জানিয়েছে সে।

তিনি জানিয়েছেন, কবিরের বাবা চাঞ্চল্যকর ট্রিপল মার্ডার মামলা সহ অন্তত হাফ ডজন মামলার আদালতে বিচারাধীন আসামি। তাকে ও তার ছেলেদের যে কোনো বিপদে ফেলে দেয়া তাদের কাছে কোনো বিষয় নয়। তাই শংকিত দিনমজুর আব্দুল জহুরের পরিবার। বর্তমানে চরম নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে রয়েছেন বলেও জানিয়েছেন তিনি।

তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (টিএইচও) ডা. শাখাওয়াত হোসেন এর কাছে ঘটনার ব্যাপারে জানতে চাইলে ব্যস্ত আছেন বলে মোঠোফোনের সংযোগটি বিচ্ছিন্ন করে দেন।

তাহিরপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শহীদুল্লাহ ঘটনা প্রসঙ্গে বিষ্ময় প্রকাশ করে জানান, প্রতারণার আশ্রয় নেয়া আসামি কবির ও তার সহযোগিদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত পদক্ষেপ নেয়া হবে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: