সর্বশেষ আপডেট : ৪ মিনিট ৩ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বেপরোয়া পথচারীদের ‘ক্লাসরুম জেল’

2-8-550x366নিউজ ডেস্ক: বেপরোয়া পথচারীদের রুখতে বহু কসরত করতে হয় ট্রাফিক পুলিশকে। এ জন্য ঢাকার ট্রাফিক সিগন্যালে রশির ব্যবহার, প্রচারপত্র বিলি করার মতো অনেক উদ্যোগ দেখা গেছে। কিন্তু কিছুতেই যত্রতত্র, যখন তখন রাস্তা পারাপার বন্ধ করা যায়নি। এমন অসাবধানী পথিকদের শিক্ষা দিতে অভিনব একটি ব্যবস্থা চালু করেছে চীনের ট্রাফিক পুলিশ। সেখানে রাস্তা পারাপারে ট্রাফিক আইন অমান্য করা মাত্রই ‘কট’ এবং সোজা ক্লাসরুমে ঢুকিয়ে ট্রাফিক আইন শিক্ষার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

চীনের পূর্বাঞ্চলীয় জিয়ানসু প্রদেশের সুজো শহরে নতুন পদ্ধতিটি চালু করেছে ট্রাফিক পুলিশ। বেপরোয়া পথচারীদের সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ে শিক্ষা দিতে শহরটির প্রধান মোড়গুলোতে অস্থায়ী ক্লাসরুম গড়ে তোলা হয়েছে। ট্রাফিক আইন অমান্য করে কেউ রাস্তা পার হলেই তাকে পাকড়াও করে সেই ক্লাসরুমে নিয়ে যাওয়া হয়। ক্লাসরুমে তাদের ট্রাফিক আইন শিক্ষা দেন পুলিশ অফিসাররা। চায়না নিউজ সার্ভিস (সিএনএস) জানায়, বিশেষ কারণে ক্লাসরুমে যেতে অস্বীকার করলে কাউকে কাউকে কেবল নগদ অর্থদণ্ড দিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়।

স্থানীয় হুয়াইহাই টেলিভিশনের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, বেপরোয়া পথচারীদের পাঠদান চলে এক ঘণ্টা। এ সময় ট্রাফিক বিষয়ে ৩০টি মৌলিক নিয়ম শিক্ষা দেওয়ার পাশাপাশি ট্রাফিক আইন লঙ্ঘনের কারণে কী ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে এর ভিডিও চিত্র প্রদর্শন করা হয়। এরপর তারা কী শিখল, এর ওপর পরীক্ষা নেওয়া হয়। পরীক্ষায় পাস করলেই কেবল ক্লাসরুম থেকে বের হওয়ার অনুমতি মিলবে। অর্থাৎ ট্রাফিক আইনের ওপর পরীক্ষায় পাস না করা পর্যন্ত তাকে ‘ক্লাসরুম কারাগারে বন্দি’ থাকতে হবে।

স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা ওয়াং মিনহাই বলেন, ট্রাফিক আইন সম্পর্কে নাগরিকদের পরিষ্কার ধারণা দেওয়াই এর লক্ষ্য। তবে তাদের এটাও স্মরণ করিয়ে দেওয়া দরকার যে রাস্তায় চলাফেরারও মৌলিক বিধান আছে। টেলিভিশন চ্যানেলকে তিনি বলেন, খুবই সাধারণ নীতি হলো যখন লালবাতি জ্বলবে, তখন আপনি থেমে যাবেন এবং যখন সবুজ বাতি জ্বলবে আপনি রাস্তা পার হবেন। কিন্তু সেদিকে কারো মনোযোগ আছে বলে মনে হয় না।’ ক্লাসে অংশ নেওয়া এক ব্যক্তি বলেন, ‘এই ক্লাসের ইতিবাচক প্রভাব আছে। আমি আর কখনোই বেপরোয়াভাবে রাস্তা পার হব না। আমি চাই না, পুনরায় এখানে (ক্লাসরুমে) আসতে।’

প্রসঙ্গত, বেপরোয়া পথচারী সামলাতে অভিনব পন্থা বের করায় সুজোই একমাত্র শহর নয়। এর আগে ২০০৫ সালে চীনের দক্ষিণাঞ্চলীয় শেনঝেন শহরে বেপরোয়া পথচারীদের ধরে দুটি বিকল্প দেওয়া হতো। হয় তাদের জরিমানা দিতে হবে, না হয় সবুজ টুপি পরে ট্রাফিক পুলিশকে সহযোগিতা করতে হবে। কালের কন্ঠ

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: