সর্বশেষ আপডেট : ১০ মিনিট ১৮ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ২৯ মার্চ, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ চৈত্র ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সৌদি আরব যাওয়ার উদ্দেশ্যে ভারতে গিয়ে লাশ হলেন জকিগঞ্জের আহাদ

Ahad news daily sylhet 0-110জকিগঞ্জ প্রতিনিধি::
সৌদি আরব যাওয়ার উদ্দেশ্যে অবৈধ পথে ভারত গিয়ে লাশ হলেন সিলেটের জকিগঞ্জের এক যুবক এবং জঙ্গি সন্দেহে জেলে গেলেন তার ৪ সঙ্গী। তাদের সাথে ভারতের কয়েকজনকেও আটক করেছে আসামের পুলিশ। করিমগঞ্জের আদালত তাদের ১৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে বলে ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম জানেয়েছে।

নিহত যুবক জকিগঞ্জের কসকনকপুর ইউনিয়নের নিয়াগুল গ্রামের মুজম্মিল আলীর ছেলে আব্দুল আহাদ (৪০)। আটক ৪ যুবক হলেন জকিগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম শাহজালালপুর গ্রামের কাজী মাসুক আহমদের ছেলে কাজী সুমন আহমদ (২৭), পুর্ব শাহজালালপুর গ্রামের মাহমুদ আলীর ছেলে সাব্বির আহমদ (২৫), জকিগঞ্জ সদর ইউনিয়নের আনারসি গ্রামের সৌদি প্রবাসী মুছব্বির আলীর ছেলে দেলোয়ার হোসেন (৩০) ও পার্শ্ববর্তী উপজেলা কানাইঘাটের শহিদ আহমদ (৩০)।

কসকনকপুর ইউনিয়নের পরিষদের সদস্য ইসলাম উদ্দিন নিয়াগুল গ্রামের আব্দুল আহাদের ভারতে নিহত হওয়ার ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, আব্দুল আহাদের বাবা মুজম্মিল আলী তাকে জানিয়েছেন দালালের মাধ্যমে ভারত হয়ে সৌদি যাওয়ার জন্য ১৪ আগষ্ট ৭০ হাজার টাকা নিয়ে বাড়ী থেকে বের হন।

ভারতের করিমগঞ্জের তাদের এক আত্মীয়ের মাধ্যমে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে আহাদের মৃত্যুর খবর পরিবারের সদস্যরা নিশ্চিত হয়েছেন। পেশায় আহাদ একজন শ্রমিক ছিলেন। তার ২ ছেলে ও ২ মেয়েসহ বৃদ্ধ মা-বাবা রয়েছেন। তিন দিন আগে আহাদ তার বাবাকে জমি বিক্রি করে টাকা জোগাড় করে রাখার জন্য বলেছিল।

ভারতের জেলে আটক সাব্বির আহমদের ভাই ফয়সল আহমদ জানান, সাড়ে তিন লাখ টাকা চুক্তির মাধ্যমে ভারতীয় পাসপোর্ট ও সৌদির ভিসা দেয়ার আশ্বাসের প্রেক্ষিতে সাব্বির অবৈধ পথে ভারত যান। সে গ্রামে মুদির দোকান চালাতো। পশ্চিম শাহজালালপুর গ্রামের সৌদি প্রবাসী জালাল আহমদের মাধ্যমে ভারতের দালালের সাথে পরিচয় হয় তার ভাইয়ের। সেই সুত্র ধরেই সাব্বির ভারত যান।

আটক দেলোয়ারের প্রতিবেশী আকলিম উদ্দিন জানান, বাংলাদেশ থেকে সৌদির ভিসা বন্ধ থাকায় সহজে ভারত হয়ে সৌদি যাওয়ার জন্য দালালের মাধ্যমে অবৈধ পথে সে এক সপ্তাহ আগে ভারত যায়।

আটক সুমনের মা সেজু বেগম বলেন, ৩ ছেলে ও ৪ মেয়ের মধ্যে সুমন সকলের বড়। সে পেশায় গাড়ী চালক। কলাকুটা গ্রামের জনৈক কামাল আহমদ নামের এক দালালের মাধ্যমে সাড়ে ৩ লাখ টাকায় সৌদি যাওয়ার জন্য সে ভারতে পাড়ি দেয়। সাথে ৩০ হাজার টাকা ছিল বলেও তিনি জানান।

মঙ্গলবার করিমগঞ্জের নিলাম বাজার এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়ছে বলে করিমগঞ্জ পুলিশের বরাত দিয়ে ভারতীয় একাধিক সংবাদমাধ্যম খবরটি প্রকাশ করে। ১৪ আগস্ট পাঁচ বাংলাদেশী আটগ্রাম পাহাড় এলাকা দিয়ে মেঘালয় সীমান্ত পাড়ি দেয়। পরে তারা ভারতের কালীগঞ্জ এলাকার একটি ভাড়া বাড়িতে আশ্রয় নেয়। ভারতের পুলিশ পুলিশ দাবী করেছে, নিহত আহাদের সঙ্গীরা লাশ ফেলে দেওয়ার সময় পথচারীরা পুলিশে খবর দেয়। তবে কিভাবে আব্দুল আহাদের মৃত্যু হয়েছে তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

জকিগঞ্জ থানার ওসি শফিকুর রহমান খান জানান, পুলিশের উর্ধতন কর্তৃপক্ষ বিষয়টি তার কাছে জানতে চেয়েছেন। তিনি জকিগঞ্জ থানার দারোগা এ. এইচ. এম মাহমুদকে বিষয়টি তদন্ত করার জন্য সরেজমিনে পাঠিয়েছেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: