সর্বশেষ আপডেট : ১০ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মাদক ব্যবসায়ীদের বাড়ির ইট খুলে নিবেন শামীম ওসমান

images-42নিউজ ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের এমপি শামীম ওসমান তার এলাকার মাদক ব্যবসায়ীদের তালিকা তৈরি করে তাকে দেওয়ার জন্য ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের নির্দেশনা দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, আপনারা তালিকা তৈরি করে আমার কাছে দেবেন। ওই তালিকা আমি প্রশাসনকে দেবো। প্রশাসন ব্যর্থ হলে আমি নিজেই মাঠে নামবো। মাদক বিক্রেতাদের বাড়ির ইট খুলে নিয়ে আসবো। আগামি কোরবানির ঈদের আগেই মাদক ব্যবসা কোরবানি দেওয়া হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় রাইফেল ক্লাবে ফতুল্লা থানা এলাকার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এই হুঁশিয়ারি দেন।
সভায় সদর উপজেলা পরিষদ ও ফতুল্লা থানা এলাকার ৫টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, মেম্বার, প্রশাসনের কর্মকর্তা, পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
সভায় মেম্বাররা তাদের বক্তব্যে মাদকের ভয়াবহতা তুলে ধরে এ ঘটনার জন্য পুলিশ প্রশাসনকেও দোষারোপ করেন। তারা বলেন, পুলিশ অনেক সময়ে টাকা খেয়ে মাদক মামলার আসামিদের ছেড়ে দেয়।

শামীম ওসমান চেয়ারম্যান ও মেম্বারদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা পাড়া মহল্লাতে সভা করেন। আপনারা প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ী ও সংশ্লিষ্টদের তালিকা আমাকে দিন। আমি এ তালিকা প্রথমে প্রশাসনকে দেবো। দেখবো প্রশাসন কী করে। যদি প্রশাসন না ধরে তাহলে আমি নিজেই মাঠে নামবো। মাদক বিক্রেতাদের বাড়ির ইট খুলে নিয়ে আসবো।বাড়িতে বাড়িতে ঢুকে আমি শামীম ওসমান একা মাদক ব্যবসা বন্ধ করে দেখিয়ে দেবো। আর যদি না পারি আমার নামে আপনার বলে দিয়েন, আপনি পারেন নাই, এমপিগিরি ছাইড়া দেন। ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে নারায়ণগঞ্জ খালি করে ফেলার মতো ফোর্স আমার আছে। ভিমরুলের চাকের মতো মারব, বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে আসবো। শুধু একটা কথা, ভুল কিছু করা যাবে না। তা হলে আল্লাহ বেজার হবেন।
উপস্থিত পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাদের লক্ষ্য করে শামীম ওসমান বলেন, পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা যারা এখানে আছেন তাদের বলছি, যে নামগুলো উঠে আসবে যাচাই-বাছাই করে প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ীদের ধরেন। কোনও নিরীহ লোক যেন না ফাঁসে। ল্যাংড়া করে পারেন, গুলি করে পারেন, গুলি ছাড়া পারেন ওদেরকে ধরেন, এস সুন এস পসিবল। এখানে আলোচনা করার পরও যদি তারা ধরা না পড়ে তা হলে আমাকে এমপি থেকে লাভ নাই, আপনারও ওসি থেকে লাভ নাই, চেয়ারম্যানেরও চেয়ারম্যান থেকে লাভ নাই, ইউএনও’রও ইউএনও থেকে লাভ নাই।

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আফরোজা আক্তার চৌধুরী, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, নারী ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ফতুল্লা সার্কেল নাহিদা বারিক, ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কাশিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম সাইফউল্লাহ বাদল, সাধারণ সম্পাদক ও বক্তাবলী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শওকত আলী, ফতুল্লা মডেল থানার সহকারী পুলিশ সুপার শরফুদ্দিন, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামাল উদ্দিন, নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসাদুজ্জামান, কুতুবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মনিরুল আলম সেন্টু, এনায়েত নগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান প্রমুখ এসময় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য যে, গত বছরের ৩ আগস্ট দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে মাসিক আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় শামীম ওসমান সদর উপজেলার প্রত্যেক পাড়া মহল্লা, ইউনিয়নে মাদকবিরোধী কমিটি গঠনের তাগিদ দেন। তিনি ওই বছরের ২০ আগস্টের (২০১৫) মধ্যে এসব কমিটি গঠনের জন্য নাম প্রদান করতেও সংশ্লিষ্ট উপজেলা পরিষদ কর্মকর্তা, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, মেম্বারসহ জনপ্রতিনিধি ও আওয়ামী লীগ নেতাদের প্রতি আহ্বান জানান। পরে ১২ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জ ওসমানী পৌর স্টেডিয়ামে সমাবেশ করে পরবর্তী কর্মপন্থা নির্ধারণের ঘোষণা দেন। কিন্তু সে প্রক্রিয়া আর এগোয়নি।-আমাদের সময়.কম

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: