সর্বশেষ আপডেট : ৯ মিনিট ৪৩ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কিরণমালা’য় মজেছে বেশ, বাড়ছে লাশ পুড়ছে দেশ

kiran-1-550x367নিউজ ডেস্ক: ভারতীয় সিরিয়ালের আগ্রাসন দেশের মানুষের মধ্যে কতটা ভয়াবহ রূপ নিয়েছে তা আরও একবার চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিলেন হবিগঞ্জের বাসিন্দারা। গত বুধবার হাবিবগঞ্জ জেলার ধল গ্রামে ‘কিরণমালা’ সিরিয়াল দেখা নিয়ে প্রথমে কথা কাটাকাটি, পরে তা রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে রূপ নেয়। দু’পক্ষের এই সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক মানুষ আহত হয়। সিরিয়াল নিয়ে বাংলাদেশির এমন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ার খবর ফলাও করে প্রকাশ করে ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যমও। তবে সিরিয়ালের এমন আগ্রাসন নতুন কোনো ঘটনা নয়। এর আগে, পাখি চরিত্রের আদলে তৈরি পোশাক ‘পাখি ড্রেস’কে কেন্দ্র করে বেশ কয়েকটি লঙ্কাকান্ড ঘটে গেছে বাংলাদেশে। আত্মহত্যা থেকে শুরু করে স্বামী-স্ত্রী হত্যার মতো ঘটনাও ঘটেছে এই দেশে। যা এখনও চলমান। এর মধ্যে হালের কিরণমালা ক্রেজে পুড়ছে ঘর আর বাড়ছে লাশ।

স্টার জলসা, জি বাংলাসহ কলকাতার টিভি চ্যানেলগুলোতে সংসারের ঝগড়াঝাঁটি ও পুরাণিক কাহিনী নিয়ে ধারাবাহিক সিরিয়াল প্রচারিত হচ্ছে। এসব সিরিয়ালে আসক্ত হয়ে পড়ছেন দেশের গ্রামাঞ্চলের নারী ও গৃহধূরা থেকে শুরু করে আবাল-বৃদ্ধা। পরিবারের কাজকর্ম ফেলে মগ্ন থাকছেন ওই সব সিরিয়ালে। আর এতে ঘটছে নানা অঘটন। রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ।

১৬ পরিবার নিঃস্ব:
গত বছরের ১৪ সেপ্টেম্বর পঞ্চগড়ের আটোয়ারী উপজেলার রাধানগর বড়দাপ (সরকারপাড়া) গ্রামে কিরণমালা সিরিয়ালটি দেখতে গিয়ে ১৬টি পরিবারের বসতবাড়ি-জিনিসপত্র পুড়ে ছাই হয়ে যায়। জানা যায়, ওইদিন রাত ৮.৪০ মিনিটে বাড়িতে সবাই ‘কিরণমালা’ সিরিয়াল দেখার সময় চুলার আগুন ফুসকে রান্নাঘরে আগুন লাগে।
এরপর তা আশপারের বাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনলেও মালামাল কিছুই রক্ষা করা যায়নি। পরে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ৩২০ কেজি চাল, ১৬টি পরিবারের মধ্যে ৮টি পরিবার বেশী ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় তাদেরকে ১ বান করে ৯ ফুট ঢেউটিন প্রদান করা।

পানিতে ভাসছে ২ শিশুর নিথর দেহ:
কিরণমালার সবচেয়ে মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে গত শনিবার সাতক্ষীরার শ্যামনগরে। ওই দিন সকাল ৯টায় উপজেলার বাদুড়িয়া গ্রামের সবুর মোল্লা নামের এক পরিবারের সবাই একত্রে দেখছিলেন কিরণমালা। একই সময় পুকুর পাড়ে খেলা করছিলেন সবুর মোল্লার ছেলে আসাদুর রহমান (৬) ও তার চাচাতো বোন মনিরা খাতুন (৪)। একপর্যায়ে সবার অগোচরে শিশু দুটি পুকুরে পড়ে যায়। যখন সিরিয়াল শেষ হয় ততক্ষণে না ফেরার দেশে চলে যায় অবুঝ শিশু দুটি। পরিবারের সদস্যরা দেখেন পুকুরের পানিতে ভাসছে দুটি নিথর দেহ। দুই সন্তানকে হারিয়ে শোকের ছায়া নেমে আসে পুরো বাড়িতে।

ঘরের ভেতরে পুড়ে অঙ্গার তালাবদ্ধ মেয়ে:
ভারতীয় সিরিয়াল দেখতে গিয়ে গত শুক্রবার রাত ৮টায় আরেক মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে কুষ্টিয়ার খোকসায়। উপজেলার চকহরিপুর গ্রামের খলিলুর রহমানের স্ত্রী শোকেলা খাতুন বাড়ির পাশের দোকানে দলবেঁধে কিরণমালা দেখতে যান। স্টার জলসার এই সিরিয়ালের প্রতি এতটাই নেশা ছিল তার যে দুই শিশু কন্যাকে ঘরে ঘুম পাড়িয়ে রেখে বাইরে থেকে তালাবদ্ধ করে দেন তিনি। এরই মাঝে ঘটে যায় দুর্ঘটনা। বৈদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে আগুন ধরে তা পুরো ঘরে ছড়িয়ে পড়ে। এ সময় বড় মেয়ে সায়মা (১০) ঘরের জানালা দিয়ে বেরিয়ে আসতে হলেও আগুনে পুড়ে অঙ্গার হয় ছোট মেয়ে ঋতু (৭)। কিরণমালায় মগ্ন থাকা মা খবর পেয়ে যখন বাড়িতে পৌছন তখন দেখেন সব শেষ। প্রতিবেশীরা গুরুতর দগ্ধ সায়মাকে উদ্ধার করে খোকসা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। তার অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

বোনের সঙ্গে অভিমান করে আত্মহত্যা:
কিরণমালা দেখা নিয়ে ২০১৫ সালের ২৭ আগস্ট নীলফামারীর ডোমার উপজেলার বোড়াবাড়ি এলাকায় চিত্তরঞ্জন সাহার দুই কন্যার মধ্যে ঝগড়া হয়। এটা এতোটাই ভয়াবহ আকার ধারণ করে যে এক পর্যায়ে বড় বোন সঞ্জিতা সাহা গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেন।

কিরণমালা দেখার কারণে আগুনে ঘর পুড়ে ছাই, ছেলে-মেয়ের মৃত্যু, বোনের সঙ্গে অভিমান করে আত্মহত্যা, দু’পক্ষের সঙ্গে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ার ঘটনা কিন্তু দু’একটা নয়। প্রায় প্রতিদিনই কিরণমালাসহ অন্যান্য সিরিয়াল দেখা নিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এ ধরনের ঘটনা অহরহ ঘটছে। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মান-সম্মানের ভয়ে এসব বিষয় এড়িয়ে যান পরিবারের সদস্যরা। তারপরও কিছু কিছু ঘটনা প্রকাশ্যে আসে। যা, দেখে হতবাক হই আমরা। তবে শুধু কি আমরা, যাদের দেশের তৈরি এই সিরিয়াল, তারাও ভারতীয় সিরিয়ালের ফলে বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক আগ্রাসনও ফলাও করে প্রকাশ করে।

এদিকে, এসব ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর নড়েচড়ে বসেছেন দেশের সাংস্কৃতিক বোদ্ধারা। তাদের মতে, এটা দেশের সংস্কৃতির ওপর বড় আঘাত। তাই অচিরেই এ বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ না নেওয়া হলে ভবিষ্যতে দেশিয় সংস্কৃতি হুমকির মুখে পড়বে। পরকীয়ার প্রকোপ বাড়বে, দেখো দেবে মানুষে মানুষে দ্বন্দ্ব, ভেঙে যাবে দীর্ঘদিনের পারিবারিক বন্ধন, মুখ-দেখাদেখি হবে ভাই-বোনদের মধ্যে।
জানা গেছে, ভারতীয় টিভি চ্যানেল স্টার জলসায় প্রতি সোম থেকে রবিবার রাত ৮টায় কিরণমালা সিরিয়ালটি প্রচারিত হয়। পরদিন সকালে সেটি পুনঃপ্রচার করা হয়। ‘ঠাকুর মা’র ঝুলি থেকে নেয়া সিরিয়ালটির কাহিনী মূলত ‘কিরণমালা’ চরিত্রটিকে কেন্দ্র করে। জন্মের পর থেকেই রাক্ষসী রানী কটকটির সঙ্গে যুদ্ধ করে কিরণমালা। সে সব যুদ্ধেই কটকটিকে পরাজিত করে শুভ শক্তির জয় করে। এভাবেই এগিয়ে যায় কিরণমালা সিরিয়াল।-আমাদের সময়.কম

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: