সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বিশ্বম্ভরপুরে সামাজিক সালিশের রায় প্রত্যাখ্যান করেছেন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান রাবেল

rabel-talukder-1-298x225আল-হেলাল::সুনামগঞ্জের বিশ্বম্ভরপুরে সামাজিক সালিশের রায়ে সন্তুষ্ট হতে পারেননি মুক্তিযোদ্ধার সন্তান রাবেল তালুকদার। মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের উপর দুদফায় হামলার ঘটনাটি প্রমাণ এবং ৩ আসামী অকপটে স্বীকার করলেও ক্ষতিগ্রস্থ মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে তার ছিনতাইকৃত এক লক্ষ টাকার ব্যাপারে কোন ফায়সালা দেয়া হয়নি রোববারের সালিশে।

প্রকাশ্য দিবালোকে সংগঠিত এই সালিশে উভয়পক্ষের জবানবন্দী ভিডিও রেকর্ড করতে চাইলে সাংবাদিকদেরকে বাধা দেন সাবেক চেয়ারম্যান শাহ সামসুজ্জামান মাস্টার। অথচ হামলাকারীদের বিরুদ্ধে দেয়া প্রকাশ্য জবানবন্দীতে রাবেল তালুকদার তার ছিনতাইকৃত টাকা প্যান্টের ভিতরের পকেটে থাকার যুক্তিসঙ্গত কথা বলেছেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা তাজ্জত আলী খান ঘটনার আগে রাবেলকে নগদ ৪০ হাজার টাকা দেয়ার কথাও সালিশে স্বীকার করেছেন। রাবেলের পক্ষের সাক্ষী অধীর চন্দ্র বর্মণ ঘটনাস্থলে তাকে উদ্ধারের কথা বলার পাশাপাশি রাবেল তাকে ঘটনার সময় তার কাছ থেকে নগদ টাকা ছিনতাই করার কথা জানিয়েছে মর্মেও স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী প্রদান করেন।

গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষী হুমায়ুন কবিরকে সালিশের সামনে ডেকে এনে জবানবন্দী গ্রহন করার জন্য সালিশের কাছে দাবী জানানোর পরও সালিশীদের পক্ষ হতে তাকে ডাকা হয়নি। রাবেল বলেছেন আমাকে আমার দায়েরকৃত অভিযোগ প্রমানের ন্যূনতম সুযোগ দেয়া হয়নি। এমনকি আমার গুরুত্বপূর্ণ সাক্ষী হুমায়ুন কবিরকে সালিশে ডেকে এনে তার সাক্ষ্য নেয়া হয়নি। আমি আমার প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা পিতার সকল বৈধ কাগজপত্র দাখিল করে ব্যাংক থেকে ২ লক্ষ টাকা ঋণ উত্তোলন করেছিলাম। ঘটনার দিন সন্ত্রাসীরা আমাকে মেরে আমার কাছে থাকা নগদ এক লক্ষ টাকা ছিনতাই করে নিয়েছে। সালিশে আমার ছিনতাইকৃত টাকাগুলো উদ্ধারের ব্যাপারে ঘুণাক্ষরেও কোন চেষ্টা করা হয়নি।

অন্যদিকে সালিশীদের কয়েকজন আমার দায়েরকৃত অভিযোগের অন্যতম আসামী মুরারীচাঁদ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শীতেশ রঞ্জন তালুকদারের পক্ষে পত্রিকায় প্রতিবাদ প্রকাশের পাশাপাশি সালিশেও তার পক্ষে তাদের অবস্থান সুস্পষ্ট করেছেন। বিধায় আমি এই রায় প্রত্যাখ্যান করেছি। আমি ন্যায় বিচার পাওয়ার জন্য আমার প্রাণান্তকর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবো। রোববার বিকেলে সালিশের সভাপতি পলাশ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল কাইয়্যুম মাস্টারের কাছে রাবেল তালুকদার স্বশরীরে হাজির হয়ে এ রায় তার পক্ষে কোনক্রমেই মানা সম্ভব নয় বলে জানান।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: