সর্বশেষ আপডেট : ৩ ঘন্টা আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সুনামগঞ্জে বড় ভাইকে ভারতে পাঠিয়ে ছোট ভাইয়ের থানায় জিডি

download (1)আল-হেলাল:: প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর লক্ষ্যে বড় ভাইকে ভারতে পাঠিয়ে ছোট ভাইয়ের থানায় উদ্দেশ্যমূলক মিথ্যা জিডি দায়েরের ঘটনায় সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার রঙ্গারচর ইউনিয়নের হাসাউড়া গ্রামে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

গত ১৮/৮/২০১৬ইং সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় ৯৯৬ নং জিডি দায়ের করেছেন সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার রঙ্গারচর ইউনিয়নের হাসাউড়া গ্রামের মৃত পূর্ণ চন্দ্র দেবের পুত্র চন্দন দেব। জিডিতে তিনি উল্লেখ করেন,“আমার বড় ভাই প্রবীর দেব (৪৯) কে গত ১৭/৮/২০১৬ইং তারিখ থেকে খুজে পাওয়া যাচ্ছেনা। তিনি ঐ তারিখে আমাদের ফিসারী পাহারা দেয়ার জন্য রাত অনুমাণ ৮টা ৩০ মিনিটে ঘর থেকে বেরিয়ে যান এবং সেখানেই অবস্থান করতে থাকেন। দিবাগত রাত অনুমাণ ৩.৩০ ঘটিকার পর হতে তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি”।

এ ব্যাপারে থানায় জিডি দায়েরের পর স্থানীয় একটি পত্রিকায় নিঁেখাজ সংবাদ শিরোনামে নিজের মোবাইল নম্বর দিয়ে সন্ধান চেয়ে চন্দন দেব একটি বিজ্ঞাপনও দিয়েছেন। দায়েরকৃত জিডির অভিযোগটি রোববার দুপুর ১২টায় সরজমিনে গিয়ে তদন্ত করেছেন সদর মডেল থানার এসআই মোঃ সাইদুজ্জামান।

অনুসন্ধানে জানা যায়,গত ১৭ আগস্ট বুধবার রাত ১০টা হতে রাত আড়াইটা পর্যন্ত চন্দন দেবের বাড়িতে ১৫ জন লোকের একটি গোপন শলা পরামর্শ সভা বসে। ঐ সময় প্রনয় দেব (০১৭২৩৬০২১৬৫ ) ও চন্দন দেব (০১৭১৭৯৩০৩৪২) এ দুই সহোদর এবং প্রতিবেশী প্রফুল্ল পাল (০১৭৩৯৪৭৭৩৫৬) তাদের স্ব স্ব মোবাইল ফোনের দ্বারা কল করে প্রায় ১৫ জন লোককে নিজেদের বাড়িতে সমবেত করেন। রাত ১২টা পর্যন্ত কথিত নিখোঁজ প্রবীর দেবও স্বশরীরে গোপন শলা পরামর্শ সভায় উপস্থিত ছিলেন। মোবাইলকারী ৩ ব্যাক্তির কল রেজিস্ট্রার তল্লাশী করলে আসল রহস্য উদঘাটিত হবে বলে চ্যালেঞ্জ করেছেন গ্রামবাসী। এছাড়া হাসাউড়া গ্রামের মৃত হাজী কদম আলীর পুত্র আব্দুল বশির, পার্শ্ববর্তী বাংলাভিটা গ্রামের মৃত আলী আহমদের পুত্র আনোয়ার হোসেন ও মোহাম্মদ আলীর পুত্র আশকর আলী এ ৩ ব্যাক্তি রাত আড়াইটার আগে ভারত বাংলাদেশের মধ্যবর্তী অনুমাণ ৫০ গজের মধ্যে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে বাংলাভিটা গ্রামের আশকর আলীর দোকানের পশ্চিমপার্শ্বে কাঁধে একটি কাপড়ের ব্যাগ ঝুলিয়ে এবং হাতে টর্স লাইট জ্বালিয়ে ভারতের উদ্দেশ্যে কথিত নিখোঁজ প্রবীর দেবকে হেটে যেতে দেখেন।

নিজেদের বসত বাড়ি থেকে ১ কিলোমিটার দূরবর্তী একটি চোরাই গুহা দিয়ে ভারতের শিলং জেলার বালাট থানাধীন পূর্ননগর গ্রামে আত্মীয় স্বজনদের বাড়িতে প্রায়ই আসা যাওয়া করেন চন্দন দেব ও তার ভ্রাতাগন। উল্লেখ্য সুনামগঞ্জ সদর থানায় দায়েরকৃত জিডির বাদী চন্দন দেব ও তার ভ্রাতাগং জাল ডকুমেন্ট সৃজন করে সুনামগঞ্জ সেটেলম্যান্ট অফিসে ভূমি জালিয়াতির মাধ্যমে অন্যের জায়গা ভাগিয়ে নিতে ভাড়াটে সন্ত্রাসীদের দ্বারা সরকারী অফিসে দাঙ্গাহাঙ্গামা সংগঠিত করলে সুনামগঞ্জ সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর নির্দেশে সদর থানা পুলিশ প্রশাসন কর্তৃক ধৃত হয়ে দীর্ঘদিন কারাভোগ করেন। পরে একই গ্রামের মৃত হেমেন্দ্র তালুকদারের পুত্র শংকর দাশ বাদী হয়ে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এছাড়াও জাল স্মরনলিপির মাধ্যমে অন্যের ক্রয়কৃত জায়গা হাতিয়ে নেয়ার অপচেষ্টায় তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় পত্র পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়।

এলাকাবাসী জানান,প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর লক্ষ্যেই বড় ভাইকে ভারতে পাঠিয়ে ছোট ভাই চন্দন দেব থানায় মিথ্যা বানোয়াট ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে উদ্দেশ্যমূলক জিডি দায়ের করেছেন। তারা মিথ্যা জিডির সাথে জড়িত সকলের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: