সর্বশেষ আপডেট : ৩৯ মিনিট ৫৫ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিলেটে চারদিনে তিন খুন

dailysylhetnewskhunnnনিজস্ব প্রতিবেদক ::
দেশে আলোচিত জঙ্গি বিরোধি তৎপরতায় অতীত ঢাকার চেষ্টায় যখন ব্যস্ত সমগ্র সিলেটবাসী তখন মাত্র চারদিনের মধ্যে ৩টি খুনের ঘটনা ঘটেছে। এতে চলমান সফলতাকে কিছুটা হলেও ম্লান করে দিচ্ছে। জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ বিরোধি কার্যক্রমকে গতিহীন করতে পারে। আর এ সুযোগ নিতে পারে স্বার্থবাদি জঙ্গি গোষ্ঠিরা।

সর্বশেষ শনিবার রাতে পূর্ব বিরোধের জের ধরে খুন হন নগরীর খুলিয়াপাড়ার বাসিন্দা সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক কাউন্সিলর শাহানারা বেগম শানুর স্বামী, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা তাজুল ইসলাম। এর মাত্র একদিন আগে শুক্রবার রাতে দক্ষিণ সুরমার লালাবাজারে প্রতিপক্ষের হামলায় খুন হন আজির উদ্দিন নামের একজন ব্যবসায়ী। মাত্র তিনদিন আগে প্রকাশ্য দিবালোকে সিলেট নগরীর জিন্দাবাজারস্থ এ্যালিগেন্ট শপিং সেন্টারে প্রতিপক্ষের ছুরিকাঘাতে খুন হন মুঠোফোন ব্যবসায়ী করিম বখত মামুন।

মাত্র চারদিনের মধ্যে এই তিনটি খুনের ঘটনা সিলেটবাসীর মধ্যে আতংক ছড়িয়ে দিয়েছে। অথচ, সিলেটের প্রশাসন, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, মসজিদ-মন্দিরের দায়িত্বশীল ব্যক্তিবর্গ, স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও মাদরাসার শিক্ষক, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীরা জঙ্গিবাদ আতংকে সর্বদা সতর্ক। নিয়মিত সভা-সেমিনার, মানববন্ধনে নিজেদের ও সন্তানের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বেগের কথা জানাচ্ছেন তারা। জঙ্গিবাদকে রুখে দেয়ার প্রত্যয় সর্বত্র।

এমন গুরুত্বপূর্ণ সময়ে এই তিনটি ঘটনা প্রশাসনের দৃষ্টি ভিন্নদিকে প্রবাহ ও তাদেরকে ব্যস্ত করে তুলতে পারে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। তারা বলছেন, দেশের ক্রান্তিলগ্নে ব্যক্তিবিরোধে প্রতিশোধ প্রবণতা চাঙ্গা হচ্ছে। যার সাথে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির অঙ্গসংগঠনের ব্যক্তির সংশ্লিষ্টতার অভিযোগও রয়েছে। এটা কোন অবস্থায় কাম্য নয়।

khunnnndailysylhetশনিবার দিবাগত রাত পৌনে ১০টার দিকে খুলিয়াপাড়ায় পুলিশ ফাঁড়ির পাশে তাজুল ইসলামকে কুপিয়ে ফেলে যায় প্রতিপক্ষের লোকজন। তাকে উদ্ধার করে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে তিনি সেখানে মারা যান।

নিহত তাজুলের ভাই নূরুল ইসলাম জানান, পূর্ব বিরোধের জের ধরে তার ভাইয়ের উপর হামলা করা হয়েছে। হামলাকারীদের মধ্যে হারিছ ও মারুফ নামের দুই সন্ত্রাসী ছিল বলে তিনি দাবি করেন।

সিলেট কোতোয়ালী থানার ওসি সুহেল আহমদ জানিয়েছেন, সাবেক কাউন্সিলর শানুর স্বামীকে কে বা কারা কুপিয়েছে। হাসপাতালে তিনি মারা গেছে। হামলাকারিদের চিহ্নিত ও গ্রেফতার করতে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে।

প্রসঙ্গত, এরআগে ২০১৪ সালের ২৬ জানুয়ারি তাজুল ইসলামের ছেলে সোহানকে কুপিয়ে হত্যা করে প্রতিপক্ষের লোকজন। একই বছরের সেপ্টেম্বর মাসের মাঝামাঝিতে খুন হন সোহান হত্যা মামলার আসামি ও ছাত্রদল নেতা কামাল হোসেন। কামাল হত্যার জন্য তাজুল ইসলাম ও শাহানারা শানুকে দায়ি করা হয়।

এদিকে, শনিবার শনিবার বাদ আসর বিশ্বনাথ উপজেলার অলংকারী ইউনিয়নের টেংরা গ্রামের বড় জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে নিহত আজির উদ্দিনের অনুষ্ঠিত জানাযার নামাজ শেষে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। জানাযা শেষে স্থানীয়রা দায়িদের গ্রেফতার ও শাস্তি দাবিতে কর্মসূচি দিয়েছেন। রোববার সিলেট-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধের কথা রয়েছে।

গত বুধবার জিন্দাবাজারে ছাত্রলীগ নেতা সুলেমানের নেতৃত্বে ব্যবসায়ী মামুনকে ছুরিকাঘাত করা হয়। এর প্রতিবাদে সোচ্চার রয়েছেন সিলেট নগরীর ব্যবসায়ীরা।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, এভাবে একের পর এক ঘটনা চলতে থাকলে সিলেটে সুযোগ নিতে পারে অপরাধিরা। গুলশানের মতো আরো বড় ঘটনার জন্ম হতে পারে এসব বিশৃংখলার সুবাদে।

তাই সবাইকে এখনই সচেতন হতে হবে। জাতীয় স্বার্থে ব্যক্তি বিরোধকে পেছনে রেখে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশের জন্য কাজ করতে হবে। কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর এখনই সময়।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: