সর্বশেষ আপডেট : ১১ মিনিট ৩ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

রিও কাঁপাচ্ছেন `বাংলাদেশি কন্যা`!

ban20160820140837নিউজ ডেস্ক :: বাবার বাড়ি বাংলাদেশের রাজশাহী; কিন্তু তিনি এখন আর বাংলাদেশের নন, একজন পুরোদস্তুর রাশিয়ান। সাধারণ একজন রাশিয়ান হলেও কথা ছিল। তিনি দেশটির জনপ্রিয় ক্রীড়া ইভেন্ট রিদমিক জিমন্যাস্টিক্সের একজন চ্যাম্পিয়ন। রিও অলিম্পিকে গিয়েছেন সোনা জয়ের লক্ষ্য নিয়েই। নাম মার্গারিটা মামুন। ডাক নাম রিটা। অনেকেই তাকে ডাকেন ‘দ্য বেঙ্গল টাইগার’ নামে।

ডোপ পাপে যখন কলঙ্কিত রাশিয়া, তখন সেটা স্পর্শ করতে পারেনি মার্গারিটাকে। তিনি ঠিকই উড়ে গেছেন রিওতে এবং রিদমিক জিমন্যাস্টিক্সে সোনা জয়ের লক্ষ্যেই লড়াই করে যাচ্ছেন এবং অল-অ্যারাউন্ড ব্যক্তিগত ইভেন্টে ২৬ জন জিমন্যাস্টের মধ্যে প্রথম জায়গাটিই অর্জন করলেন মার্গারিটা।

রাশিয়ান আয়ানা কুদ্রিয়াভসেভা তার ট্রেনিং পার্টনার, খুব কাছের বন্ধু। তার সাথে বরাবরই তীব্র প্রতিযোগিতা হয় মার্গারিটার। ইয়ানা তিনবারের অল-অ্যারাউন্ড বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন। বর্তমান চ্যাম্পিয়নও; কিন্তু বর্তমান বিশ্বে বাংলাদেশের মেয়ে মার্গারিটাকেই ধরা হচ্ছে রিদমিক জিমন্যাস্টিক্সের সেরা। সেটা তিনি রিওতেও প্রমাণ করে চলেছেন।

অলিম্পিকের হিটে (প্রাথমিক বাছাই) কুদ্রিয়াভসেভাকে দ্বিতীয় স্থানে ঠেলে দিয়ে শীর্ষে থেকেই ফাইনালে উঠে গেলেন মার্গারিটা। ১৮ বছরের ইয়ানাকে এর আগেও দু’বার হারানোর রেকর্ড আছে মার্গারিটার। এখন ফাইনালে আসল লড়াইয়ের অপেক্ষা। গেমসের শেষদিন, অথ্যাৎ আগামীকাল সোনার লাড়াইয়ে মাঠে নামবেন তিনি।

হিটে নিজের চার ইভেন্ট হুপে ১৮.৮৩৩, বলে ১৯.০০০, ক্লাবে ১৭.৫০০ ও রিবনে ১৯.০৫০- একক অলরাউন্ডে মোট ৭৪.৩৮৩ পয়েন্ট পেয়ে শীর্ষে থেকেই শেষ করেছেন বিশ্ব র্যাং ঙ্কিংয়েও এক নম্বরে থাকা রাশিয়ান এই জিমন্যাস্ট। প্রতিদ্বন্দ্বী ইয়ানার ৭৩.৯৯৮। তৃতীয় স্থানে থাকা ইউক্রেনের গানা রিজাতদিনোভার পয়েন্ট ৭৩.৯৩২।

মার্গারিটা মামুন রাশিয়ান না হয়ে হতে পারতেন বাংলাদেশেরও। এ দেশের হয়েও খেলতে পারতেন অলিম্পিকে। জুনিয়র হিসেবে বাংলাদেশে এসে দেশের প্রতিনিধিত্বও করেছিলেন খুব অল্প সময়। এরপরই তিনি হয়তো ভেবেছিলেন, জিমন্যাস্টিক্সে ভালো করতে হলে বাংলাদেশে নয়, রাশিয়া থেকেই সম্ভব। এ কারণেই রাশিয়কে বেছে নেন তিনি।

৫ ফুট ৭ ইঞ্চি উচ্চতার মার্গারিটার জন্ম রাশিয়ার মস্কোয়। বাবার সূত্রে বাংলাদেশি। বাবা আব্দুল্লা আল মামুন মেরিন ইঞ্জিনিয়ার। তার বাড়ি রাজশাহী। আর মা হলেন রুশ। মার্গারিটার মা আনাও রাশিয়ার সাবেক রিদমিক জিমন্যাস্ট। মায়ের পথে হেঁটেই বিশ্বে রাশিয়াকে তুলে ধরছেন মার্গারিটা। এখন অলিম্পিক শ্রেষ্ঠত্বের পথেও।

রিদমিক জিমন্যাস্টিকসে বিশ্ব রেকর্ডটা মার্গারিটার অধিকারেই। ২০১৬ বাকু বিশ্বকাপে চারটি ইভেন্টে মোট ৭৭.১৫০ পয়েন্ট পেয়ে করেন এই রেকর্ড। এবার রিও অলিম্পিকে তাঁর শুরুটা হয়েছে দুর্দান্ত। সোনার পদক শেষ পর্যন্ত মার্গারিটার গলায় উঠলে তাতে গর্বিত হতে পারে বাংলাদেশও।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: