সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ৪২ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মানুনকে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাত করেন সোলেমান : সিসি টিভির ভিডিও ফুটেজ পুলিশের হাতে

sylhetnewspickorimboktmamun 77স্টাফ রিপোর্টার ::
সিলেট জেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সহসভাপতি মো. সোলেমান হোসেন চৌধুরী তুচ্ছ ঘটনায় সৃষ্ট বাদানুবাদের জের ধরে প্রকাশ্যে নিজ হাতেই তিন বার ছুরিকাঘাত করেন নগরীর জিন্দাবাজারের এ্যালিগ্যান্ট শপিং সেন্টারের মুঠোফোন ব্যবসায়ী করিম বখত মামুনকে। ছুরিকাঘাতের পর সহযোগীদের নিয়ে বীরদর্পে মোটরসাইকেলে করে ওই স্থানও ত্যাগ করেন- এ দৃশ্য সিসি টিভির ভিডিও ফুটেজে ধারণ হয়েছে। সে ফুটেজ এখন পুলিশের হাতে।

গত মঙ্গলবার বেলা ২টার দিকে ঘটনাটি ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় মামুনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। ছুরিকাঘাতে তার ফুসফুসে ছিদ্র্র হয়ে যাওয়ার পাশাপাশি প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। ফলে ওইদিন রাতেই চিকিৎসারত অবস্থায় মারা যান তিনি। তার মৃত্যুর ঘটনায় ছাত্রলীগ নেতা সোলেমানসহ সাত জনকে আসামি করে সিলেট মহানগর পুলিশের কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন মামুনের বাবা আনোয়ার বক্স।

এজাহারে বলা হয়েছে, গত মঙ্গলবার বেলা আড়াইটার দিকে এ্যালিগ্যান্ট শপিং সেন্টারের পার্কিয়ের প্রবেশমুখে নিজের মোটরসাইকেল রাখেন আসামি ছাত্রলীগ নেতা সোলেমান ও তার সহযোগী জাবেদ। মার্কেটের প্রহরী মোটরসাইকেলটি পার্কিংয়ে রাখার অনুরোধ করলে তারা তাকে মারধর করেন।
এসময় মামুন মার্কেট থেকে বেরিয়ে এসে নিরাপত্তা প্রহরীকে মারধর না করার অনুরোধ করলে সুলেমানরা ক্ষিপ্ত হয়ে তাকে ঘিরে ধরেন। এক পর্যায়ে ২ নম্বর আসামি জাবেদ মামুনকে ধরে রাখলে ছাত্রলীগ নেতা সোলেমান তার সাথে থাকা ছুরি দিয়ে তার বুক লক্ষ্য করে আঘাত করেন। পরে পেট লক্ষ্য করে আঘাত করতে চাইলে মামুনের বাম হাতের কনুইয়ে লেগে জখম হয়।

সর্বশেষ প্রাণ বাঁচাতে মামুন দৌড়ে পাশের গ্যালারিয়া শপিং মলের সামনে গেলে তারা তাকে দৌড়ে ধরে ফেলেন। মৃত্যু নিশ্চিত করতে সোলেমান মামুনের পিঠে তৃতীয় বারের মতো উপর্যুপুরি ছুরিকাঘাত করেন।
ডাক্তার বলেন, ওই আঘাতটি মামুনের ফুসফুস পর্যন্ত বিদ্ধ হয়ে গুরুতর ক্ষতের সৃষ্টি করে।
কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহেল আহমদ বলেন, গত বৃহস্পতিবার রাতে মানুন হত্যার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামার এজহারে দুজনের নামোল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। নামোল্লেখকৃত দুজন হচ্ছেন, জেলা ছাত্রলীগের স্থগিত কমিটির সহসভাপতি ও সম্প্রতি চিরতরে বহিষ্কৃত সোলেমান হোসেন চৌধুরী এবং জাবেদ। তিনি বলেন, ঘাতকদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: