সর্বশেষ আপডেট : ৬ মিনিট ২১ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ফিলিস্তিনি শিশুর প্রতি ইসরাইলি সেনার বর্বরতা (ভিডিও)

150319_1আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ফিলিস্তিনের পশ্চিমতীরে ইসরাইলি সৈন্য ও ইহুদি বসতিস্থাপনকারীদের অত্যচারের মাত্রা বেড়েই চলেছে। তারা জোরপূর্বক ফিলিস্তিনিদের সেখান থেকে উচ্ছেদের পাশাপাশি তাদের ছোট ছোট শিশুদের প্রতিও নির্মম অত্যাচার শুরু করেছে। সাম্প্রতি এমনই এক ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পরেছে।

ওই ভিডিওতে দেখা যায়, আট বছর বয়সী ফিলিস্তিনি এক মেয়ে শিশু বাইসাইকেল নিয়ে তাদের নিজ ভূমিতে খেলা করছিল। এসময় ইসরাইলি সেনাবাহিনীর এক কর্মকর্তা পা দিয়ে শিশুটিকে আঘাত করার পরে তার বাইসাইকেল জোরপূর্বক ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে। এ সময় আরেক সেনা অস্ত্র হাতে এগিয়ে এলে মেয়েটি ভয়ে সেখান থেকে দৌঁড়াতে থাকে।

hqdefault-2শিশুটির মা জানান, এটাই প্রথম নয়, এর আগেও একাধিকবার তার অন্য সন্তানেরা ইসরাইলি সেনাদের হাতে আক্রান্ত হয়েছে।
আনওয়ার বুরকান নামে ওই মেয়ে শিশুটি হেবরন থেকে ‘আরটি নিউজ’ নামে একটি সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘আমি সাইকেলটি নিয়ে সেখানে যাওয়া মাত্রই ইসরাইলি সেনারা আমার পায়ে আঘাত করে। পরে আমার সাইকেলটি লাথি দিয়ে ফেলে দেয়। আমি আর সেখানে যেতে চাই না কারণ তারা আমার সাইকেলটি নেয়ে নিবে।’
পশ্চিম তীরের হেবরন শহরের ওই স্থানটিতে ইসরাইল বিতর্কিত বেড়া নির্মাণ করে ফিলিস্তিন ও ইসরাইলকে পৃথক করেছে।
শিশুটি বলে, ‘এটা আমাদের জায়গা। তবুও তারা আমাদের সেখানে খেলতে দেয় না। সেখানে লোহার প্রাচীর তৈরি করা হয়েছে যাতে আমরা খেলতে যেতে না পারি।’

আনওয়ারের মা রানিয়া বুরকান জানান, ওই ঘটনার পর থেকে মেয়েটি ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে। এজন্য তাকে ডাক্তারের কাছেও নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।
মেয়েটির মা বলেন, ‘ওই ঘটনার পর থেকে রাতে ঘুমের মাঝে সে প্রায়ই ভয়ে কেঁপে ওঠে, চিৎকার করে এবং প্রায়ই অচেতন হয়ে যায়। সে ভয় আর প্রচ- জ্বরে ভুগছে। একারণে তাকে ডাক্তারে নিকটও নিয়ে যাওয়া হয়েছিল।’
ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের দায়ী করে তিনি আরো জানান, আনওয়ার এ ধরনের ঘটনায় প্রথম মুখোমুখি হলেও তার অন্য সন্তানেরা একাধিকবার ইসরাইলি সেনাদের আক্রমণের শিকার হয়েছে এবং এমনটি করতে বসতি স্থাপনকারীরাও ইসরাইলি সেনাদের উস্কে দিয়ে থাকে।

বুরকান বলেন, ‘তারা আমার আরেক ছেলেকে নির্দয়ভাবে আঘাত করে তার হাত ভেঙ্গে দেয়। এতে তার হাতে প্রচ- রক্তক্ষরণ হয়েছিল। তারা একটি বড় পাথর ছুড়ে মারলে সেটি তার নাকে আঘাত করে। আমিও তাদের দিকে পাথর ছুড়ে মারতে গিয়েছিলাম কিন্তু পারিনি।’
তিনি আরো বলেন, ‘সেসময় আমি অন্যান্য বসতি স্থাপনকারীদেরকেও ফিলিস্তিনি ছেলেদের দিকে পাথর নিক্ষেপ করতে দেখেছিলাম। যদিও ফিলিস্তিনি ছেলেরা তাদের (বসতি স্থাপনকারীদের) কিছুই করেনি।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের জমি থেকে জোর করে উচ্ছেদ করতেই ইসরাইলিরা একাজটি করছে। তারা আরবদের পছন্দ করে না এবং আমাদের ছেলেমেয়েরা প্রাণে বাচুঁক এবং স্বাভাবিকভাবেই খেলাধুলা করুক এটাও তারা পছন্দ করে না।’
মেয়েটির সঙ্গে ইসরাইলি সৈন্যদের এই বর্বরতার দৃশ্যটি পাশের ইব্রাহিম মসজিদ থেকে ভিডিও করেন আবু মেইলা নামের এক ব্যক্তি।
যদিও ইসরাইলি সীমান্ত পুলিশ জানিয়েছে, তারা ওই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিষয়ে তদন্ত করছে। তাদের একজনকে ইতিমধ্যে দায়িত্ব থেকে সাসপেন্ড করা হয়েছে।
এ ব্যপারে একজন মানবাধিকার কর্মী ‘আরটি নিউজকে’ জানান, ঘটনাটি প্রকাশ পাওয়ার কারণেই কেবল এ পদক্ষেপটি নেওয়া হয়েছে।

জেরুজালেম লিগ্যাল এইড এবং হিউম্যান রাইটস সেন্টারের জেনারেল ডিরেক্টর ইসাম অরোরি আরটি নিউজকে বলেন, ‘সেখানে একটি ঘটনার কোনো ফুটেজ প্রকাশ পেলেই কেবল ইসরাইলি পুলিশ সাধারণত তদন্ত করতে নামে। তারা প্রমাণ করতে চেষ্টা করে যে, তারা ব্যবস্থা নিচ্ছে। কিন্তু বাস্তবে এসব লোক দেখানো। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এসব তদন্ত কেবলই প্রথাগত।’
তিনি আরো বলেন, ‘এসব ঘটনার কেবল ২ শতাংশের তদন্ত করে থাকে ইসরাইলিরা।’
তিনি বলেন, ‘একটি কোনো পৃথক বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। এটা ইসরাইলি নির্যাতন এবং ফিলিস্তিনিদের বিরুদ্ধে হয়রানির ধারাবাহিক অংশ। যা ইসরাইলি পুলিশ, সৈন্য ও শহরে ইহুদি বসতি স্থাপনকারীদের দ্বারা নিয়মিতই সংঘটিত হচ্ছে।-আরটি নিউজ

 

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: