সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
বুধবার, ২৮ জুন, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১৪ আষাঢ় ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

মসজিদ নিয়ে দ্বন্দ্ব, রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা

1470816612নিউজ ডেস্ক: নওগাঁর রাণীনগর উপজেলায় শত বছরের পুরাতন মসজিদের জায়গা নিয়ে মারপিটসহ পাল্টা-পাল্টি মামলা দায়েরের ঘটনা ঘটেছে। যে কোনো সময় উভয় পক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা করছেন এলাকার বিশিষ্টজনরা।

স্থানীয়রা জানায়, উপজেলার মিরাট ইউপি’র জালালাবাদ গ্রামে প্রায় ১৮০টি পরিবারের সমন্বয়ে প্রায় শত বছর ধরে তুড়ুক বাড়িয়া মৌজায় ২৬৫ নং খতিয়ানে ২৪৪৪ দাগে একটি মসজিদ নির্মাণ করেন গ্রামবাসী। তারা সেখানে নামাজ আদায় করে আসছিল। ২০০২ সালে একই সমাজের প্রভাবশালী পরিবার মৃত গোলাম রহমানের ছেলেরা আবুল কালাম আজাদ গং মসজিদের জায়গার মালিকানা দাবি করে বসলে মসজিদের পক্ষে সম্পাদক আব্দুস ছাত্তার বাদী হয়ে ২০০৮ সালে মান্দা সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর থেকেই শুরু হয় আবুল কালাম আজাদ গং বনাম মুসল্লি¬দের মধ্যে দ্বন্দ্ব।

মসজিদের সভাপতি ফরহাদ হোসেন জানান, মামলা চলাকালীন অবস্থায় চলতি বছরের ১৫ জুলাই মসজিদে আসরের আযান দেয়াকে কেন্দ্র করে মারপিটের ঘটনায় ইমাম সাহেবসহ বেশ কিছু মুসল্লি আহত হলে ইমাম সাহেবের ছেলে মহিউদ্দিন আলমগীর বাদী হয়ে রাণীনগর থানায় একটি মামলা করেন। এ ঘটনায় আবুল কালাম আজাদ গং মান্দা থানায় ও আদালতে পৃথকভাবে গ্রামবাসীকে আসামী করে দুটি মামলা দায়ের করেন।

আবুল কালামের ছোট ভাই রেজওয়ান বলেন, ‘আমরা জমি কিনেছি তার সব কাগজপত্র আছে। এছাড়াও নতুন করে মসজিদঘর নির্মাণ করতে যতটুকু জায়গা প্রয়োজন হবে আমি জায়গাসহ সিকি পরিমাণ অর্থও দিব।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এলাকার বিশিষ্ট কয়েকজন বলেন, ‘মসজিদের জমি ২৪ শতাংশ। চার শতাংশ জায়গায় মসজিদে নির্মাণ করা রয়েছে। বাকি ২০ শতাংশ জমি অবৈধভাবে দখলে নিতে আবুল কালাম আজাদ গং পায়তারা করছে। জমি কেনার কাগজপত্র বা কার কাছ থেকে তারা এ জমি কিনলেন এসব কথা তাদের মাথায় আসছে না। জমি কেনা ও কাগজপত্রের ব্যাপারটি সম্পূর্ণ জালিয়াতি।’

তারা আরো বলেন, বিবদমান মসজিদ নিয়ে গ্রামের যে অবস্থা তাতে প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ প্রয়োজন। যে কোনো সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বাধার আশঙ্কা রয়েছে।

রাণীনগর থানার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই শফিকুর রহমান বলেন, ‘উভয় পক্ষ জামিনে আছে। যেহেতু মসজিদের ব্যাপার যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বিষয়টি নিরসনের চেষ্টায় আছি।’

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: