সর্বশেষ আপডেট : ২১ মিনিট ৩৯ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

হুমকির মুখে ৯০ কোটি অ্যান্ড্রয়েড ফোন!

full_1518246586_1470754871তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক:: বিশ্বের প্রায় ১০০ কোটি অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ‘কোয়াডরুটার’ নামের ভাইরাসটির আক্রমণ ঘটেছে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। এটি একটি মারাত্মক ভাইরাস। অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত স্মার্টফোন ও ট্যাব এর শিকার।

এর ব্যবহারে হ্যাকাররা ফোনের ক্যামেরাসহ যাবতীয় ডেটায় প্রবেশ করতে পারবে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। ইন্টারন্যাশনাল সাইবার সিকিউরিটি কম্পানি চেক পয়েন্ট এসব তথ্য জানায়। কোয়াডরুটার-এর আক্রমণ ঘটেছে বলেই সন্দেহ করছেন তারা।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়, কোয়ালকম চিপ দিয়ে নির্মিত বিশ্বের ৯০ কোটি ফোন হুমকির মুখে রয়েছে। চেক পয়েন্টের হেড অব মোবিলিটি প্রোডাক্ট ম্যানেজমেন্ট মাইকেল শাওলভ এ সংক্রান্ত সন্দেহের কথা দুই সপ্তাহ আগেই জেডডিনেট নামের একটি ওয়েবসাইটে জানান দেন। বলেন, এই মুহূর্তে পৃথিবীতে কারো স্মার্টফোন নিরাপদ নয়। সমস্যা দূরীকরণের ক্ষেত্রে কোয়ালকম ও গুগলের মধ্যে সমন্বয়কারীর ঘাড়ে দায় চাপে।

উদাহরণ হিসাবে বলা যায়, একজন আক্রমণকারী কারো ফোনে কোনো অ্যাপ ডাউনলোড করার জন্য একটি লিঙ্ক দিতে পারেন। এই অ্যাপটি ইনস্টল হতে কোনো পারমিশন লাগবে না। এর মাধ্যমে হ্যাকার ফোনের ‘রুট’ অ্যাকসেস পাবেন। অর্থাৎ, তারা এর মাধ্যমে ফোনের সব ডেটা দেখতে পারবেন এবং ক্যামেরা ও মাইক্রোফোনের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ করবেন।

কোয়ালকম জানায়, তারা এ বিষয়ে গুগলের সঙ্গে একটি উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। আগামী মাসেই হয়তো আপডেটের মাধ্যমে সমস্যার সমাধান ঘটবে। গুগলের নেক্সাস ফোন সবার আগে এই আপডেট পাবে। পরে অন্যান্য ফোনে আসবে।

কোয়াডরুটার আক্রমণের ক্ষেত্রে হ্যাকার পছন্দের সম্ভাব্য ফোনগুলো হতে পারে ব্ল্যাকবেরি প্রিভ এবং ডিটেক৫০, নেক্সাস ৫এক্স, নেক্সাস ৬, নেক্সাস ৬পি, এলজি জি৪, এলজি জি৫, এলজি ভি১০, সনি এক্সপেরিয়া জেড আল্ট্রাম, এইচটিসি ওয়ান, এইচটিসি এম৯, এইচটিসি ১০, ব্ল্যাকফোন ১ এবং ব্ল্যাকফোন ২।

এ ছাড়া আমেরিকার ফেডারেল কমিউনিকেশনস কমিশন এবং ফেডারেল ট্রেড কমিশন এ মাসের শুরুতেই অ্যাপল, গুগল, ব্ল্যাকবেরি, এইচটিসি, মটোরলাসহ বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় ফোন নির্মাতাদের নিরাপত্তাব্যবস্থা ঠিকঠাক করতে চিঠি দিয়েছে।

কোয়ালকমের আরেক কর্মকর্তা জানান, নিরাপত্তাব্যবস্থা নিশ্চিতকরণ আমাদের অন্যতম লক্ষ্য। গবেষকদের মাধ্যমে আমরা এই হুমকি সম্পর্কে সচেতন। এ বছরের ফেব্রুয়ারি ও এপ্রিলের মধ্যে হুমকি সম্পর্কে তথ্য আসে। এপ্রিল থেকে জুলাইয়ের মধ্যেই সবার নিরাপত্তার জন্যে ৪ ধরনের ব্যবস্থাও গ্রহণ করা হয়েছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: