সর্বশেষ আপডেট : ৫২ মিনিট ২৫ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সেই নববধু দিপালীর পাশে প্রশাসন

full_372323820_1470668250নিউজ ডেস্ক: জিন-ভূতের আসরের অজুহাতে শেকলে বেঁধে রাখা গৃহবধূকে উদ্ধার করেছে গাইবান্ধা সদর উপজেলা প্রশাসন। গতকাল রবিবার দুপুরে উদ্ধারের পর চিকিৎসার জন্য তাকে গাইবান্ধা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গাইবান্ধা সদর উপজেলার বোয়ালি ইউনিয়নের খামার চান্দের ভিটা গ্রামের রিকশা-ভ্যানচালক সুশীল চন্দ্রের মেয়ে দিপালী ২০০২ সাল থেকে অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করেন। তা দেখে গ্রামের লোকজন বলাবলি করত, দিপালীকে জিন-ভূতে ধরেছে।

তখন স্থানীয় ফকির-কবিরাজের কাছে তার চিকিৎসা করানো হয়। একপর্যায়ে এলাকাবাসীর পরামর্শে গত বৈশাখে তাকে বিয়ে দেওয়া হয়। তখন মেয়ে জামাইকে ২০ হাজার টাকা যৌতুকও দেওয়া হয়। মাস দুই ভালোই কেটেছে দিপালীর সংসার। কিন্তু কিছুদিনের মধ্যে দিপালী অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করেন।

দিপালীর বাবা সুশীল চন্দ্র বলেন, ‘গত ১ আগস্ট দিপালীর স্বামী গণেশ চন্দ্র তাঁকে আমাদের বাড়িতে রেখে যায়। এরপর মেয়ের ছোটাছুটি ও অস্বাভাবিক আচরণ দেখে তার হাত-পা বেঁধে পায়ে ডাণ্ডাবেড়ি পরাই।’

দুঃখ করে তিনি বলেন, ‘রিকশা চালিয়ে কোনো রকমে পাঁচ সদস্যের সংসার চালাই। টাকার অভাবে মেয়ের চিকিৎসা করাতে পারিনি।’

গাইবান্ধা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল মমিন খান জানান, ডাণ্ডাবেড়ি পরিয়ে দিপালী রানীকে আটকে রাখার খবর পেয়ে রবিবার দুপুরে তাকে উদ্ধার করা হয়েছে। পরে চিকিৎসার জন্য তাকে গাইবান্ধা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চিকিৎসায় তাঁকে স্বাভাবিক জীবনে ফেরানো সম্ভব বলে জানিয়েছে চিকিৎসক। এ ক্ষেত্রে তাকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা হবে।

সূত্র: কালের কণ্ঠ

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: