সর্বশেষ আপডেট : ১ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

ছাতকের গোবিন্দগঞ্জে ছাত্রদলের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ : পুলিশসহ আহত ২০, গ্রেফতার ১

2.-daily-sylhet-sanggarsho-newsছাতক প্রতিনিধিঃ ছাতকের গোবিন্দগঞ্জে ছাত্রদলের বিবদমান দু’গ্রুপের সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের অন্তত ২০ নেতা-কর্মী আহত হয়েছে। প্রায় দু’ঘন্টা ব্যাপী দফায়-দফায় সংঘর্ষ চলাকালে ভাংচুর করা হয়েছে আল-আমিন ফিলিং ষ্টেশন, দু’টি দোকানকোটা ও পরিজা ম্যানশন নামের একটি মার্কেট। সংঘর্ষের সময় প্রতিপক্ষের একটি মোটরসাইকেলেও অগ্নি সংযোগ করা হয়। সংঘর্ষের সময় সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের উভয় পাশে যাত্রী ও মালবাহী গাড়ি আটকা পড়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি করে। নিজ গ্রুপে কর্মী সংগ্রহকে কেন্দ্র করে রোববার দুপুরে সাবেক এমপি কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন নেতৃত্বাধীন উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি মতিউর রহমান রুমান গ্রুপ ও বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান চৌধুরী নেতৃত্বাধীন উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক গোলাম হোসেন সাকিল গ্রুপের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছাত্রদলের রুমান গ্রুপ থেকে দু’জন কর্মী শাকিল গ্রুপে যোগ দেয়া নিয়ে ক’দিন ধরে উভয় গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিল।

রোববার দুপুরে মিজানুর রহমান চৌধুরী পুনরায় বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় তাকে স্বাগত জানিয়ে উপজেলা ছাত্রদলের যুগ্ম-আহবায়ক ফয়ছল আহমদ সুমনের নেতৃত্বে আল আমিন ফিলিং ষ্টেশনের সামনে থেকে স্বাগত মিছিল বের করার প্রস্তুতি নিলে পূর্ব বিরোধের জের ধরে ছাত্রদলের প্রতিপক্ষ গ্রুপ তাদের উপর হামলা চালায়। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ছাত্রদলের উভয় গ্রুপের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ বেধে যায়। দফায়-দফায় সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় গোটা এলাকা পরিনত হয় রণক্ষেত্রে। সংঘর্ষ চলাকালে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি করে। এক পর্যায়ে ছাত্রদলের রুমান গ্রুপ, বিএনপি নেতা রুহুল আমিন মালিকানাধীন আল আমিন ফিলিং ষ্টেশনে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। এসময় ফিলিং ষ্টেশনের সামনে থাকা একটি মোটরসাইকেলও অগ্নি সংযোগ করে ছাত্রদল নেতাকর্মীরা। অপরদিকে ফয়ছল আহমদ সুমনের নেতৃত্বে ছাত্রদল কর্মীরা অবস্থান নিয়ে রুমানের মালিকানাধীন পরিজা মার্কেট ও ভিশন ডায়গনেষ্টিক সেন্টারসহ দু’টি দোকান কোটা ভাংচুর করে। খবর পেয়ে ছাতক থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছলে, বিলম্বে আসার কারনে জনতার তোপের মুখে পড়তে হয় পুলিশকে। অবশেষে স্থানীয় গন্যমান্যদের সহায়তায় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ত্রনে আনে।

প্রায় দু’ঘন্টা ব্যাপী সংঘর্ষে পুলিশসহ অন্তত ২০ ব্যক্তি আহত হয়। সংঘর্ষে ছাতক থানার এসআই তরিকুল ইসলাম, আল-আমিন ফিলিং ষ্টেশনের ক্যাশিয়ার বাসু দেব, সেলসম্যান সালেহ আহমদ, রাহুল আহমদ, শাহীন আহমদ, গোবিন্দগঞ্জ সিএনজি ষ্ট্যান্ডের সাধারন সম্পাদক ইজ্জাদ আলী, ভিশন ডায়গনেষ্টিক সেন্টারের ম্যানেজার মানিক মিয়া, ছাত্রদলের সুমন মিয়া, রইছ উদ্দিন, মোজাম্মেল হক, আল আমিন, ফয়ছল আহমদসহ অন্যান্য আহতদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে আব্দুল মোমিন নামের এক ছাত্রদল নেতাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি মতিউর রহমান রুমান জানান, বিএনপির নব গঠিত কমিটির সিলেট বিভাগের নেতৃবৃন্দকে স্বাগত জানিয়ে মিছিল বের করার প্রস্তুতি নিলে প্রতিপক্ষ গ্রুপ আল-আমিন ফিলিং ষ্টেশন থেকে তাদের লক্ষ করে ইটপাটকেল ছুঁড়াকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়েছে। অপরগ্র“পের আহবায়ক গোলাম হোসেন শাকিল জানান, কোন উস্কানী ছাড়াই প্রতিপক্ষ গ্রুপ আল-আমিন ফিলিং ষ্টেশনে থাকা আমাদের কর্মীদের উপর হামলা করায় এ সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। ওসি আশেক সুজা মামুন জানান, পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত রয়েছে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: