সর্বশেষ আপডেট : ১১ মিনিট ১৬ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নাম পাল্টেও শেষ রক্ষা হলো না এই পিস স্কুলের

rajshahi_122994নিউজ ডেস্ক: পিস স্কুলের নাম পাল্টে ‘লিজেন্ড একাডেমি’ করেও শেষ রক্ষা হলো না প্রতিষ্ঠানটির। রাজশাহী মহানগরীর তেরখাদিয়া এলাকায় অবস্থিত জামায়াত নিয়ন্ত্রিণ এই প্রতিষ্ঠানটি বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে পুলিশ। রবিবার বিকালে নগরীর রাজপাড়া থানা পুলিশের একটি দল স্কুলটিতে গিয়ে সেটি বন্ধ করে দিতে কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে।

সন্ধ্যায় রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র ও রাজপাড়া থানা জোনের সিনিয়র সহকারী কমিশনার (এসি) ইফতেখায়ের আলম জানান, সারাদেশের পিস স্কুলগুলো বন্ধ করে দেয়ার জন্য পুলিশ সদর দপ্তর থেকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এজন্য রাজশাহীর এই স্কুলটি বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সোমবার থেকে স্কুলটি আর খুলবে না।

তিনি জানান, স্কুলের নাম পরিবর্তন করা হলেও এ স্কুল অনুমোদনের কোনো কাগজপত্র পাওয়া যায়নি। তাই স্কুল খোলা পেলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গুলশান হামলার পর অভিযোগ ওঠে জঙ্গিরা জাকির নায়েকের বক্তব্যে ‘উদ্বুদ্ধ’ হয়েছে। এই অভিযোগের ভিত্তিতে গত মাসে সরকার দেশে পিস টিভির সম্প্রচার বন্ধ করে দেয়। এরপরই সারাদেশের পিস স্কুলগুলোর বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়। ফলে যেকোনো সময় পিস স্কুল বন্ধ করে দেয়া হতে পারে-এমন আশঙ্কায় গত ১৪ জুলাই পিস স্কুলের রাজশাহীর এই শাখাটির নাম পাল্টে ‘লিজেন্ড একাডেমি’ করা হয়। পাশাপাশি পিস স্কুলের ড্রেসকোড- ছাত্রদের মাথার টুপি ও ছাত্রীদের হিজাব পরাও বন্ধ করে কর্তৃপক্ষ।

তবে গত মঙ্গলবার শিক্ষা মন্ত্রণালয় একটি চিঠি দিয়ে সারাদেশের পিস স্কুলগুলো বন্ধ করে দেয়ার জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করে। পরে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘পিস স্কুলের নাম পাল্টে ফেলা হলেও সেগুলো বন্ধ করা হবে। সরকারি অনুমোদনহীন এই স্কুলগুলোতে জঙ্গিবাদকে উৎসাহ দেয়া হয়। স্বাধীনতাবিরোধী বা জঙ্গিদের অনুসারীরা এসব স্কুলের সঙ্গে জড়িত।’

জানা গেছে, রাজশাহীর পিস স্কুলটি চালাতেন জামায়াতের কিছু লোকজন। ইসলামী ব্যাংকের রাজশাহী শাখার কর্মকর্তা মোর্সেদ জামান স্কুলটির দেখভাল করতেন। স্কুলটির অধ্যক্ষ আলাউদ্দিনের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জে। তিনি জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। নির্বাহী কর্মকর্তা তৌফিকুর রহমানও জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।

স্কুলটিতে শিক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল ২৬০ জন। দুই শিফটে স্কুলটি সকাল সাড়ে ৮টা থেকে দুপুর ১টা এবং দুপুর ১টা থেকে ৪টা পর্যন্ত চলত। নিজস্ব আবাসিকেরও ব্যবস্থা ছিল স্কুলটির। আর শিক্ষক ছিলেন ২০ জন।-ঢাকা টাইমস

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: