সর্বশেষ আপডেট : ৪ ঘন্টা আগে
রবিবার, ১১ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কুলাউড়ায় নজরকাড়া সফেদ পদ্ম!

4569jhhhনিজস্ব প্রতিবেদক :: চিরসতেজ সবুজ প্রকৃতির লাবণ্যগাথার পরতে পরতে জড়িয়ে আছে আষাঢ়-শ্রাবণের সখ্য। বলাবাহুল্য, ষড়ঋতুদের মধ্যে সবচেয়ে আবেদনময়ী ঋতুর নাম বর্ষা। “বর্ষার স্নিগ্ধতায় সাদা ফুল ফুটে, জেগে ওঠে কতো স্মৃতি/আকাশে ভাসে তুলো-মেঘ, জলে ভিজে বিষণ্ণ প্রকৃতি” এভাবেই বর্ষার অপরূপ প্রকৃতির কথা কবির ভাষায় ওঠে এসেছে বারবার। ষড়ঋতুর দেশ বাংলাদেশে বিভিন্ন ফুলের সমারোহে প্রকৃতি সাজে তার আপন স্বকীয়তায়। বর্ষায় বৃক্ষরাজি থেকে শুরু করে জলে সর্বত্রই ফুটে ওঠা বিভিন্ন রঙের ফুলে বৈচিত্র্যময় রূপ ধারণ করে প্রকৃতি। সেই বৈচিত্র্যময় রূপকে নিয়ে কবি, সাহিত্যিক ও প্রকৃতিপ্রেমীদের কৌতূহলেরও শেষ নেই। হাওর, ঝিল-বিল বা পুকুরে বিভিন্ন ফুলের ন্যায় শুভ্রতার প্রতীক সাদা পদ্মফুল ফুটে। যার বৈজ্ঞানিক নাম Nelumbo nucifera. এর নাম আবিষ্কারক বিজ্ঞানী Gaertn। সাদা পদ্ম আবার পদ্মকমল নামেও পরিচিত।

মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়া উপজেলার বরমচাল ইউনিয়নের করিমপুর টি কোম্পানী লিমিটেডের বরমচাল চা বাগানে গেলে সবুজ প্রকৃতির ছায়ানিবিড় পরিবেশে একটি ছোট্ট পুকুরে চোখে পড়বে সাদা পদ্ম বা পদ্মকমল। সবুজের সমারোহে সাদা পদ্ম ফুটার এমন দৃশ্য দর্শনার্থীদের নজর কেড়ে নিবে অনায়াসেই। বাগানের শ্রমিক নেপাল দাস জানান, প্রতি বছরের বর্ষাকালে এই পুকুরে সাদা পদ্ম ফুটে। এই ফুল পূজোর জন্য চা শ্রমিকরা ব্যবহার করে। পদ্মফুল ও ফল (পদ্মচাক) এর ভিতরে থাকা বীজ বা বোটা আমাশয়সহ বিভিন্ন রোগের জন্য খুবই উপকারী। ঔষধি গুণ ছাড়াও পদ্মচাক ও বীজ বা বোটা সুস্বাদু খাবার। উদ্ভিদ বিশেষজ্ঞদের মতে, দেশে পুকুর-জলাশয়, লেক ও হাওর-বিলে গোলাপি পদ্ম সবচেয়ে বেশি চোখে পড়ে। সেই তুলনায় সাদা পদ্ম বা পদ্মকমল অনেকটাই অপ্রতুল। তবে একসময় প্রায়ই দেখা যেতো লাল ও সাদা-এই দুই রঙের পদ্ম। এই পদ্ম লেক, পুকুর ও বিলের পরিষ্কার পানিতে জন্মে। এপ্রিল থেকে অক্টোবর পর্যন্ত পদ্মফুল ও এর ফল (পদ্মচাক) পরিষ্ফোটিত। সরু কাঁটাভরা পদ্মচাকটি দেখতে অনেকটা সবুজ ও হলদেটে। পদ্মচাক এর ভিতরে রয়েছে বীজ বা বোটা। আগে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে দেখা গেলেও জলবায়ু পরিবর্তনসহ বিভিন্ন কারণে বর্তমানে সাদা পদ্ম বিলুপ্তির পথে। সংরক্ষণের ব্যবস্থা করা না হলে সাদা পদ্ম বিলুপ্ত হয়ে যাবে এমনটি অভিমত উদ্ভিদবিদদের।

জুড়ী তৈয়বুন্নেছা খানম ডিগ্রি কলেজের উপাধ্যক্ষ ও হাকালুকি হাওরের উদ্ভিদ বৈচিত্র্য নিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে এমফিল গবেষণা সম্পন্নকারী ফরহাদ আহমদ জানান, পদ্ম জলজ পরিবেশের উৎকৃষ্ট উপাদান। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় পদ্ম’র ভূমিকা রয়েছে। সাদা পদ্ম পদ্মকমল নামেও পরিচিত। সাদা পদ্মের উৎসস্থল জাপান ও নর্থ অস্ট্রেলিয়া। এটি এখন বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের ঢাকা, খুলনা, রাজশাহী, সুনামগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, মৌলভীবাজার জেলায় বিলুপ্তপ্রায় সাদা পদ্ম এখনও দেখা যায়। কুলাউড়া উপজেলার হাকালুকি তীরবর্তী কভাটেরা ইউনিয়নের রাউৎগাঁও গ্রামের একটি পুকুরে এই পদ্ম রয়েছে। সাদা পদ্ম’র অনেক ঔষধি গুণও রয়েছে। এটির ফলের বিজ হৃৎপিণ্ড, চর্মরোগসহ বিভিন্ন রোগের ঔষধের উপকরণ হিসেবে ব্যবহৃত হয়। এছাড়া ডায়রিয়া রোগ সারাতে এর বোটা কাঁচা খেলে উপকারে আসে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: