সর্বশেষ আপডেট : ১৩ মিনিট ৫২ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কমলগঞ্জে গৃহবধু হত্যার অভিযোগে ময়না তদন্তের জন্য ভাইয়ের আবেদন

01. daily sylhet Kamalgonj news2কমলগঞ্জ প্রতিনিধি::
কমলগঞ্জে শারীরিক নির্যাতন করে ৫ সন্তানের জননী এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। অস্বাভাবিক মৃত্যুতে ভাইয়ের আবেদনে ময়না তদন্তের উদ্যোগ নেওয়া হয়। গত শুক্রবার (৫ আগষ্ট) দিবাগত রাত ১টায় পতনউষার ইউনিয়নের পতনউষার গ্রামে জুবেরা বেগম (৪০) নামের গৃহবধূর মৃত্যু হলে শনিবার সকাল ৮টায় স্বামী শ্বশুড়বাড়িতে মৃত্যু সংবাদ প্রেরণ করে।

স্থানীয়ভাবে জানা যায়, ২০ বছর আগে পতনউষার ইউনিয়নের পতনউষার গ্রামের ব্যবসায়ী জহিরুল হক চৌধুরীর সাথে শমশেরনগর ইউনিয়নের ভাদাইর দেউল গ্রামের মৃত নানু মিয়ার মেয়ে জুবেরা বেগমের বিয়ে হয়েছিল। শুরু থেকেই তাদের দাম্পত্য জীবন সুখের ছিল। তাদের ঘরে ২ ছেলে ও ৩ মেয়ে রয়েছে। গত ৫ বছর পূর্বে ভগ্নিপতি জহিরুল হক চৌধুরী বোনের অমতে ২য় বিয়ে করেন। এ নিয়ে শুরু হয় দাম্পত্য কলহ। এ কলহের জের ধরে ভগ্নিপতি ব্যবসায়ী জহির মিয়া তাকে প্রায়ই শারীরিক ভাবে নির্যাতন করতেন।

এ নিয়ে পতনউষার ইউনিয়ন পরিষদের চেযারম্যান, সদস্য ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দরা কয়েক দফা সামাজিক বৈঠকও করেছেন। গত ১ মাস আগেও এক রাতে স্বামী জুবেরাকে নির্যাতন করে বাড়ি থেকে তাড়িয়ে দিলে আবারও মুরব্বীদের মাধ্যমে সমাধান হলে তাকে স্বামীর বাড়ি ফেরৎ পাঠানো হয়েছিল। গত শুক্রবার রাত ১টায় আকস্মিকভাবে গৃহবধূ জুবেরার মৃত্যু হয়। রাতে মৃত্যু হলেও গৃহবধূর বাবার বাড়িতে খবর পাঠানো হয় শনিবার সকাল ৮টায়।

শনিবার সকালে নিহত গৃহবধূর ভাই ডেকোরেটার্স কর্মী শহীদ মিয়াসহ আত্মীয় স্বজনরা পতনউষারে গিয়ে জুবেরার মৃতদেহ দেখে মৃত্যুটি অস্বাভাবিক বলে সন্দেহ পোষণ করেন। পরে কমলগঞ্জ থানায় শনিবার সকালেই গৃহবধূর ভাই শহীদ মিয়া কমলগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে ময়না তদন্ত দাবি করেন।

ফলে শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা উপ পরিদর্শক আবু সায়েম মো: আব্দুর রহমান ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশেল সুরতহাল তৈরী করে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য লাশ নিয়ে আসেন। নিহত গৃহবধূর ভাই শহীদ মিয়া অভিযোগ করে বলেন, ভগ্নিপতি শারীরিকভাবে নির্যাতন করলে রাতেই তার বোন মারা যায়। তার পুরো দেহ কালো হয়ে গেছে।

তাছাড়া গালেও মুখে কালো দাগও রয়েছে। পতনউষার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সেলিম আহমদ চৌধুরী ব্যবসায়ী জহির মিয়ার পরিবারের কয়েক দফা বিচার করার সত্যতা নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন প্রাথমিকভাবে মনে হচ্ছে গৃহবধূ জুবেরার স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে। তার পরও তার বাবার বাড়ির লোকজন সন্দেহ পোষণ করে ময়না তদন্তের দাবি করায় সেই ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।

তদন্তকারী কর্মকর্তা উপ-পরিদর্শক আবু সায়েম মো: আব্দুর রহমান বলেন প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে, হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে গৃহবধূ মারা যেতে পারেন। তবে ময়না তদন্তে মৃত্যুর মূল কারণ বেরিয়ে আসবে। নিহত গৃহবধূর স্বামী ব্যবসায়ী জহিরুল হক চৌধুরী বলেন, তার স্ত্রী জুবেরা হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। তাকে শারীরিক নির্যাতন করে হত্যা করা হয়নি। তিনিও দাবি করেন যেহেতু ময়না তদন্তে লাশ যাচ্ছে সেহেতু ময়না তদন্তের রিপোর্টে মৃত্যুর মূল কারণ বলে দিতে পারবে।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: