সর্বশেষ আপডেট : ৭ ঘন্টা আগে
শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

বড়লেখায় অবৈধ ব্যবস্থাপনা কমিটি দিয়ে স্কুল পরিচালনার অভিযোগ

2. daily sylhet 666বড়লেখা প্রতিনিধি::
মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার উত্তর বর্র্ণি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়টি বিগত প্রায় তিন বছর ধরে অবৈধ ব্যবস্থাপনা কমিটি দিয়ে পরিচালনার অভিযোগ উঠেছে। নিয়মিত কমিটি গঠন ও প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের আবেদন জানিয়ে কয়েকজন অভিভাবক বৃহস্পতিবার (০৪ আগস্ট) উপজেলা চেয়ারম্যান বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছেন।

অভিযোগ সূত্র জানায়, ২০১০ সালে স্কুলের জামায়াতপন্থী প্রধান শিক্ষক আব্দুল করিম ও সভাপতি রহিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে এলাকাবাসী ও অভিভাবকবৃন্দ বিভিন্ন দপ্তরে গাছ বিক্রির টাকা লুটপাটসহ একাধিক অভিযোগ প্রেরণ করেন। এসব অভিযোগের তদন্ত চলাকালীন অভিযুক্ত সভাপতি রহিম উদ্দিন ২০১০ সালের ১৯ আগস্ট বড়লেখা সহকারী জজ আদালতে প্রধান শিক্ষককে বিবাদী করে স্কুল কমিটির বিরুদ্ধে স্বত্ত মামলা (নং-১৪/২০১০) দায়ের করলে আদালত অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। এরপর অনিয়ম-দুর্নীতির সকল অভিযোগ লালফিতায় বন্দি হয়ে পড়ে। ২০১৩ সালের ৯ জুন আদালত স্বত্ত্ব মামলাটি খারিজ করে দেন। প্রধান শিক্ষক মামলা খারিজের বিষয় গোপন রেখে পরিচালনা কমিটি গঠনের উদ্যোগ না নিয়ে বিগত প্রায় তিন বছর ধরে অভিযুক্ত রহিম উদ্দিনকে সভাপতি রেখেই স্কুলের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন। এমনকি নিয়মিত বেতন-ভাতা উত্তোলন করে যাচ্ছেন কোনো পরিচালনা কমিটি ছাড়াই। এছাড়াও বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল করিম নিজে প্রায়ই অনুপস্থিত থেকে তার স্ত্রী সহ-শিক্ষককে দিয়ে দায়িত্ব পালন করিয়ে থাকেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

শিক্ষার্থীদের অভিভাবক ও এলাকাবাসী আব্দুর রহিম, ছাদ উদ্দিন, কামরুজ্জামান, নাজিম উদ্দিন, সাইদুল ইসলাম প্রমুখ জানান, প্রধান শিক্ষক আব্দুল করিম ও তার স্ত্রী নিয়মিত স্কুল করেন না। কমিটি গঠনে চরম অনিয়ম-দুর্নীতি করেন। এসব অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযোগ দেওয়ায় প্রধান শিক্ষক আব্দুল করিম ও সভাপতি রহিম উদ্দিন যোগসাজস করে আদালতে মিথ্যা স্বত্ত্ব মামলা দায়ের করেন। আদালত তা খারিজ করার প্রায় তিন বছর পরও অবৈধ কমিটি দিয়ে স্কুল পরিচালনা করছেন। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট দপ্তরে অভিযোগ আকারে প্রেরণ করা হয়েছে।

উপজেলা চেয়ারম্যোন রফিকুল ইসলাম অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে তিনি উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে নির্দেশ দিয়েছেন।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা অরবিন্দ কর্মকার জানান, কমিটি সংক্রান্ত স্বত্ত্ব মামলা খারিজের বিষয় প্রধান শিক্ষক অবহিত করেননি। অভিযোগের ব্যাপারে প্রধান শিক্ষককে শোকজ করা হবে।

প্রধান শিক্ষক আব্দুল করিম জানান, ২০১৩ সালে স্কুল কমিটির ওপর রুজু করা স্বত্ত্ব মামলা খারিজের বিষয়ে তিনি জানেন না। আদালত তাকে কোনো কপি না দেয়ায় কমিটি গঠনের উদ্যোগ নিচ্ছেন না। তার বিরুদ্ধে আনিত অনিয়ম-দুর্নীতির সকল অভিযোগ ষড়যন্ত্রমূলক বলে তিনি দাবি করেন।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: