সর্বশেষ আপডেট : ২ মিনিট ৩১ সেকেন্ড আগে
রবিবার, ৪ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

কলকাতায় যাচ্ছে না মাইলস

miles-2edনিউজ ডেস্ক: ভারতের স্বাধীনতি দিবস উপলক্ষ্যে অনুষ্ঠিতব্য ‘আজাদি ফেস্টিভাল’ নামের কনসার্টটিতে অংশগ্রহণ করছে না বাংলাদেশি ব্যান্ডদল মাইলস। সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ‘ভারতবিরোধী বক্তব্য’ প্রচারের অভিযোগে কলকাতায় মাইলস বর্জনের ডাক আসার মধ্যেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে দলটি।
কনসার্টটিতে অংশ নেওয়ার কথা ছিল কলকাতার ব্যান্ডদল ফসিলস-এরও। তবে মাইলস-এর সঙ্গে একমঞ্চে গান গাইতে অস্বীকৃতি জানিয়ে তারাও অনুষ্ঠানটি থেকে সরে দাঁড়িয়েছে।

এ বিষয়ে মাইলস-এর ভোকাল এবং বেইজিস্ট শাফিন আহমেদ-এর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, “ফেইসবুকে সব তথ্য আছে, আমরা একটি ভিডিও পোস্ট করেছি। সেখানে সবকিছু বলা হয়েছে।”

মাইলস-এর তরফ থেকে পোস্ট করা ওই ভিডিওতে ব্যান্ডটির আরেক সদস্য মানাম আহমেদকে সঙ্গে নিয়ে শাফিন পুরো ঘটনাটির জন্য সরাসরি ফসিলস-এর দিকে আঙুল তোলেন।

তিনি বলেন, “আমার দেশ নিয়ে আমি কথা বলবো, এতে কেউ এতোটাই বদার্ড (বিচলিত) হবে যে, মাইলস-এর শো বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করবে, হেইট ক্যাম্পেইন চালাবে (বিদ্বেষমূলক প্রচারণা)- এটা আসলে আমরা চিন্তাও করতে পারিনি। বিশেষ করে ফসিলস-এর মতো একটা ব্যান্ড এর তরফ থেকে, যাদেরকে আমরা অনেকদিন ধরেই চিনি।”

শাফিন আরও উল্লেখ করেন, ফেইসবুকে নিজেদের ব্যাক্তিগত প্রোফাইল থেকে তিনি এবং তার ভাই হামিন আহমেদ ভারত সংক্রান্ত যেসব স্ট্যাটাস দিয়েছেন, তার একটিও ‘ভারতবিরোধী’ নয়। বরঞ্চ ‘সচেতন নাগরিক’ হিসেবে, নিজেদের ‘দেশপ্রেম’ প্রকাশে এমন বক্তব্য দিয়েছেন তারা।

এক পর‌্যায়ে ফসিলস ব্যান্ডটির ভোকাল রুপম ইসলাম-এর ‘শিক্ষাগত যোগ্যতা’ নিয়ে প্রশ্ন তোলেন মানাম আহমেদ।

তিনি বলেন, “ফসিলস যা করেছে, সেটা নিয়ে আসলে আমরাই লজ্জা পাচ্ছি। ওদের মতো শিল্পীদের কাছ থেকে আমরা এটা আশা করি নাই। আমি খুবই দুঃখিত রুপম, তুমি যে কাজটা করেছ, আমি বলবো, এটা ছিল খুবই অ্যামেচারিশ একটা মুভমেন্ট। খুবই নোংরা এবং ছোটমনের একটা ব্যাপার।”
এব্যাপারে রুপম ইসলাম-এর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি একটি টেক্সট মেসেজে গ্লিটজকে বলেন, “আমাদের যা বলার ছিল, আমি একটি ভিডিও পোস্ট করে বলে দিয়েছি। ২২ মিনিট বলেছি। ওর বাইরে আর কিছু বলার নেই।”

রুপম ইসলাম ওই ভিডিওবার্তায় দাবি করেন, মাইলস বর্জন-এর ডাক তারা দেননি।

ভিডিওর শুরুতেই রুপম জানান, কনসার্টের আয়োজকেরা যখন প্রথম তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন, মাইলস তাদের সঙ্গে একই মঞ্চে গাইবে- এব্যাপারটি তারা জানতেন না। যখন জানতে পারলেন, তখন আয়োজকদের তারা ব্যান্ডটির ‘একটি ইতিহাস’ সম্পর্কে অবহিত করেন।

রুপম-এর ভাষ্যে, “এই ইতিহাস কিরকম- বিশ্বকাপ ক্রিকেট চলাকলীন তারা উত্তেজিত কিছু কথা লিখেছিলেন। সেটুকুই আমরা জানতাম। কিন্তু সেটাকে বিরাট আপত্তির বিষয় হিসেবে আমরা মনে করিনি।”

রুপম এরপর বলেন, কনসার্টটি নিয়ে প্রচার শুরু হওয়ার পর কলকাতার ‘রকদর্শক ও শ্রোতা’দের মধ্যে তিনি একধরণের ‘উত্তেজনা’ লক্ষ্য করেন। রুপম দাবি করেন, এদেরই একাংশ তাকে জানান মাইলস-এর ‘ভারতবিরোধী’ প্রচারণার কথা।

তিনি আরও বলেন, “যখন বলা হয়, চেকপোস্টগুলিতে সতর্কতা বাড়ানো দরকার, ইন্ডিয়াতে কিন্তু সোয়াইন ফ্লু ছড়িয়ে পড়ছে- এই বক্তব্যে যে কটাক্ষ রয়েছে, সেটা বোঝার মতো শিক্ষাগত যোগ্যতা কিন্তু আমার আছে।”

রুপম দাবি করেন, ফেইসবুকে শাফিন কিংবা হামিন- কেউই তাদের ফ্রেন্ডলিস্টে ছিলেন না। ফলে মাইলস-এর ‘ধারাবাহিক ভারতবিরোধী বক্তব্য’ সম্পর্কে তারা জানতেন না। কিন্তু কনসার্টে যেতে আগ্রহী শোতাদের কাছ থেকে যখন তারা এব্যাপারে জানতে পারলেন, তখন তারা মনে করেন, মাইলস অংশ নিলে অনুষ্ঠানে ‘ব্যাপক গণ্ডগোল’-এর আশঙ্কা থাকে। তখনই ‘ফসিলস’ সিদ্ধান্ত নেয় এই লাইনআপে তারা কনসার্টটিতে অংশ নেবে না।

রুপম বলেন, “আমাদের প্রত্যেকজন মেম্বার ব্যক্তিগতভাবে মনে করেছিলেন, এই কনসার্ট থেকে সরে যাওয়া উচিৎ যদি মাইলস অনুষ্ঠান করে। কারণ গণ্ডগোল হতে পারে।”

রুপম আরও বলেন, “আমি আবারও মনে করিয়ে দিতে চাই, ভাতে সোয়াইন ফ্লু ছড়িয়ে পড়ছে- এই ধরণের বক্তব্য দেশপ্রেম হতে পারে না।”

এদিকে, এর আগেও ভারতে কনসার্টে অংশ নেওয়া মাইলস ভবিষ্যতেও প্রতিবেশী দেশটিতে কনসার্টে অংশ নেওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। এমন ঘটনা ঘটার পরও ‘আন্তরিক আমন্ত্রণ’ পেলে ভারতে যেতে কোন বাধা নেই বলেই জানান শাফিন আহমেদ।
গ্লিটজকে তিনি বলেন, “আমন্ত্রণের ধরণের উপর নির্ভর করবে, ওখানে যাব কি না। আন্তরিক আমন্ত্রণ পেলে কেন নয়? এবারের আমন্ত্রণেও যথেষ্ঠ আন্তরিকতা ছিল। আমাদেরকে যথাযোগ্য সম্মান দিয়েই তারা আমন্ত্রণ জানিয়েছিল। আমাদেরও পূর্ণ প্রস্তুতি ছিল ওখানে যাওয়ার।”

‘ফিরিয়ে দাও’ খ্যাত এই গায়ক আরও বলেন, “এর আগে গুজরাটে ভূমিকম্পের ত্রাণ সহায়তার কনসার্টে আমরা গেয়েছি। ট্রাইনেশন হোক, টু নেশন হোক, ভারতের ব্যান্ডের সঙ্গেই আমরা কনসার্ট করেছি। সুতরাং এখন এই ঘটনার জন্য ভারতে না যাওয়ার কোন কারণ নেই।”

ভবিষ্যতে ফসিলস-এর সঙ্গে একমঞ্চে গাইবেন কী না- এমন প্রশ্নের উত্তরে শাফিন বলেন, “আমাদের কারও সঙ্গে বাজাতে আপত্তি নেই। ফেইসবুকে বলেছি, বাংলাদেশে যে কোন সময় ফসিলস ওয়েলকাম। তাদের কোন সমস্যা হবে না এখানে পারফর্ম করতে। আমাদেরও কোন সমস্যা নেই তাদের সঙ্গে গান গাইতে।”

কলকাতার রেডিও স্টেশন রেড এফএম এর আয়োজনে ‘রেড ব্যান্ডস্ট্যান্ড আজাদি ফেস্টিভাল: এপার রক ওপার রক’ শিরোনামের কনসার্টটিতে মাইলস ও ফসিলস-এর পাশাপাশি পারফর্ম করার কথা ছিল আরও দুটি ব্যান্ড ও কলকাতার শিল্পী পাপন-এর।

বুধবারে একটি ফেইসবুক পোস্টের মাধ্যমে তারা জানান, মাইলস এবং ফসিলস- কোনো ব্যান্ডই অনুষ্ঠানে থাকছে না। তবে বাকিদের নিয়ে নির্ধারিত সময় ও স্থানেই কনসার্টটির আয়োজন করা হবে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: