সর্বশেষ আপডেট : ৪৭ মিনিট ১১ সেকেন্ড আগে
শুক্রবার, ২৬ মে, ২০১৭, খ্রীষ্টাব্দ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

১৩ দিন ধরে নিখোঁজ দশম শ্রেণীর ছাত্র আবিদ

ABid-550x390নিউজ ডেস্ক : ১৩ দিন ধরে নিখোঁজ ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের একজন কর্মচারির সন্তান ও বনশ্রী আইডিয়েল স্কুলের দশম শ্রেণীর (বিজ্ঞান শাখা) শিক্ষার্থী সৈয়দ আবিদ হাসান (১৫)। অতিরিক্ত ধর্মপরায়ণ আবিদের পরিবার ও পুলিশের ধারণা- আবিদ বিপথগামীদের কবলে পড়েছে।
জানা যায়, গত ২৩ জুলাই সকাল সাড়ে ১০টা থেকে পৌনে ১১টার মধ্যে আবিদ অন্যদিনের মতো বাসা খুব কাছে অবস্থিত ইকরা কোচিং সেন্টারে যায়। এরপর আর ঘরে ফেরেনি। সেদিনই তার বাবা রামপুরা থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।
মানসিকভাবে বেশ বিপর্যস্ত আবিদের বাবা নাম না প্রকাশের শর্তে আমাদের সময় ডটকমকে বলেন, বহু খোঁজাখুঁজি করেছি। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো খবর পাইনি। এখন তো দিনকাল ভাল না, আমার ছেলেকে যদি কেউ খারাপ . . . . . . বলেই কান্নায় ভেঙে পড়েন আবিদের বাবা।
আবিদ খুবই ধর্মপরায়ণ উল্লেখ করে আবিদের বাবা বলেন, আমার ছেলের আচরণ খুবই ভাল। খুব সহজ-সরল। ক্লাস ফাইভ থেকে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ে। গত দুই মাস থেকে নিয়মিত তাহাজ্জুদ নামাজ আদায় করে। ওকে বলতাম, এই বয়সে এতো নামাজের দরকার কী, কিন্তু আবিদ শুনত না। ওর কোনো বন্ধু-বান্ধবও ছিল না। বাসা-স্কুল-কোচিং, এর বাইরে ওর কিছুই ছিল না।
কোনো কিছু সন্দেহ হয় কি-না, এমন প্রশ্নে আবিদের বাবা বলেন, ওর সম্পর্কে তো সবই বললাম। এর মধ্যে সন্দেহ কীভাবে আসে, আমার ছেলে খারাপ নয়, কারও সঙ্গে বন্ধুত্বও নেই, বাসা-স্কুল-কোচিং ছাড়া কোথাও যায়ও না। কী, কাকে সন্দেহ করব, বুঝতে পারছি না।
বনশ্রীর ডি ব্লকের সাত নম্বর সড়কে আবিদের বাবা পরিবার নিয়ে বসবাস করেন। তার তিন ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে আবিদ মেজো।
পারিবারিক সূত্র জানায়, আবিদের নিজস্ব কোনো মোবাইল ছিল না, বাসায় কম্পিউটার নেই। মাঝে মধ্যে তার বাবার নকিয়া কোম্পানির একটি সাধারণ মোবাইল ব্যবহার করত। এ মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধা রয়েছে। তদন্তের স্বার্থে মোবাইলটি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়ে গেছে।
রামপুরা থানার ওসি প্রলয় কুমার সাহা বৃহস্পতিবার বিকালে আমাদের সময় ডটকমকে বলেন, ছেলেটির বৃত্তান্ত শুনে মনে হচ্ছে, ছেলেটি বিপথগামী হয়ে থাকতে পারে। মানে কোনো জঙ্গি সংগঠনে সম্পৃক্ত হয়ে যেতে পারে। শুধু পুলিশই নয়, ডিবি-র‌্যাবসহ এ ঘটনা তদন্ত করছে বলে উল্লেখ করেন ওসি প্রলয় কুমার সাহা।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭, ০১৭১৭ ৬৮ ১২ ১৪ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: