সর্বশেষ আপডেট : ৪৪ মিনিট ৩৬ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সাংবাদিক প্রবীর সিকদারের বিরুদ্ধে আইসিটি মামলায় অভিযোগ গঠন

ppp22222016042009002920160804132327নিউজ ডেস্ক: সাংবাদিক প্রবীর সিকদারের বিরুদ্ধে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনে দায়ের করা মামলায় অভিযোগ (চার্জ) গঠন করেছেন বাংলাদেশ সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনাল। আগামী ০৬ অক্টোবর সাক্ষ্যগ্রহণ শুরুর দিন ধার্য করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (০৪ আগস্ট) এ অভিযোগ গঠন করেন ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতের সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক কে এম শামসুল আলম।

সাংবাদিক প্রবীর সিকদার ট্রাইব্যুনালে হাজির ছিলেন। তাকে দোষী না নির্দোষ বলে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেন।

গত বছরের ১৬ আগস্ট প্রবীর সিকদারকে আসামি করে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানায় তথ্য ও প্রযুক্তি আইন/২০০৬ সংশোধনী ২০১৩ এর ৫৭ (২) ধারায় মামলাটি দায়ের করেন জেলা পূজা উদযাপন কমিটির উপদেষ্টা ও জেলা জজ কোর্টের এপিপি স্বপন পাল।

বাদী এজাহারে উল্লেখ করেন, প্রবীর সিকদার তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে গত ১০ আগস্ট বেলা ১১টা ১৫ মিনিটে ‘আমার জীবন শঙ্কা তথা মৃত্যুর জন্য যারা দায়ী থাকবেন’ শিরোনামে জনসমক্ষে একটি স্ট্যাটাস পোস্ট করেন। এর নিচে তিনি (প্রবীর সিকদার) তার মৃত্যুর জন্য দায়ী থাকবেন হিসেবে তিনজনের নাম উল্লেখ করেন। এর মধ্যে ১ নম্বরে এলজিআরডিমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের নাম রয়েছে।

এজাহারে বাদী অভিযোগ করে বলেন, ‘পোস্টটি পড়ে আমার দৃঢ় বিশ্বাস হয় যে, প্রবীর সিকদার ইচ্ছাকৃতভাবে গণমানুষের প্রিয় নেতা মাননীয় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন সম্পর্কে মিথ্যা-অসত্য লেখা লিখে তার নিজস্ব ফেসবুকে পোস্ট করে মাননীয় মন্ত্রীর ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করেছেন। লেখাটি জনসমক্ষে প্রকাশের মাধ্যমে উসকানি দিয়ে শান্তিপ্রিয় মানুষের কাছে মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়কে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য বিদ্বেষ ছড়িয়েছেন। এর ফলে মাননীয় মন্ত্রীর মানহানি ঘটেছে; যা একটি ফৌজদারি অপরাধ’।

এরপর ১৬ আগস্ট রাতেই প্রবীর সিকদারকে ঢাকা থেকে গ্রেফতার করে ফরিদপুর কোতোয়ালি থানায় নেওয়া হয়। পরে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়। পরদিন আদালতে প্রবীর সিকদারের রিমান্ডের আবেদনের শুনানি হয়। শুনানি শেষে আদালত তার তিনদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। গত বছরের ১৯ আগস্ট প্রবীর সিকদার জামিনে মুক্তি হন।

গত ১৬ মার্চ এ মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ফরিদপুর কোতোয়ালি থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মনির হোসেন সাংবাদিক প্রবীর সিকদারকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিলের আবেদন জানান।

গত ১৯ এপ্রিল ফরিদপুরের ১ নম্বর আমলি আদালতে চার্জশিটটি উপস্থাপন করা হয়। ওই দিন অতিরিক্ত বিচারিক হাকিম মো. মাসুদ আলী মামলাটি ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তর করেন।

সাংবাদিক প্রবীর সিকদার দৈনিক বাংলা ৭১, উত্তরাধিকার-৭১ নিউজ অনলাইন পত্রিকা ও উত্তরাধিকার নামে একটি ত্রৈমাসিক পত্রিকার সম্পাদক।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: