সর্বশেষ আপডেট : ৫৬ সেকেন্ড আগে
বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সিএনজি ধর্মঘট, দুই ঘন্টার ‘জিম্মিদশা’ শেষ হলো সমঝোতায়

20160803_133738

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেট নগরীতে সিএনজি ধর্মঘটে ‘জিম্মি’ (অবরুদ্ধ) অবস্থায় পড়েছিলো সাধারণ মানুষ। অবশেষে সমঝোতার মাধ্যমে ধর্মঘট তুলে নিয়েছে তারা।

বুধবার দুপুর সোয়া ১২টা থেকে হঠাৎ এই ধর্মঘটের সূচনা হলে সিলেট নগরীর কোর্ট পয়েন্ট, বন্দরবাজার দিয়ে যানচলাচল বন্ধ হয়ে যায়। যানজট দেখা দেয় শিশুপার্ক থেকে তালতলা পর্যন্ত। অন্যদিকে যানবাহন সংকট দেখা দেয় জিন্দাবাজার থেকে সোবহানিঘাট পর্যন্ত।

20160803_133408

ফলে জরুরি প্রয়োজনে আসা মানুষ চরম দুর্ভোগে পড়ে। প্রচন্ড গরমে অসহায় নারী ও শিশু অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে বিকেল সোয়া দুইটার দিকে প্রশাসনকে আল্টিমেটাম দিয়ে ধর্মঘট তুলে নেয় সিএনজি-অটোরিকশা শ্রমিকরা।

চালকদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, সিএনজি-অটোরিকশায় পুলিশে ‘রেকার’ (বিশেষ অভিযান) এর প্রতিবাদে সিএনজি-অটোরিকশা শ্রমিকরা এ ধর্মঘট আহ্বান করে। তারা কোর্ট পয়েন্টে রাস্তায় আড়াআড়ি সিএনজি দাঁড় করিয়ে যানচলাচলের পথ বন্ধ করে দেয়। এতে ক্বীনব্রিজ, সোবহানীঘাটের দিক থেকে কোর্ট পয়েন্ট হয়ে চলাচলকারি সবধরণের যানবাহন আটকে পড়ে। এমনকি মোটরসাইকেলও চলতে পারেনি।

অন্যদিকে, এই ধর্মঘটের কারণে যাত্রীরা বাড়ি ফিরতে দুর্ভোগে পড়েন। টিলাগড় কিংবা আম্বরখানা, দক্ষিণ সুরমাগামী কোন যানবাহন চলাচল করতে পারেনি। রিকশা সংকটও দেখা দেয়। এ অবস্থায় রাস্তায় পায়ে হেটে অনেকে গন্তব্যে যেতে দেখা যায়। বয়স্ক মহিলা ও শিশুদের দুর্ভোগ মারাত্মক আকার ধারণ করে। পণ্যবাহী কোন যানবাহন চলাচল করতে পারেনি।

20160803_134547

জকিগঞ্জ থেকে জুলকারনাইন জানান, তিনি অসুস্থ। ডাক্তার দেখাতে শহরে এসেছেন। যানজটের কারণে গরমের মধ্যে বসতে বসতে অসহ্য যন্ত্রণা ভোগ করছেন।

বাড়ি ফেরার প্রস্তুতি নিয়েছেন মৌলভীবাজারের মিতা রানী। বয়স অন্তত ৬৫ বছর। রাস্তায় রিকশাও মিলছে না। বসে পড়েন একটি দোকানের সামনে ছায়া দেখে। তিনি বলেন, ‘পুলিশ টাকা খায়, আর শ্রমিকরা ধর্মঘট ডাকে। আমাদের কী দোষ। আমরা কি এখানে মরে যাবো।’

জিন্দবাজারের এইচএম কর্পোরেশনের সালেহ আহমদ বেলা দেড়টার দিকে জানান, ‘বন্দরবাজারে ধর্মঘটের কারণে তাদের পণ্যবাহী গাড়ি আটকা পড়ে। কাস্টমারের অর্ডার করা পণ্য দিতে পারছি না। তারা দোকানে এসে বসে আছে।’

20160803_134536

শ্রমিক নেতা সালমান আহমদ জানান, কাগজপত্র থাকা সত্ত্বেও ঘন ঘন পুলিশি হয়রানী, মামলার প্রতিবাদে রাস্তা অবরোধ করে সিএনজি অটোরিকশা শ্রমিকরা। কোন যৌক্তিক কারণ ছাড়া তারা চালকদের উপর নির্যাতন চালায়। চাঁদা না দিলে একাধিক মামলা দিয়ে বসে। এটা কোন অবস্থায় মানা যায় না।

তিনি বলেন, প্রশাসনের কর্মকর্তারা আমাদের সাথে কথা বলেছেন। আমরা তাদের আশ্বাসের প্রেক্ষিতে ধর্মঘট তুলে নিয়েছি। অভিযোগ লিখিত আকারে আমরা তাদের কাছে জানাবো। দাবি মানা না হলে বৃহত্তর সিলেটে ধর্মঘট ডাকা হবে।

এ ব্যাপারে পুলিশ কর্মকর্তা আশরাফী বলেন, হঠাৎ করে দুপুর থেকে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে সিএনজি-অটোরিকশা চালকরা। এতে সাধারণ মানুষ ভোগান্তিতে পড়েছে। কোর্ট পয়েন্টে রাস্তা বন্ধ করায় প্রশাসনিক কাজেও ব্যঘাত ঘটছে।

তিনি বলেন, চালকদের সাথে কথা বলে আমরা এই ধর্মঘট প্রত্যাহারের ব্যবস্থা করেছি। তাদের দাবিগুলো উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ দেখবেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ধর্মঘট চলাকালে কোর্ট পয়েন্টে দায়িত্বরত ট্রাফিক পুলিশের ইন্সপেক্টর ও জিন্দাবাজারের টিআই চালকদের সাথে কথা বলে সমাধানের চেষ্টা করেন। কিন্তু, চালকরা তাদের দাবির প্রতি অনড় থাকায় কোন সুরাহা হয়নি। পরে বন্দর বাজার পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই ফয়েজ ও সহকারি কমিশনার আশরাফী ঘটনাস্থলে যান। আশরাফী ধর্মঘট তুলে নেয়ার জন্য তাদেরকে চাপ দেন। তিনি বলেন- আদালতে জঙ্গি আসামি রয়েছে। কোন অঘটন ঘটলে সকল চালক আসামি হবেন। অবরোধ তুলে না নিলে গণগ্রেফতারেরও হুমকি দেন।

এরপর শ্রমিক নেতা সালমান চালক-শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দেন। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, পুলিশ অন্যায়ভাবে আমাদের বিরুদ্ধে হয়রানি করছে। আজ আমরা দুইঘন্টা অবরোধ করেছি। আমরা প্রশাসনকে লিখিত অভিযোগ দেব। প্রয়োজনে সকল চালক-শ্রমিকদের সাথে নিয়ে বৃহত্তর সিলেটে ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টার অবরোধ ডাকবো। আমরা ট্রাফিক পুলিশের অফিস ঘেরাও, রাস্তায় শুঁয়েপড়া কর্মসূচিসহ কঠোর আন্দোলনের ডাক দেবো। পরে শ্রমিকরা অবরোধ তুলে নিলে রাস্তায় যানচলাচল স্বাভাবিক হয়ে যায়।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: