সর্বশেষ আপডেট : ৫৫ মিনিট ৪ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ১০ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

চীনা প্রেমিকার জন্য বিমানবন্দরে ১০ দিন, অতঃপর…

JHANG20160802192804আন্তর্জাতিক ডেস্ক::
‘ভালোবাসলেই আঘাত পেতে হয়’ গানের সেই লাইনের মতো নির্মম বাস্তবতার মুখোমুখি হয়েছেন নেদারল্যান্ডের ৪১ বছর বয়সী আলেকজান্ডার পিটার ক্রিক। প্রেমকাতর পিটারের সঙ্গে চীনের এক তরুণীর সম্পর্ক তৈরি হয় একটি অ্যাপসের মাধ্যমে।

এরপর যা ঘটেছে তা হয়ত কখনো কল্পনাও করেননি তিনি। প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে এসে চীনের একটি বিমান বন্দরে কাটিয়েছেন ১০ দিন। শেষ পর্যন্ত অসুস্থ্য হয়ে পড়ায় তাকে ভর্তি করা হয়েছে স্থানীয় এক হাসপাতালে।

ঘটনা শুরু দুই মাস আগে। চীনা তরুণী ঝ্যাংয়ের সঙ্গে একটি অ্যাপসের মাধ্যমে পরিচয়। এরপর ধীরে ধীরে সেই সম্পর্ক গড়ায় প্রেমে। ঝ্যাংয়ের সঙ্গে দেখা করতে নেদারল্যান্ড থেকে পাড়ি জমান চীনের হুনান প্রদেশে। প্রদেশের চ্যাংসা বিমানবন্দরে ১০ দিন কাটানোর পরও দেখা মেলেনি ঝ্যাংয়ের। ব্যর্থ পিটার সামান্য সহানুভূতি পেয়েছেন চীনাদের।

চীনের গণমাধ্যমে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, দুই মাস আগে তাদের প্রথম পরিচয় হয়। এরপর চুটিয়ে প্রেম করেন তারা। ঝ্যাংকে দেখতে চীন সফরের কথা জানান পিটার। কিন্তু হুনানের বিমানবন্দরে পৌঁছে কাউকে পাননি তিনি। প্রেমিকা তাকে দেখতে আসবেন এমন চিন্তা থেকে বিমানবন্দরে অপেক্ষা করতে থাকেন তিনি। এরই মাঝে কেটে যায় ১০ দিন। হুনানটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শারীরিকভাবে অসুস্থ্য হয়ে পড়ায় পরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সংবাদ প্রচারের একদিন পর টেলিভিশন চ্যানেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেন ঝ্যাং। ঝ্যাং বলেন, ‘তিনি প্রথমে ভেবেছিলেন পুরো ঘটনাই একটি কৌতুক। আমাদের রোমান্টিক সম্পর্ক গড়ে উঠেছিল কিন্তু পরবর্তীতে আমার প্রতি তাকে একটু অনুভূতিহীন মনে হয়েছিল। হঠাৎ একদিন সে আমাকে বিমানের টিকিটের ছবি পাঠিয়েছিল এবং আমি মনে করেছিলাম সে রসিকতা করছে। পরে সে আমার সঙ্গে আর যোগাযোগ করেনি’।

ঝ্যাং আরো বলেন, পিটার যখন বিমানবন্দরে পৌঁছায় সে সময় তিনি অন্য একটি প্রদেশের হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন; নিজের প্লাস্টিক সার্জারির জন্য এবং ফোন বন্ধ রেখেছিলেন।
চীনে সবকিছুই ভুয়া?

চীনে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কর্মকাণ্ডকে অর্থহীন বলে মনে করেন অধিকাংশ ব্যবহারকারী। দেশটির নিজস্ব সামাজিক যোগাযোগের মাইক্রো-ব্লগিং সাইট উইবোতে পিটারের এ ঘটনা হ্যাশট্যাগের মাধ্যমে তুলে ধরছেন অনেকেই। হ্যাশট্যাগে লিখেছেন, অনলাইন বান্ধবীর সঙ্গে দেখা করতে চ্যাংসা এসেছেন এক বিদেশি। উইবোতে ট্রেন্ড হয়েছে এ ধরনের হ্যাশট্যাগ।

অপর একজন লিখেছেন, সে অবশ্যই মূর্খ, কেন এই কাজ করতে হবে? আরেকজন লিখেছেন, সে কি জানে না যে, চীনে সবকিছূেই ভুয়া?

তবে অনেকের সমর্থনও পেয়েছেন পিটার। একজন লিখেছেন, একজন মানুষ একটি সম্পর্ক অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছেন, তার অনুভূতি নিয়ে মজা করবেন না। গত সপ্তাহে দেশে ফেরার কথা ছিল পিটারের। এদিকে, ঝ্যাং বলেছেন, তিনি সুস্থ্য হওয়ার পর পিটারের সঙ্গে দেখা করবেন এবং সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে আগ্রহ রয়েছে তার।

সূত্র : বিবিসি।

এ বিভাগের অন্যান্য খবর

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: