সর্বশেষ আপডেট : ১ সেকেন্ড আগে
মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

লাকড়িতে ১৪ বিয়ের রান্না নতুন কারাগারে!

Karagar-New20160731232857নিউজ ডেস্ক:
সাদা রঙের দেয়ালে প্রায় ২৫০ স্কয়ার ফিট কক্ষে দুটি ফ্যান, তিনটি টিউবলাইট, সংযুক্ত টয়লেট, হাত-পা ধোয়ার বেসিন এবং মেঝেতে টাইলস। এটি কোনো হোটেল-মোটেল কিংবা রিসোর্টের নয়, কেরানীগঞ্জের নতুন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ক্লাসিফাইড সেলের চিত্র। নতুন এই কারাগারটিতে শুধু ক্লাসিফাইড সেল নয়, প্রায় সকল সেলই পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারের চেয়ে উন্নত। তবে মানে উন্নত হলেও কারাগারটিতে বন্দী প্রায় সাত হাজার আসামি গত তিনদিন ধরে খাবারের কষ্টে ভুগছেন।

জানা গেছে, পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারে খাবারের গুণমান নিয়ে বন্দিদের বিস্তর অভিযোগ থাকলেও নির্ধারিত সময়েই খাবার পেতেন। কিন্তু গত তিনদিন যাবত বন্দিদের খাবার সরবরাহের আগের টাইম টেবিল লন্ডভন্ড হয়ে গেছে। আগে সকালের নাস্তা সকাল ৬টা থেকে ৭টার মধ্যে সরবরাহের কাজ শেষ হলেও এখন ৯টা থেকে ১০টায় পর্যন্ত বন্দিদের অপেক্ষা করতে হচ্ছে। সকালের নাস্তার মতো দুপুর ও রাতের (যা বিকেলেই সরবরাহ করা হতো) খাবার বন্টনেও বিলম্ব হচ্ছে।

কারা অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, স্থানান্তরিত নতুন কারাগারে গ্যাস সরবরাহ না থাকায় তিন বেলার খাবারই লাকড়ির চুলায় রান্না করা হচ্ছে। ফলে বন্দীদের ঠিক সময়ে খাবার সরবরাহ করা যাচ্ছে না।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কারা অধিদফতর ও স্থানান্তরিত কারাগারের একাধিক দায়িত্বশীল কর্মকর্তা বলেন, গ্যাস না থাকায় লাকড়ির চুলায় রান্না করতে হচ্ছে। ফলে বেশি লাগছে এবং আগের সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে খাবার সরবরাহ করা যাচ্ছে না বলে তারা স্বীকার করেন।

উদাহারণ টেনে তারা বলেন, কোনো বিয়েতে ৫শ’ মেহমানের একবেলার খাবার রান্না করতে প্রাক প্রস্তুতি হিসেবে প্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী (পোলাউর চাল, মুরগী, মাছ, মাংস, ঘি, তেল, লবন, চিনি ও অন্যান্য) কেনাকাটা থেকে শুরু করে রান্না টেবিলে সরবরাহের আগ পর্যন্ত কি পরিমাণ ধকল সহ্য করতে হয় তা শুধুমাত্র আয়োজকরাই জানেন। আর ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রতিবেলায় এমন ১৪টি বিয়ের সমান রান্নার আয়োজন করতে হয়। সেক্ষেত্রে গ্যাস না থাকায় লাকড়ির চুলাতে রান্নায় বেশি সময় লাগাছে এবং বন্দীদের খাবারের কষ্ট হচ্ছে। গ্যাস চালু না হওয়া পর্যন্ত দুর্ভোগ কতটুকু হ্রাস পাবে তা বলা যাচ্ছে না।

এদিকে, অন্য একটি সূত্র জানায়, কেরানীগঞ্জের ওই এলাকায় গ্যাসের সংযোগ চালু করতে হলে গ্যাসের লাইন টানাসহ বিভিন্ন কাজ দ্রুত গতিতে করতে হবে।

নির্ভরযোগ্য একটি সূত্র জানায়, কারা অধিদফতরের মহাপরিদর্শক আজ (রোববার) নতুন কারাগারে গিয়ে বন্দীদের সঙ্গে কথা বলেন। আগের কারাগারের চেয়ে নতুন কারাগারের আয়তন বড় হওয়ায় বন্দীরা সন্তুষ্টি প্রকাশ করলেও বিলম্বে খাবার সরবরাহ করায় তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং দ্রুত সমস্যার সমাধান দাবি জানান। এ সময় বন্দীদের সমস্যা দ্রুত সমাধানের আশ্বাস দেন মহাপরিদর্শক।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কারা অধিদফতরের সহকারী কারা মহাপরিদর্শক (প্রশাসন) মো. আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, গ্যাস না থাকায় সাময়িক সমস্যা যে হচ্ছে না তা বলা যাবে না। তবে গ্যাস সমস্যা সম্পর্কে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। এর বেশি কিছু তিনি বলতে রাজি হননি।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার (২৯ জুলাই) পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোড থেকে প্রায় সাত হাজার বন্দীকে নতুন এই কেন্দ্রীয় কারাগারে স্তানান্তর করা হয়।জাগো নিউজ

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: