সর্বশেষ আপডেট : ৪৭ মিনিট ৩০ সেকেন্ড আগে
বুধবার, ৭ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে কারাগারেই স্বামীর আত্মহত্যা

148572_1নিউজ ডেস্ক: নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারে স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন নির্যাতনকারী স্বামী ইমরান হোসেন।

শনিবার সকাল ১১টায় কারাগারের টয়লেটের ভেতর গলায় গামছা পেঁচিয়ে তিনি আত্মহত্যা করেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা কারাগারের জেল সুপার হালিমা খাতুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
ইমরান সিদ্ধিরগঞ্জের শিমুলপাড়া বিহারী কলোনীর আব্দুর রহিমের ছেলে। স্ত্রীকে নির্যাতনের দায়ে তিনি হাজতি হিসেবে কারাগারে ছিলেন।

কারাগারের জেলার আসাদুজ্জামান জানান, ইমরান হোসেন শনিবার সকালে অসুস্থ বোধ করেন। পরে তাকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তার তেমন কোনো শারীরিক সমস্যা না পাওয়ায় ফের তাকে জেলখানায় নিয়ে আসা হয়।

এরপর মাঠে হাজতি গণনার সময় লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা অবস্থায় অনুমতি নিয়ে টয়লেটে যান ইমরান। দীর্ঘ সময় টয়লেট থেকে বের না হওয়ায় অন্যান্য হাজতিরা দরজা ধাক্কাধাক্কি করেন। ভেতর থেকে কোনো সাড়া না পেয়ে তারা বিষয়টি অফিসে জানায়।

পরে অফিস থেকে লোক গিয়ে দরজা ভেঙ্গে তাকে গলায় গামছা বাঁধা ঝুলন্ত অবস্থায় দেখতে পায়। পরে তাকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

অন্য একটি সূত্র জানায়, শনিবার সকালে পরিবারের পক্ষ থেকে লিপির মৃত্যুর সংবাদ ইমরানকে জানানো হয়। এরপর থেকেই তিনি অস্বাভাবিক আচরণ করছিলেন।

ফতুল্লা মডেল থানার এসআই সাইফুর রহমান জানান, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট লাশের সুরতহাল করেছেন। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্থান্তর করা হবে।

একাধিক সূত্রে জানা যায়, ইমরান সাত বছর আগে একই এলাকার ইকবাল হোসেনের মেয়ে লিপিকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর তাদের দুইটি কন্যা সন্তান হয়।

এরই মধ্যে ইমরান নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়েন। এতে পারিবারিক অশান্তি বেড়ে যাওয়ায় ইমরানকে দুই মাস আগে তালাক দেয় লিপি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ২২ জুলাই ভোরে ঘমুন্ত অবস্থায় শিলপাটা দিয়ে লিপির মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্মক জখম করে পালিয়ে যায় ইমরান।

পরে লিপিকে দ্রুত শহরের ৩০০ শয্যা হাসপাতালে নেয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এ ঘটনায় লিপির বাবা ইকবাল হোসেন বাদী হয়ে ইমরানের বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করলে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

এদিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৫ জুলাই লিপির মৃত্যু হয়। এই খবর তাকে জানানো হলে তিনি তা সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: