সর্বশেষ আপডেট : ৫২ মিনিট ৪৭ সেকেন্ড আগে
শনিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

নারী জঙ্গিদের নিয়ে পুলিশের কপালে ভাঁজ!

637250f68a0039e678966483450b0881-579b24fe2164b-550x336নিউজ ডেস্ক : জঙ্গিদেশের বিভিন্ন এলাকায় একের পর এক নারী জঙ্গিদের আটকের ঘটনায় উগ্র সংগঠনগুলোর নারী শাখার দিকে শঙ্কিত চোখে তাকাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। জেলা পর্যায়ে পাড়ায়-মহল্লায় ধর্মপ্রচারের এবং ছোট-ছোট সাপ্তাহিক ধর্মসভার আড়ালে কার্যক্রম চালাচ্ছে নারী জঙ্গিরা। বাংলাদেশের পরিস্থিতিতে নারীদের জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা খুঁজে বের করার বিষয়ে কিছুটা বেগও পেতে হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তারা। পুলিশ বলছে, নিয়মিত নজরদারির পর ভেবেচিন্তে এই নারীদের আটক করা হচ্ছে। এই নারীদের বিষয়ে এখন তাদের কাছে যথেষ্ঠ তথ্য আছে।
অনুসন্ধানে জানা গেছে নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন জামআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ (জেএমবি) ও হিজবুত তাহরির এখন অনেকবেশি নির্ভর করছে তাদের নারী সংগঠকদের ওপর। বেশকিছুদিন থেকেই নতুন রিক্রুটমেন্ট বা গোপন সভার খবরাখবর দেওয়ার কাজ নারীদের দিয়েই করানো হচ্ছে।আর বর্তমান পরিস্থিতিতে নেতাকর্মীরা একটু গা ঢাকা দিয়ে নারীদের দিয়েই সাংগাঠনিক কাজগুলো সক্রিয় রাখছে। গোয়েন্দরা বলছেন, বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামাআতুল মুজাহিদিন বা জেএমবি-র সঙ্গে মধ্যপ্রাচ্য ভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট বা আইএস-এর যোগাযোগ থাকতে পারে।
এই সংগঠনগুলো নারীকর্মীদের দিয়ে দৃশ্যমান কাজগুলো করানোর প্রমাণ মেলে সিরাজগঞ্জে জঙ্গি সন্দেহে আটক নারীদের কর্মকাণ্ড থেকেও। খেটে খাওয়া মানুষদের কাছে তারা ধর্মের বাণী প্রচার করতেন তারা। কিন্তু, এর আড়ালে চালাতেন জঙ্গি তৎপরতা। নারী হওয়ায় কেউ সন্দেহ করবে না এমন বিশ্বাসে সিরাজগঞ্জের একটি টিনশেড বাসা ভাড়া নিয়ে সপরিবারে খুব গোপনে দলে নতুন সদস্য বাড়ানোর চেষ্টাও চালাচ্ছিলেন চার নারী। পুলিশের দাবি, এই চার নারী নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গি সংগঠন জামআতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশের (জেএমবি) সদস্য।
গত ১ জুলাই রাজধানীর গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার পর ঢাকা ও ঢাকার বাইরের বিভিন্ন জেলা থেকে সন্দেহভাজন একাধিক জঙ্গিকে আটক করার তথ্য পাওয়া গেছে। তবে আটকের বিষয়ে বরাবরের মতোই মুখ বন্ধ করে রেখেছেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।
গত রবিবার ভোররাতে সিরাজগঞ্জ শহরের মাছুমপুর মহল্লার উত্তরপাড়ায় হুকুম আলীর ভাড়া বাড়ি থেকে আটক করা হয় চার নারীকে। তাদের হেফাজত থেকে ছয়টি হাতবোমা, গ্রেনেডের চারটি খোল, নয়টি জিহাদি বই, ডেটোনেটর, সুইচ ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়। এরও আগে গুলশান হামলায় সংশ্লিষ্টতার সন্দেহে নরসিংদী থেকে রুমা আক্তার (৩৫) নামে এক নারীকে আটক করে গোয়েন্দা পুলিশ। যদিও তার পরিবারের দাবি, রুমা মানসিক ভারসাম্যহীন।
গোয়েন্দা পুলিশ জানায় ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করছে তারা। গত ২৩ জুলাই গোপন বৈঠককালে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার আটিয়াতলী এলাকার একটি বাসা থেকে জামায়াতের ১১ নারী সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ।
এছাড়া, জামায়াতের কর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার অভিযোগে ঝিনাইদহ শহরের ব্যাপারী পাড়ায় অভিযান চালিয়ে জলি খাতুন (২৮) নামে জামায়াতের এক নারীকর্মীকে আটক করে পুলিশ। জলি খাতুন জামায়াতের একজন সক্রিয় কর্মী। সে দীর্ঘদিন এ এলাকায় তার প্রশিক্ষণ কার্যক্রম পরিচালনা করছিলো। তবে কী ধরনের প্রশিক্ষণ তা এখনও জানা যায়নি। নারী হওয়ায় তার কর্মকাণ্ড সন্দেহের চোখে দেখা হয়নি বলে মনে করেন এলাকাবাসী।
উল্লেখ্য, বছর দুয়েক ধরে হিযবুত তাহরীরের নারী সংগঠন কাজ করছে। যদিও ২০০৯ সালে বাংলাদেশ সরকার সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। সাম্প্রতিক অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে রাজধানীসহ সারাদেশে সংগঠনটির কর্মীরা যেমন সক্রিয় আছে ঠিক তেমনই বাড়ছে নারীকর্মী যাদের তারা মানব ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে।
এ বিষয়ে ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেন, আমরা আগে থেকেই বলে আসছি এ ধরনের জঙ্গি সংগঠনগুলো নানা কৌশলে সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ঢুকে যাওয়ার ব্যবস্থা করছে। কঠোর হাতে এদের দমনের বাইরে এ কৌশল থামানোর আর কোনও উপায় নেই। তারা যখন সমাজে নানা কারণেই বাধাগ্রস্ত হচ্ছে তখন কার্য হাসিলের জন্য নারী উইংকে ব্যবহার করছে।
নারী জঙ্গিদের আটক করা ও শনাক্ত করার বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের জনসংযোগ বিভাগের উপ-কমিশনার মাসুদুর রহমান বলেন, সম্প্রতি ঢাকার বাইরে বেশকয়েকটি জায়গায় সন্দেভাজন নারীদের আটক করা হয়েছে। বাংলাদেশের সামাজিক বাস্তবতায় নারীদের জঙ্গি সংশ্লিষ্টতা হুট করে শনাক্ত করা মুশকিল। তিনি আরও বলেন, আমাদের বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা তৎপর রয়েছে। এবং কার্যক্রম নজরদারিতে রাখার পর তাদের আটক করা হচ্ছে। বাংলাট্রিবিউন

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: