সর্বশেষ আপডেট : ৪৩ সেকেন্ড আগে
সোমবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০১৬, খ্রীষ্টাব্দ | ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩ বঙ্গাব্দ |

DAILYSYLHET

সারাদেশে বজ্রপাতে নিহত ১৪

25.-boj1নিউজ ডেস্ক: দেশের সাত জেলায় বৃষ্টির সময়ে বজ্রপাতে দুই শিশুসহ মোট ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এরমধ্যে রংপুরে ছয়, শেরপুর ও নেত্রকোণায় দুই, গাইবান্ধা, মেহেরপুর, নোয়াখালী ও লক্ষ্মীপুরে একজন করে রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ও শুক্রবার পৃথক সময়ে বজ্রপাতের এ ঘটনা ঘটে।

শেরপুর: জেলায় পৃথক বজ্রপাতে দুই কৃষক নিহত হয়েছেন। শুক্রবার পৃথক সময়ে বজ্রপাতের এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, দুপুরে নালিতাবাড়ী উপজেলার উত্তর কালিনগর গ্রামে জমি চাষ করার সময় বজ্রপাতে মিয়া হোসেন (৪৫) নামে এক কৃষক ঘটনাস্থলেই নিহত হন। তিনি ওই গ্রামের মৃত হামিদ আলীর ছেলে।

এদিকে একই সময় শেরপুর সদর উপজেলার লছমনপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর দড়িপাড়া গ্রামে জোসনা (৫০) বজ্রপাতে নিহত হন।

শেরপুরের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার খন্দকার লাবনী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

রংপুর : জেলার পীরগাছা ও কাউনিয়ায় বজ্রপাতে দুই শিশুসহ চার জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার কল্যাণি ও কুর্শা ইউনিয়নে বজ্রপাতের ঘটনা ঘটে।

পীরগাছা থানার ওসি আমিনুল ইসলাম জানান, দুপুরে কল্যাণি ইউনিয়নের বিহারি গ্রামের বাদল চন্দ্র বর্মণের ছেলে বিজয় চন্দ্র্র বর্মণ (৮) ও তার চাচাত ভাই দীলিপ চন্দ্র বর্মণের ছেলে পরিতোষ চন্দ্র বর্মণ (১২) বজ্রপাতে আহত হয়। তাদের মাহিগঞ্জ বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

পরিতোষ বিহারি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৫ শ্রেণি ও বিজয় একই বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী।

কাউনিয়া থানার ওসি আবদুল কাদের জিলানী জানান, কাউনিয়ার কুর্শা ইউনিয়নের গোপাল গ্রামে কৃষক মনিরুজ্জামান মিয়া (৬০) ও একই এলাকার সবুর মিয়ার ছেলে শাকিল মিয়া(১৬) বজ্রপাতে আহত হন। তাদের কাউনিয়া স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে পীরগঞ্জে বজ্রপাতে আবদুর রাজ্জাক ও সুমন মিয়া নামে দুজন মারা যান।

লক্ষ্মীপুর: সদর উপজেলার চররুহিতা ইউনিয়নের চরমণ্ডল এলাকায় বজ্রপাতে সজিব হোসেন নামে এক কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। ইছমাইল হোসেন নামে একজন আহত হয়েছেন। শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, সকালে ইছমাইল হোসেন ও তার ভাগিনা সজিব হোসেন জমিতে কাজ করছিল। এ সময় বজ্রপাতে তারা দুই জন আহত হন। তাদের লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে আনার পথে সজিব হোসেন মারা যান।

সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. আনোয়ার হোসেন জানান, আহত ইছমাইলকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সদর থানার ওসি মো. আবদুল্লাহ আল মামুন ভূইয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নেত্রকোণা : কেন্দুয়া উপজেলার বাট্টা মধ্যপাড়া গ্রামের বালিয়ান বিলে শুক্রবার মাছ ধরার সময় বজ্রপাতে আলম মিয়া নামে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়। এ ছাড়া আগের দিন বৃহস্পতিবার পূর্বধলা উপজেলার হুগলা ডোলকর গ্রামের মেরাজ আলী মাঠে কাজ করার সময় বজ্রপাতে মারা যান।

মেহেরপুর : গাংনী উপজেলার গাড়াবাড়িয়া গ্রামে শুক্রবার বজ্রপাতের ঘটনায় আয়েশা খাতুন নামের এক গৃহবধূ মারা গেছেন। তিনি ওই গ্রামের কালু সেখের স্ত্রী এবং মুক্তিযোদ্ধা সদর উদ্দীনের পুত্রবধূ।

নোয়াখালী : সুবর্ণচর উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের মেঘনা মার্কেটের পাশে মাঠে যাওয়ার পথে ইসরাফিল (৩৫) নামে এক ব্যক্তি বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। নিহত ইসরাফিল ওই এলাকার মৃত আব্দুল আহাদের ছেলে।

গাইবান্ধা: জেলার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার তালুককানুপুর ইউনিয়নের নুনদহ সমসপাড়া গ্রামে বজ্রপাতে শরিফুল ইসলাম (৩০) নামে এক কৃষক বজ্রপাতে মারা গেছেন। শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, দুপুরে শরিফুল জমিতে কাজ করছিল। এ সময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলে তিনি মারা যান।

তালুককানুপুর ইউপি চেয়ারম্যান মো. আতিকুর রহমান আতিক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

নোটিশ : ডেইলি সিলেটে প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও বিনা অনুমতিতে ব্যবহার করা বেআইনি -সম্পাদক

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত

২০১১-২০১৬

সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি : মকিস মনসুর আহমদ, প্রধান সম্পাদক : লিয়াকত শাহ ফরিদী
সম্পাদক ও প্রকাশক : কে এ রহিম, নির্বাহী সম্পাদক: মারুফ হাসান
কার্যালয়: ব্লু ওয়াটার শপিং সিটি, ৯ম তলা, জিন্দাবাজার, সিলেট-৩১০০
ফোন : ০৮২১-৭২৬ ৫২৭ (নিউজ), ০১৭১২ ৮৮ ৬৫ ০৩ (সম্পাদক)
ই-মেইল: dailysylhet@gmail.com

Developed by: